বড় খবর

প্রিয়াঙ্কা চক্কর কাটলেন, তৃণমূলীরা ছাড়লেন হুঙ্কার, ভবানীপুরের লাভের গুড় কোন ফুলে?

Bhabanipur By-Poll: বিকেল পর্যন্ত হিসেব অনুযায়ী মে মাসের ভোটের হারকে টপকে যাওয়ার সম্ভাবনা তেমন একটা নেই।

Bhabanipur By-poll, BJP, TMC
বুথের বাইরে ভোটারদের লাইন। ছবি: শশী ঘোষ

Bhabanipur By-Poll: ভবানীপুরের উপনির্বাচনে ডান-বামেদের প্রচারের যে মাত্রা ছিল, ভোটের দিন তার কোনও তাপ-উত্তাপ লক্ষ্য করা গেল না। বিজেপি অল্প-বিস্তর অভিযোগ করলেও বুথে বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনীকে কখনও কর্মব্যস্ত দেখায়নি। বরং এদিন কেন্দ্রীয় বাহিনী আরামেই দিনটা কাটিয়ে দিল। কোনও ঝামেলার মোকাবিলা করতে হয়নি তাঁদের। ভোটারের দেখা পেতেই হা-পিত্যেস করে বসেছিলেন বেশ কিছু বুথের প্রসাইডিং অফিসাররা।

দুপুর দেড়টা! ভবানীপুরের নিউ হরিজন স্কুলে একজন একজন করে ভোটার আসছেন। লাইনের কোনও বালাই নেই। ৭৫৮ জন ভোটারের ১৭৬ নম্বরের এই বুথে তখন প্রায় ৩০ শতাংশের কাছাকাছি ভোট পড়েছে। এভাবেই দিনভর অত্যন্ত ঢিমেতালে ভোট প্রক্রিয়া চলেছে মুখ্যমন্ত্রীর নির্বাচনী কেন্দ্রে। করোনা আবহে এখানকার ভোটাররাও যেন এভাবেই কোভিড বিধিকে মান্যতা দিলেন। বৃহস্পতিবার সকাল ৯ পর্যন্ত ভবানীপুর কেন্দ্রের ভোটের হার নিয়ে রীতিমতো গবেষণা করতে বসেছিলেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। তবে ভোট কেন্দ্রের আশেপাশে সিপিএমরে দুএকটা বুথ ক্যাম্প অফিসের দেখা মিললেও, সেভাবে খুঁজে পাওয়া গেল না বিজেপির বুথ ক্যাম্পের অফিস।

ভবানীপুরের একটি বুথের বাইরের ছবি শশী ঘোষের ক্যামেরায়।

গত কয়েকদিনের বিজেপির প্রচারের ঢক্কানিনাদ ভোটের দিন যেন উবে গেল{ সকাল থেকে দৌড়ঝাঁপ করে গেলেন বিজেপি প্রার্থী প্রিয়াঙ্কা টিব্রেওয়াল। ভবানীপুরে ভুয়ো ভোটার থেকে বুথ জ্যাম, রিগিং করার অভিযোগ করেছে বিজেপি। ভবানীপুরে ভোটের হালহকিকতের খোঁজ নিতে গিয়ে দেখা গেল সর্বত্র বুথ ক্যাম্প অফিস রয়েছে তৃণমূল কংগ্রেসের। কিন্তু বিজেপির বুথ ক্যাম্প দূর অস্ত কোথাও সেভাবে চোখে পড়েনি পদ্মপতাকাও।

আলিপুরে তৃণমূলের এক বুথ ক্যাম্পের কর্মীকে এব্যাপারে জিজ্ঞেস করতেই তাঁর জবাব, ‘কোথায় পাবেন ওদের। বিজেপির কেউ কোথাও ভোট ময়দানে নেই। সব ঘরে ঢুকে গিয়েছে।’ যদিও বিজেপির দাবি, ‘শতাংশ বুথেই তাঁদের এজেন্ট ছিল।’

দুই প্রবীণ ভোটারকে সাহায্যের হাত বাড়িয়েছেন এক কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ান। ছবি: শশী ঘোষ

ভোটের দিন বিরোধী প্রার্থীরা বুথে বুথে দৌড়ে বেড়ান। রাজনৈতিক মহলের মতে, বুথে দলীয় এজেন্টদের চাঙ্গা রাখা, শাসকদলকে চাপে রাখা, ভোটারদের মনোবল ধরে রাখতে এই রেওয়াজ রয়েছে। প্রচারের জগতে তা আরও বেড়েছে। এদিন শুধু বিজেপি প্রার্থী ভবানীপুরের এক বুথ থেকে অন্য বুথ চষে বেড়ালেন। তবে আদৌ তার ফল কী দাড়াবে তার জন্য অপেক্ষা করতে হবে আগামি রবিবার পর্যন্ত। 

এভাবেই বুথে বুথে ঘুরতে দেখা গিয়েছে বিজেপি প্রার্থীকে। ছবি: শশী ঘোষ

সাধারণত উপনির্বাচনে ভোটের হার কম থাকে। বিকেল পর্যন্ত হিসেব অনুযায়ী মে মাসের ভোটের হারকে টপকে যাওয়ার সম্ভাবনা তেমন একটা নেই। দুপুর ১২টার পরই ভোটের হারের গতি বাড়তে থাকে। তবে দুপুর আড়াইটে নাগাদ বৃষ্টির পর ফের ভোটের গতি কিছুটা শ্লথ। কোনও বুথেই সেভাবে যে দীর্ঘ লাইন চোখে পড়ল না, তা সাধারণত কোনও নির্বাচনে সচরাচর দেখা যায় না। ভবানীপুরের উপনির্বাচনে প্রায় সব বুথেই সেই দৃশ্যই দেখা গেল। রাজনৈতিক মহলের মতে, তবে এটাও ঠিক কোনও কিছু দেখে ভোটের ফলের  হিসেবের অঙ্ক কষাও সমীচিন নয়। অতীতের বহু নির্বাচনেই তা লক্ষ্য করা গিয়েছে।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Get the latest Bengali news and Politics news here. You can also read all the Politics news by following us on Twitter, Facebook and Telegram.

Web Title: Bhabanipur sees less voting compares to other by poll state

Next Story
থানায় গেলেন মন্ত্রী সুব্রত! ট্যুইটার প্রোফাইল হ্যাকের অভিযোগsubrata mukherjees reaction on arrest warrant order against him by mp-mla court
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com