scorecardresearch

বড় খবর

দেবী জীবন্ত, আছে ইচ্ছাধারী নাগও, বিশ্বগয়া কালীবুড়ি মন্দির যেন হ্যারি পটারের দেশ!

অমাবস্যার রাতে কিছুক্ষণের জন্য হলেও গোটা মন্দির চত্বর ও তার আশপাশ নাগমণিতে আলোকিত হয়ে যায়।

দেবী জীবন্ত, আছে ইচ্ছাধারী নাগও, বিশ্বগয়া কালীবুড়ি মন্দির যেন হ্যারি পটারের দেশ!

জাগ্রত দেবী। ভক্তদের ভাষায়, দেবী এখানে জীবন্ত। আসানসোল কালীপাহাড়ির বিশ্বগয়া কালীবুড়ি মন্দির সম্পর্কে শুনলে মনে হবে যেন হ্যারি পটারের দেশে এসেছেন। এতটাই বিস্ময় আর অলৌকিক কাহিনিতে এই মন্দির কানায় কানায় ভরা।

সেবায়েত, পুরোহিত থেকে আশপাশের আর পাঁচ জন সাধারণ ভক্ত। সকলেরই দাবি, শুধু দেবীই নন। এই মন্দিরের আশপাশে ঘোরাফেরা করে আত্মাও। থাকে মন্দিরেরই সংলগ্ন প্রেতকুয়োয়। দিনের বেলায় তাদের খালি চোখে দেখা যায় না। কিন্তু, রাতে মন্দিরে থাকলেই শোনা যায় সেই সব আত্মার ডাক। তারা বাংলা থেকে হিন্দি- নানা ভাষায় কথা বলে। সামনে আসে না। কিছুটা দূরে সাদা শাড়ি পরে ঘোরাফেরা করে। সেখান থেকেই ভক্তদের ডাকে। আর ‘বাঁচাও বাঁচাও’, বলে তীব্র চিৎকার করে। মানুষকেও ডাকে সেই সব আত্মা। এমনটাই দাবি ভক্তদের। মন্দিরের সেবায়েতদের দাবি, দেবীর বাৎসরিক পুজোর দিন প্রেতরা এখানকার কুয়ো থেকে মুক্তি পায়। পাশাপাশি, প্রতি শনি এবং মঙ্গলবার চলে ডাকিনী-যোগিনীর পুজো। সেই সময় পাঁঠা অথবা মুরগির বলিদান দেওয়ার রীতি রয়েছে এই মন্দিরে।

শুধু কি তাই? এখানে প্রতি অমাবস্যার রাতেই নাকি কিছুক্ষণের জন্য হলেও চারপাশ আলোকিত হয়ে যায়। তার কারণ ইচ্ছাধারী নাগ আর নাগিনীর মাথায় লাগানো মণির জন্য। সাদা, লাল ও কালো তিন ধরনের ইচ্ছাধারী নাগ এই মন্দিরে দেখা যায়। এমনটাই দাবি মন্দিরের সেবায়েতের। তাঁর দাবি, ওই তিন ইচ্ছাধারী নাগ লম্বায় বেশ বড়, আর চওড়া। তাদের দেখলে সেবায়েত ও পুরোহিতরা দূর থেকে প্রণাম করেন। আশপাশে অসংখ্য সাপ থাকলেও তাই এই মন্দিরের কারও কোনও ক্ষতি হয় না। অর্থাৎ তাঁদের সাপগুলো কামড়ায় না। এমনটাই দাবি মন্দিরের সেবায়েত, পুরোহিত ও ভক্তদের।

আরও পড়ুন- দেবী জাগ্রত, বিপদে ভক্তের আশ্রয়, রক্ষা করেছিলেন রামপ্রসাদ সেনের প্রাণও

আর মনস্কামনা পূরণ? মন্দিরের পুরোহিত থেকে ভক্ত, সকলেরই দাবি- অসুস্থতা দূরীকরণ থেকে যাবতীয় ইচ্ছাপূরণ, এলাকাবাসীর ভরসা এই মন্দির। আসানসোল কালীপাহাড়ি ওভারব্রিজের নীচে নেমে একটু হাঁটলেই সামনে দেখা যায় এই মন্দির। সহজে যাতায়াত করা যায়। সেই কারণেও এই মন্দিরে ভক্তদের ভিড় লেগেই থাকে।

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Lifestyle news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Devotees claim about vishwagaya kali buri temple