scorecardresearch

বড় খবর

সংসদ নিষ্ক্রিয় করে দেওয়া হয়েছে, গণতন্ত্র শ্বাসকষ্টে ভুগছে, কেন্দ্রকে তোপ চিদাম্বরমের

রাজ্যসভা চলাকালীনই খাড়গেকে তলব করেছে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট। রাজ্যসভার চেয়ারম্যান হিসেবে উপরাষ্ট্রপতি এম বেঙ্কাইয়া নাইডুও সেক্ষেত্রে কিছু করতে পারেননি।

সংসদ নিষ্ক্রিয় করে দেওয়া হয়েছে, গণতন্ত্র শ্বাসকষ্টে ভুগছে, কেন্দ্রকে তোপ চিদাম্বরমের

কেন্দ্রের মোদী সরকার গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে ধ্বংস করে দিচ্ছে। বহুদিন ধরে এই অভিযোগ করছে কংগ্রেস। এবার একধাপ এগিয়ে প্রবীণ কংগ্রেস নেতা পি চিদাম্বরম অভিযোগ করলেন, সংসদকে নিষ্ক্রিয় করে দেওয়া হয়েছে। সব গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠান নিয়ন্ত্রিত এবং বন্দি। এই পরিস্থিতিতে ভারতের গণতন্ত্র শ্বাসকষ্টে ভুগছে। শেষ পর্যন্ত তিনি এমন সিদ্ধান্তেই পৌঁছেছেন বলে জানিয়েছেন চিদাম্বরম।

কেন তিনি এমন কথা বলছেন, তার কারণও ব্যাখ্যা করেছেন কংগ্রেসের এই প্রবীণ আইনজীবী নেতা। চিদাম্বরম এই প্রসঙ্গে টেনে আনেন রাজ্যসভার বিরোধী দলনেতা মল্লিকার্জুন খাড়গের প্রসঙ্গ। রাজ্যসভা চলাকালীনই খাড়গেকে তলব করেছে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট। রাজ্যসভার চেয়ারম্যান হিসেবে উপরাষ্ট্রপতি এম বেঙ্কাইয়া নাইডুও সেক্ষেত্রে কিছু করতে পারেননি। এটা গণতন্ত্রের লজ্জা বলেই মনে করছেন চিদাম্বরম।

কারণ, কোনও তদন্ত এজেন্সিই সংসদ কক্ষের পরিচালক অর্থাৎ লোকসভার স্পিকার ও রাজ্যসভার চেয়ারম্যানের অনুমতি ছাড়া সংসদকক্ষে উপস্থিত কোনও সাংসদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ করতে পারে না। কিন্তু, রাজ্যসভার চেয়ারম্যান হস্তক্ষেপ না-করায় ইডির তলবে সাড়া দিতে অধিবেশন ছেড়ে বেরিয়ে যেতে বাধ্য হয়েছেন বিরোধী দলনেতা মল্লিকার্জুন খাড়গে। বিরোধী দলনেতা হওয়ার সুবাদে যিনি কার্যত একজন মন্ত্রীর সমতুল্য মর্যাদা পান, তাঁকেও অধিবেশন ত্যাগ করতে হয়েছে স্রেফ ইডি তলব করায়।

শুধু অভিযোগ করাই নয়। রবিবার বিজেপির অভিযোগেরও জবাব দিয়েছেন পি চিদাম্বরম। বিজেপি নেতৃত্ব বিশেষ করে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ কংগ্রেসের বিক্ষোভকে রামমন্দির স্থাপনার বিরোধিতা বোঝানোর চেষ্টা করেছেন। শাহ অভিযোগ করেছেন, রামমন্দির প্রতিষ্ঠার দিনই ৫ আগস্ট কালো পোশাক পরে নানা ইস্যুতে বিক্ষোভ দেখিয়েছেন কংগ্রেস নেতৃত্ব। ইস্যু যাই থাক, ওই নির্দিষ্ট দিনে কালো পোশাক পরে বিক্ষোভ প্রদর্শন আসলে রামমন্দির স্থাপনার বিরোধিতার জন্যই। কারণ, কংগ্রেস কোনওদিনই চায়নি যে রামমন্দির অযোধ্যায় রামজন্মভূমিতে তৈরি হোক। এমনটাই অভিযোগ করেছে বিজেপি। যা আসলে প্রকাশ্যে তুলে ধরেছেন অমিত শাহ।

আরও পড়ুন- হুইপ না-মেনে কেন উপরাষ্ট্রপতি নির্বাচনে ভোট, শিশির-দিব্যেন্দুকে শোকজ তৃণমূলের

কংগ্রেসের তরফে জয়রাম রমেশ আগেই জানিয়েছিলেন, আন্দোলনে পঙ্গু করে দিতেই দুষ্ট যুক্তির জাল ফাঁদছে বিজেপি। রবিবার এই প্রসঙ্গে চিদাম্বরম বলেন, যখন কর্মসূচি ঠিক হয়েছিল, রামমন্দির স্থাপনা বার্ষিকীর তখন অনেকদিন বাকি। ফলে, কারও সেই সময় রামমন্দির স্থাপনা বার্ষিকীর কথা মাথাতেই আসেনি। এটা শুক্রবার করা হয়েছে। কারণ, শনিবার উপরাষ্ট্রপতি ভোট। সাংসদরা সবাই দিল্লিতে থাকবেন। তাই তার আগের দিন বিক্ষোভের জন্য বেছে নেওয়া হয়েছিল। আর, কাউকে দোষ দিতে হলে যে কেউ যে কোনও ধরনের যুক্তি সাজাতে পারে। বিজেপিও সেই কারণে রামমন্দিরের প্রসঙ্গে টেনে আনছে বলেই অভিযোগ করেছেন চিদাম্বরম।

Read full story in English

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Politics news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Chidambaram says democracy gasping for breath