Anglo-Indian Day celebrated in Kolkata's iconic Bow Barack: নাচ-গান আর অঢেল খানাপিনা, দেদার হুল্লোড়ে অ্যাংলো-ইন্ডিয়ান দিবস পালন বো-বারাকে | Indian Express Bangla

নাচ-গান আর অঢেল খানাপিনা, দেদার হুল্লোড়ে অ্যাংলো-ইন্ডিয়ান দিবস পালন বো-বারাকে

এই অনুষ্ঠানের অন্যতম আকর্ষণ হল ‘ফুড-ফেস্ট’, খাবার দেখলে জিভে জল আসবেই।

নাচ-গান আর অঢেল খানাপিনা, দেদার হুল্লোড়ে অ্যাংলো-ইন্ডিয়ান দিবস পালন বো-বারাকে
কলকাতার বো-বারাকে উদ্‌যাপিত হল অ্যাংলো-ইন্ডিয়ান দিবস। গ্রাফিক্স-কাঞ্চন ঘোষ

গত রবিবার কলকাতার বো-বারাকে উদ্‌যাপিত হল অ্যাংলো-ইন্ডিয়ান দিবস। এই উপলক্ষে বো-বারাকস রেসিডেন্টস্‌ ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশানের পক্ষ থেকে সেখানে একটা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়, যার মাধ্যমে অ্যাংলো-ইন্ডিয়ান দিবস উদ্‌যাপিত হয়। প্রকৃতপক্ষে এই অ্যাংলো-ইন্ডিয়ান দিবস পালিত হয় ২ অগস্ট। কিন্তু এবার বো-বারাকের বাসিন্দা অ্যাংলো-ইন্ডিয়ানদের তরফ থেকে একটু দেরিতেই এই দিনটা উদ্‌যাপন করা হয়। ওইদিন দুপুর ১২ টা থেকে শুরু করে বিকেল অবধি তাদের এই অনুষ্ঠান চলেছে। সেখানের অন্যতম প্রধান আকর্ষণ ছিল ‘ফুড ফেস্ট’। বিভিন্ন ছোট ছোট খাবারের স্টলে ছিল তিব্বতি, চাইনিজ, বার্মিজ ইত্যাদি পদ। এছাড়াও ছিল কিছু অন্যরকমের স্টলও, যেমন লাকি ড্র খেলা। এবং এই সবকিছুর সঙ্গে ছিল গান এবং নাচের আয়োজন। গোটা দিনটা ছিল বো-বারাকের বাসিন্দাদের মিলন মেলার সমান।

Bow Baracks, Bowbazar, Anglo Indians Day, Anglo Indian Food, Kolkata, Lifestyle
বো বারাক্‌স, ছবি: প্রতিবেদক

মার্ক মরিস, যিনি অনুষ্ঠানের আয়োজকদের মধ্যে একজন, তিনি এই দিবস উদযাপন এবং তাদের অনুষ্ঠান প্রসঙ্গে বলেন, “আসলে এই দিনটা ছিল ২ অগস্ট, কিছু কারণবশত আমরা সেদিন এই অনুষ্ঠানটা করতে পারিনি। তারপরেও আমাদের কিছু দেরি হয়। তবে আমরা এটা অগস্টের মধ্যেই করতে চেয়েছিলাম এবং আজকেই সেই অনুষ্ঠান যা আপনি দেখছেন। আমাদের এই অঞ্চলের বাসিন্দাদের ছাড়াও আরও অনেক স্কুল এবং সংস্থা আছে যেখানে গত ২ অগস্ট থেকে এই দিনটা সেলিব্রেট করা হচ্ছে।”

সাজানো গেট, এইভাবেই সেজে উঠেছিল বো ব্যারাক্‌স, ছবি: প্রতিবেদক

তবে এবারের অনুষ্ঠানে একেবারে আলাদা কী ছিল? এই প্রশ্নের উত্তরে মার্ক বলেন, “আমাদের এই অনুষ্ঠানের অন্যতম আকর্ষণ হল ‘ফুড-ফেস্ট’। আপনি এখানে বিভিন্ন অ্যাংলো-ইন্ডিয়ান খাবারের স্টল থেকে আপনার ইচ্ছেমতো খাবার কিনে খেতে পারেন। এছাড়া আমরা আজকে নাচ-গানের মাধ্যমে সবার সঙ্গে আনন্দ ভাগ করে নিচ্ছি। নাচ-গান-খাওয়াদাওয়া, এসবের মাধ্যমেই আমরা এই দিনটাকে উদযাপন করছি।”

আরও পড়ুন গরম পরোটায় মোড়া স্বর্গসুখ! কলকাতার রোলের ইতিহাস জানলে অবাক হবেন

খাবারের বিভিন্ন স্টল ঘুরে দেখতে দেখতে চোখে পড়ল বিক্রি হচ্ছে বিভিন্ন ধরনের খাবারের পদ। যেমন সেখানে ছিল টফুকক্‌, সসেজ, ওয়ান্টন, সুইমাই, হাক্‌খৌ সুইমাই, ফিস বল সুপ, কোকোনাট বল কারি উইথ ইয়েলো রাইস অ্যান্ড বিটরুট স্যালাড, খাও স্যুয়ে, ভিন্ডালু, খাট্টা পাউ, প্যান্ট্রাস, কাবাব, মকটেল স্টল এবং আরও অনেক কিছু।

অ্যাংলো-বার্মিজ পদ খাও স্যুয়ে, ছবি: প্রতিবেদক

তবে শুধু খাবারের স্টল নয়, অনুষ্ঠান প্রাঙ্গণে দেখা যায় একটা লাকি ড্র খেলা নিয়ে পসরা সাজিয়ে বসেছিলেন বাসিন্দা সুজান। খেলার নাম ‘হুইল অফ ফরচুন’। সুজানের বক্তব্য, “একটু অন্যরকম আনন্দের জন্যই কোনও খাবারের স্টল না দিয়ে আমি এরকম একটা খেলা নিয়ে বসেছি। এটা একটা লাকি ড্র খেলা। এই খেলায় অংশগ্রহণ করতে হলে প্রথমে আপনাকে একটা টিকিট কাটতে হবে, তারপর আপনি এসে এই চাকার উপরের কাঁটাটাকে নিজের হাতে ঘুরিয়ে দেবেন, কাঁটা শেষে যে নম্বরে থামবে সে নম্বরে যে প্রাইজটা লেখা আছে আপনি সেটা পাবেন। প্রাইজের মধ্যে আছে মূলত খাবার আর পানীয়, যেমন- চকোলেট, কিছু স্ন্যাক্স ইত্যাদি।

আরও পড়ুন কলকাতায় বিরিয়ানি আর আলুর অমর প্রেমকাহিনী

সুজান ও তাঁর লাকি ড্র খেলা, ‘হুইল অফ ফরচুন’, ছবি: প্রতিবেদক
সেই বিকেলের জনসমাগম, ছবি: প্রতিবেদক

সবশেষে মার্কের কথার রেশ টেনে বলতে হয়, একটু দেরিতে হলেও গত রবিবার নাচে-গানে-খাবারে বো ব্যারাকে হইহই করে উদ্‌যাপিত হল অ্যাংলো-ইন্ডিয়ান দিবস।

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Lifestyle news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Anglo indian day celebrated in kolkatas iconic bow barack

Next Story
শ্রীরামকৃষ্ণও এই মন্দিরে মানত করতেন, আজও ছুটে আসেন মঠের সন্ন্যাসীরা