বড় খবর

‘অকৃতদার নও, তুমি অকৃতজ্ঞ’, অধিকারী গড়ে দাঁড়িয়ে শুভেন্দুকে নিশানা অভিষেকের

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন্ত্রিসভা ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে অভিষেকের রাজনৈতিক দ্বৈরথ যখন চরমে, সেই সময় এই সভা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

অধিকারীদের ‘খাসতালুক’ কাঁথিতে জনসভা করলেন সাংসদ তথা যুব তৃণমূলের রাজ্য সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন্ত্রিসভা ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে অভিষেকের রাজনৈতিক দ্বৈরথ চরমে, সেই সময় অধিকারীদের গড় কাঁথিতে এই সভা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। সভা থেকে শুভেন্দু অধিকারীকে তীব্র আক্রমণ শানান অভিষেক। ভোটে নন্দীগ্রামে তৃণমূল নেত্রীকে ৫০ হাজার ভোটে হারানোর হুঁশিয়ারি দিয়েছেন শুভেন্দু। এবার পাল্টা দিলেন অভিষেক। জানালেন, মেদিনীপুরের যে আসন থেকেই শুভেন্দু অধিকারী দাঁড়াবেন সেখানেই ৫০ হাজার ভোটে হারবেন।

কী বললেন অভিষেক?

  • ‘অবিভক্ত মেদিনীপুর কারোর বশ্যতা স্বীকার করে না।’
  • ‘মেদিনীপুরের মাটি যাঁরা কালিমালিপ্ত করছেন তাঁদের মানুষ বিতাড়িত করবেন। যারা এই পবিত্র ভূমিকে অপবিত্র করেছে তাদের ক্ষমা নেই। এই মাটি বিদ্যাসাগরের মাটি ‘
  • ‘মেদিনীপুরের আবেগ দিল্লির কাছে বিক্রি করেছে এক গর্দার। বিদ্যাসাগরের মূর্তি যারা ভেঙেছিল, আজ তারা শ্যামাপ্রসাদের মূর্তিতে ফুল দিচ্ছে।’
  • ‘মাঠে যা লোক হয়েছে, তারা ভোট দিলেই তো মীরজাফর কোম্পানির জামানত জব্দ হয়ে যাবে।’
  • ‘স্টিয়ারিং মমতা হাতে। তাই অনেকের গাত্রদাহ। মেদিনীপুরের যেখান থেকে দাঁড়াবে, ৫০ হাজার ভোটে হারাব। আমাকে ধমকে চমকে লাভ নেই। এটা নাকি অধিকারীদের গড়। এই জেলা একটা পরিবারের নাকি? কীসের গড়?এই গড় মেদিনীপুরের মা-ভাই-বোনেদের গড়।’
  • ‘তোমার পাড়ায়, তোমার মাটিতে, তোমাকে চ্যালেঞ্জ জানাচ্ছি, তোমার বাড়ির কয়েক কিমির মধ্যে দাঁড়িয়ে আছি। ক্ষমতা থাকলে কিছু করে দেখাও।’
  • ‘যাঁরা সারদায় টাকা রেখে প্রতারিত হয়েছেন, তাঁরা বাড়ি ঘেরাও করুন। রাখালটা কে, কোথায় গরু চরাচ্ছিল?’
  • ‘বলছে কেন্দ্র-রাজ্যে এক সরকার চাই। কেন? চুরি করতে সুবিধা হবে? উত্তরপ্রদেশে দেখবেন কেউ ধরা পড়ে না।জবল চুরি তাই এই অবস্থা।’
  • ‘একটার পর একটা উন্নয়ন প্রকল্প করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মানুষ উপকৃত। দুয়ারে সরকার সাফল্যের মুখ দেখছে। ার বিজেপির লোকেরা বলছেন যমের দুয়ারে সরকার। ঠিক বলেছেন। এঁদের যম তো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবার গো হারান হারবে ওরা।’
  • ‘সদাই বলে চলেছে গ্রামের সঙ্গে শহরের লড়াই। বলছে দক্ষিণ কলকাতা থেকে পার্টি, সরকার চলে। গ্রাম বনাম শহরের লড়াই তো? তাই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় গ্রাম থেকে লড়ছেন এবার। দেখবে কত ধানে কত চাল। তৃতীয়বারের জন্য ক্ষমতায় আসছে তৃণমূল, মুখ্যমন্ত্রীর আসনে ফের বসবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।’
  • ‘চার আনার নকুলদা- তার আবার ক্যাশমেমো।’
  • ‘নিজে স্বীকার করছে ২০১৪ সাল থেকে অমিত শাহের সঙ্গে যোগাযোগ ছিল। আমরা তো জানতাম, তাই ভরসা করিনি।’
  • ‘বলছে আমাকে তুই-তামারি করছে। আমি করি না। তবে বেইমানদের তুই বলি। ভেতর থেকে সম্মান না এলে কি করব? তুইতোকারিই করব।’

পূর্ব মেদিনীপুরে সভাস্থলে পৌঁছানোর আগে অভিষেকের কনভয়ের যাত্রাপথের বিভিন্ন এলাকায় তাঁর ছবি দেওয়া পোস্টার-ব্যানার-ফ্লেক্স দিয়ে মোড়া ছিল। কোলাঘাটে তৃণমূল সাংসদকে শঙ্খ বাজিয়ে স্বাগত জানান দলের কর্মীরা।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Web Title: Abhishek banerjee meeting at kanthi

Next Story
শোভন-বৈশাখী ‘সামাজিক অস্বস্তি’, মামলা দেবশ্রীর
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com