বড় খবর

অর্জুন ঘনিষ্ঠ মণীশ শুক্লকে গুলি করে খুন, স্বরাষ্ট্রসচিব-ডিজিপিকে সমন রাজ্যপালের, আজ ব্যারাকপুর বন‌ধ

দলীয় নেতা খুনের ঘটনায় তৃণমূল ও পুলিশকে দায়ী করেছে বিজেপি নেতৃত্ব।

ব্যারাকপুরের বিজেপি নেতা সাংসদ অর্জুন সিং ঘনিষ্ঠ মণীশ শুক্লকে গুলি করে খুন করল দুষ্কৃতীরা। সূত্রের খবর, রবিবার রাত সাড়ে আটটা নাগাদ টিটাগড় থানার সামনে দলীয় কার্যালয়ে ঢোকার সময় ৩-৪ জন বাইকে করে এসে তাঁকে ঘিরে ধরে। তারপর এলোপাথারি গুলি চালাতে শুরু করে। রক্তাক্ত অবস্থায় মাটিতে লুটিয় পড়ে এই বিজেপি নেতা। দুষ্কৃতীরা গুলি ছুড়তে ছুড়তে সেখান থেকে পালিয়ে যায়।

গুলিবিদ্ধ মণীশকে প্রথমে স্থানীয় একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তারপর সেখান থেকে কলকাতায় বাইপাসের ধারে অন্য আর একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। দলীয় নেতা খুনের ঘটনায় তৃণমূল ও পুলিশকে দায়ী করেছে বিজেপি নেতৃত্ব। আজ, সোমবার বিজেপির ডাকে চলছে ব্যারাকপুর বনধ্। এই ঘটনার পর উত্তপ্ত হয়ে ওঠে টিটাগড়।

রবিবার মণীশ শুক্ল খুনের ঘটনায় আজ সকাল ১০টায় রাজ্যের স্বরাষ্ট্রসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী এবং রাজ্য পুলিশের ডিজি বীরেন্দ্রকে ডেকে পাঠিয়েছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়। টুইটে তিনি লিখেছেন, ‘আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতির জেরে রাজনৈতিক দলের কার্যালয়ে টিটাগড় পুরসভার কাউন্সিলর মণীশ শুক্লার কাপুরোষচিত খুনের ঘটনায় সোমবার সকাল ১০টায় স্বরাষ্ট্রসচিব ও পশ্চিমবঙ্গ পুলিশের ডিজিকে তলব করা হয়েছে।’

বিজেপির অভিযোগ, তৃণমূল দুষ্কৃতীরা পরিকল্পনা করে খুন করেছে তাদের নেতাকে। ব্যারাকপুর পুলিশ কমিশনারেটের ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছে বিজেপি। যদিও তৃণমূলের দাবি, দলের অন্তর্দ্বন্দ্বে খুন হয়েছেন মণীশ। ব্যারাকপুরের সাংসদ অর্জুন সিং বলেন, “মণীশ আমার ছোট ভাইয়ের মতো। তাকে যেভাবে হত্যা করা হল, এর মাশুল গুনতে হবে তৃণমূল ও পুলিশকে।” সোমবার সকালে মণীশের বাড়িতে যাবেন বিজেপির সর্বভারতীয় সহসভাপতি মুকুল রায়, সাধারণ সম্পাদক কৈলাশ বিজয়বর্গীয় সহ বিজেপি নেতৃত্ব।

মণীশ শুক্ল খুনের ঘটনায় বিজেপির সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক কৈলাস বিজয়বর্গীয় তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও তাঁর পুলিশকে সরাসরি নিশানা করেছেন। বিজয়বর্গীয় বলেন, “টিটাগর থানার সামনে গুলি করে আমাদের নেতাকে হত্যা করা হয়েছে। এর আগে বারে বারে ব্যারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং ব্যারাকপুরের পুলিশ কমিশনার ও অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনারের ভূমিকা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন। তিনি ও তাঁর সঙ্গীদের নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বিগ্ন ছিলেন।” এই ঘটনার পিছনেও পুলিশের ভূমিকা দেখছেন কৈলাস বিজয়বর্গীয়। তিনি বিজেপি নেতা খুনের ঘটনায় সিবিআই তদন্ত দাবি করেছেন।

বঙ্গ বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, “দলের যুব নেতা, আইনজীবী এবং প্রাক্তন কাউন্সিলর মণীশ শুক্লর ভয়াবহ হত্যা নিন্দনীয়। বাংলায় তৃণমূল রক্তের রাজনীতি করছে। এই রাজ্য সরকারের কাছ থেকে কি ন্যায় বিচার আশা করা যায়?”

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Web Title: Bjp leader manish shukla killed at barrackpore

Next Story
হারানো জমি পুনরুদ্ধারের চেষ্টায় ফের জঙ্গলমহল সফরে মমতা
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com