scorecardresearch

বড় খবর

নিয়োগপত্রের দাবিতে অনড়, ১৪৬ দিনে পড়ল মেয়ো রোডে এসএসসি পরীক্ষার্থীদের আন্দোলন

কেটে গিয়েছে ৬ বছর। এখনও অমিল নিয়োগপত্র।

প্রতিশ্রুতিই সার! মেয়ো রোডে অবস্থান বিক্ষোভে হবু শিক্ষকরা

বারবার মিলেছে প্রতিশ্রুতি। হয়নি চাকরি। মাঝে কেটে গিয়েছে পাঁচ-পাঁচটা বছর। কতদিন আর এই প্রতিশ্রুতি নিয়ে অপেক্ষা! এবার চাই এক ফলশ্রুতি। এমন দাবিতে মেয়ো রোডে এসএসসির চাকরিপ্রার্থীদের অবস্থান-বিক্ষোভ অব্যাহত। ইতিমধ্যেই এই আন্দোলন ১৪৬ দিনে পড়েছে। বিক্ষোভকারীদের দাবি, ২০১৬ সালে পরীক্ষার পরে ২৫০০ জন চাকরিপ্রার্থীর চাকরি এখনও পায়নি। কিন্তু এই নিয়ে কোনও সুরাহাও মেলেনি গত ৫ বছরে। অবিলম্বে রাজ্য সরকার এই সমস্যার সুরাহা করুক। এর দাবিতে টানা ১৪৫ দিন ধরে মেয়ো রোডে অবস্থান বিক্ষোভে রাজ্যের কয়েক’শো চাকরী প্রার্থী।

মেধাতালিকার ভিত্তিতে শিক্ষক নিয়োগের দাবিতে এবং স্কুল সার্ভিস কমিশনের (এসএসসি) নিয়োগে দুর্নীতির প্রতিবাদে গত অক্টোবর মাস থেকে মেয়ো রোডে গান্ধী মূর্তির নীচে লাগাতার অবস্থান চালিয়ে যাচ্ছেন এসএসএসটি প্রার্থীরা। এখনও চলছে তাঁদের অবস্থান বিক্ষোভ। বিক্ষোভকারীদের অভিযোগ, মেধাতালিকায় নাম থাকার পরেই চাকরি মেলেনি। এমনকী মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের আশ্বাসের পরেও কোন কাজ হয়নি। অবিলম্বে ব্যবস্থা না হলে লাগাতার আন্দোলনের পথে হাঁটবেন চাকরি প্রার্থীরা এমনটাই দাবি করলেন বিক্ষোভে অংশগ্রহণকারী অনেকেই। 

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ২০১৮-১৯ সালের কিছু চাকরিপ্রার্থীদের নিয়োগের পরেই নিয়োগ প্রক্রিয়া শেষ করে দেয় স্কুল সার্ভিস কমিশন এমনটাই অভিযোগ বিক্ষোভকারীদের। আন্দোলনকারীদের দাবি, এই নিয়ে টানা তিনবার তারা পথে নেমেছেন চাকরীর দাবিতে অথচ কোন সুরাহা হয়নি। বিক্ষোভে অংশগ্রহণকারী এক চাকরীপ্রার্থী বলেন, “দীর্ঘদিন ধরেই আমরা বঞ্চনার শিকার, আর এই দাবিতেই বিক্ষোভ। এসএসসি সংক্রান্ত যে কমিটি গঠন করা হয়েছিল, তা দুর্নীতিমুক্ত করতে এই বিক্ষোভ। আমরা চাই অবিলম্বে রাজ্য সরকার আমাদের দাবিকে গুরুত্ব সহকারে বিবেচনা করুক”। এর আগে এই মঞ্চে মদন মিত্র, অধীর চৌধুরির মতো রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বরাও এসেছেন। সুদূর মেমারি থেকে এসেছেন এক চাকরিপ্রার্থী। অংশ নিয়েছেন বিক্ষোভে। তার সঙ্গে কথা বলে জানা গেল, “যতদিন না সুষ্ঠু কোনও সমাধান সূত্র বেরিয়ে আসছে ততদিন আমাদের এই আন্দোলন চলবে”। তিনি বলেন, ‘২০১৬ সাল থেকে লড়াই করছি চাকরির জন্য, শুধু প্রতিশ্রুতি ছাড়া কিছুই পাইনি’।

এর আগে শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসুর বাড়ির সামনেও বিক্ষোভ দেখানো হয় বলে উল্লেখ করেন আন্দোলনকারীরা। সেই সঙ্গে চলে ১৮৭ দিনের সেই ঐতিহাসিক আন্দোলন। মুখ্যমন্ত্রীর তরফ থেকেও মিলেছিল আশ্বাস তাও ফেরেনি ভাগ্য। এদিকে গতকাল বিক্ষোভকারীদের মঞ্চে তাদের পাশে গিয়ে দাঁড়ান বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। এদিন বিক্ষোভকারীদের পাশে দাঁড়িয়ে বিজেপি বিধায়ক বলেন, ‘বাজেটে শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে কিছু বলা হয়নি। আলোচনা করে সমাধান করুক রাজ্য। দ্রুত নিয়োগ করুক রাজ্য। এসএসসিতে সীমাহীন দুর্নীতি হয়েছে। টাকা দিয়ে অনেকেই চাকরি পেয়েছেন।’

শুক্রবারই এই মামলায় দু’দিনের অন্তর্বর্তী স্থগিতাদেশ দিয়েছে ডিভিশন বেঞ্চ। হাইকোর্টের তরফ থেকে বলা হয়েছে, ‘দেখে মনে হচ্ছে হিমশৈলের চূড়া মাত্র। এখনও সময় আছে, ব্যবস্থা নিন।’ নবম-দশম শ্রেণিতে শিক্ষক নিয়োগে দুর্নীতি মামলায় সিবিআই অনুসন্ধানে স্থগিতাদেশ দিয়ে এমনই মন্তব্য করলেন বিচারপতি হরিশ টন্ডন। শুক্রবার এই মামলায় দু’দিনের অন্তর্বর্তী স্থগিতাদেশ দিয়েছে ডিভিশন বেঞ্চ।

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Kolkata news download Indian Express Bengali App.

Web Title: On going ssc candidates protest in mayo road demanding appointment of school teacher