বড় খবর

বিশ্বের সবচেয়ে নিরাপদ শহর টোকিও, তালিকার শেষের দিকে দিল্লি

ডিজিট্যাল, স্বাস্থ্য পরিকাঠামো, সামগ্রিক নগর সুরক্ষার মূল্যায়নের ভিত্তিতেই এই তালিকা প্রকাশ করা হল।সেই বিচারেই এবার তালিকার শীর্ষে এসেছে জাপানের রাজধানী টোকিও।

বিশ্বের নিরাপদ শহরের তালিকার শীর্ষে জাপানের রাজধানী টোকিও। ছবি সৌজন্যে- উইকিমিডিয়া

পাঁচটি মহাদেশের ৬০টি শহরের মধ্যে নিরাপত্তা সূচকের তালিকা প্রকাশ করল ব্লুমবার্গ সংস্থা। ডিজিটাল, স্বাস্থ্য পরিকাঠামো, সামগ্রিক নগর সুরক্ষার মূল্যায়নের ভিত্তিতেই এই তালিকা প্রকাশ করা হল। এই তালিকার প্রথম সারিতে এসেছে সেই সব শহর যেগুলিতে উচ্চমানের স্বাস্থ্যপরিষেবা, সাইবার সুরক্ষা, বিপর্যয় মোকাবিলার পরিকল্পনা, পুলিশি টহলদারি ব্যবস্থা উন্নত বর্তমান। সেই বিচারেই এবার তালিকার শীর্ষে এসেছে জাপানের রাজধানী টোকিও। দ্বিতীয় স্থানে সিঙ্গাপুর এবং তৃতীয় স্থানে জাপানের আরেকটি শহর ওসাকা।

আরও পড়ুন- ‘অসম্মানিত’ রোমিলা থাপার, ঐতিহাসিকের বায়োডেটা চাইল জেএনইউ

উল্লেখযোগ্যভাবে, প্রথমবারের জন্য বিশ্বের নিরাপদ শহরগুলির তালিকায় প্রথম দশে এসেছে আমেরিকার ওয়াশিংটন। তবে তালিকায় নেই হং-এর নাম। কিছুটা অপ্রত্যাশিতভাবেই প্রথম দশে জায়গা পেল না হংকং, এমনটাই মনে করা হচ্ছে। দ্বিবার্ষিক এই রিপোর্টটিতে ২০১৭ সালে তালিকার নয় নম্বরে থাকা হংকং এ বছর নেমে এসেছে ২০ নম্বরে। ভারত মহাসাগরীয় শহরগুলির মধ্যে প্রথম দশে জায়গা করে নিয়েছে সিডনি, সিওল এবং মেলবোর্ন। অন্যদিকে, তালিকার শীর্ষে জায়গা করে নিতে সক্ষম হয়েছে আমস্টারডার্ম, কোপেনহেগেন এবং টরেন্টো । এমনকী গত বারের থেকে ছ’ ধাপ এগিয়ে লন্ডন এবং নিউ ইয়র্ক দুটি দেশই ১৪ এবং ১৫ নম্বর স্থানে উঠে এসেছে।

‘লেটেস্ট সেফ সিটিস রিপোর্টে’র সম্পাদক নাকা কোন্ডো বলেন, ” সামগ্রিকভাবে যে কোনও দেশের সম্পদ সুরক্ষার একটি গুরুত্বপূর্ণ নির্ধারক। যে সূচকগুলিকে নির্ধারক হিসেবে ধরা হয়েছিল, সেগুলির সঙ্গে এই স্বচ্ছতার মাত্রা গভীরভাবে যুক্ত”। উল্লেখ্য, এই গবেষণাটি একটি দেশের বিভিন্ন ধরনের সুরক্ষা ব্যবস্থার দিকগুলিকেও সামনে আনারচেষ্টা করেছে এবং সেগুলি কীভাবে একে অপরের সঙ্গে যুক্ত সেই দিকটিকেও সামনে নিয়ে এসেছে। শুধুমাত্র নম্বরের ভিত্তিতে নয়, প্রতিবেদকরা দেখিয়েছেন কীভাবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানী নিউ ইয়র্ককে পিছনে ফেলে তালিকার ৭ নম্বর স্থানে উঠে এসেছে ওয়াশিংটন ডিসি। তবে প্রথম চব্বিশে যেসব শহর আছে, সেগুলির ‘প্রাপ্ত নম্বরের’ বিশাল কিছু পার্থক্য নেই বলেই জানা গিয়েছে।

আরও পড়ুন- এনআরসি ভারতের ‘অভ্যন্তরীণ বিষয়’, তবুও ‘কড়া নজর’ রাখছে বাংলাদেশ

তবে রিপোর্ট অনুযায়ী দেখা যাচ্ছে, ভারত মহাসাগরীয় দেশগুলিই পৃথিবীর সবচেয়ে নিরাপদ দেশ। যদিও অনেক শহরই তালিকায় নীচের দিকে, তবুও প্রথম দশের মধ্যে ৬টি স্থানেই আছে ভারত মহাসাগরীয় এই সব শহর। তালিকার একেবারে শেষের দিকেই রয়েছে ভারতের নয়াদিল্লি, এটির অবস্থান ৫৩ নম্বরে। এরপর ৫৬ নম্বরে বাংলাদেশ, ৫৭-তে পাকিস্তান এবং ৫৮ নম্বরে ইঙ্গুন। দেখা গিয়েছে, নির্ধারিত সূচকগুলির মধ্যে এই অঞ্চলের শহরগুলি সবচেয়ে খারাপ পারফর্ম্যান্স করেছে ডিজিটাল সুরক্ষার ক্ষেত্রটিতে। নাকা কোন্ডো বলেন, “যদিও ভারৎ মহাসাগরীয় দেশগুলি তাঁদের স্বাস্থ্য, সুরক্ষা, ব্যক্তিগত সুরক্ষার দিকগুলিতে বেশ উন্নতি করেছে, তবু উত্তর আমেরিকা এবং তালিকার শীর্ষে থাকা সাতটি দেশ ডিজিট্যাল সুরক্ষার ক্ষেত্রে প্রভূত উন্নতি করেছে”।

Get the latest Bengali news and General news here. You can also read all the General news by following us on Twitter, Facebook and Telegram.

Web Title: World safest cities index top city tokyo of 60 new delhi ranks 53

Next Story
চাপে রয়েছেন কুলভূষণ, কূটনীতিকের সঙ্গে সাক্ষাতের পর জানাল ভারতKulbhushan Jadhav, কুলভূষণ যাদব, Consular access for Kulbhushan Jadhav, কুলভূষণ যাদবের কনস্যুলার অ্যাকসেস, Kulbhushan Jadhav news, কুলভূষণ যাদবের খবর, Kulbhushan, কুলভূষণ, pakistan, পাকিস্তান, india, ভারত
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com