সুপ্রিম কোর্টে বড় ধাক্কা মমতার, দাবি মুকুলের

‘‘রাজ্যের মুখ্য়মন্ত্রীর কি উচিত রাজ্যে আগুন লাগানো?" যে ভাবে দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে তিনি কটাক্ষ করেছেন তা সংবিধানের পরিপন্থী বলে দাবি মুকুল রায়ের।

By: Kolkata  Updated: December 19, 2019, 10:44:07 AM

“সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশের ফলে বড় ধাক্কা খেয়েছেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়’’, বৃহস্পতিবার বিজেপির রাজ্য দফতরে বসে এমন মন্তব্যই করলেন মুকুল রায়। তাঁর দাবি, ‘‘মুখ্যমন্ত্রী একাধিকবার অভিযোগ করেছেন, সংবিধান মেনে নাগরিক সংশোধনী আইন করা হয়নি। কিন্তু, সংবিধানের মান্যতা দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট।’’

উল্লেখ্য, সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের সাংবিধানিক বৈধতাকে চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টে একাধিক মামলা দায়ের হয়। বুধবার সর্বোচ্চ আদালত এই আইনে স্থগিতাদেশের আবেদন খারিজ করে দেয়। কেন্দ্রীয় সরকারকে আবেদনের প্রেক্ষিতে মতামত জানাতে নোটিস দিয়েছে আদালত এবং মামলাটির পরবর্তী শুনানি আগামী ২২ জানুয়ারি হবে বলে জানানো হয়েছে। এই প্রেক্ষিতে মুকুলের বক্তব্য, ‘‘মুখ্যমন্ত্রী বলছেন, এই আইন মানবো না। সংবিধান মেনে যে আইন হয়েছে তা মানবো না বলতে পারি না। সংবিধান মেনেই নাগরিক সংশোধনী আইন হয়েছে। সুপ্রিম কোর্টের এই স্থগিতাদেশ সেই বার্তাই দিয়েছে।’’

প্রসঙ্গত, সিএএ এবং এনআরসি-র প্রতিবাদে এদিনও পথে নেমেছেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এর আগে সোম ও মঙ্গলবার কলকাতার দুই প্রান্তে মিছিল করেছেন তিনি। এরপরও জনসভা করবেন মমতা। আর ঠিক তখনই মমতার একদা ‘দক্ষিণ হস্ত’ বলেন, ‘‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মানুষকে ভুল বোঝাচ্ছেন। অপপ্রচার ও বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছেন সিএএ ও এনআরসি নিয়ে। তবে দু’-এক দিন গেলেই মানুষ প্রকৃত সত্য বুঝতে পারবে। আর যেখানে তৃণমূলের ভাল সংগঠন আছে, সেখানেই নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বিরুদ্ধে মিছিল করা হচ্ছে।’’

রাজ্যে নাগরিক সংশোধনী আইন বিরোধী আন্দোলনে ট্রেন ও বাস পুড়েছে। রেলের কয়েকশো কোটি টাকার ক্ষতিও হয়েছে বলে দাবি। উত্তরবঙ্গের সঙ্গে অন্যান্য এলাকার রেল যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। বিজেপির এই কেন্দ্রীয় নেতা এ ক্ষেত্রেও দায়ী করেছেন মুখ্যমন্ত্রীকেই। ‘রাজ্যে স্টেট স্পনসর্ড হুলিগানিজম’ হচ্ছে বলে দাবি করেন মুকুল। তিনি বলেন, ‘‘যে ভাবে এই রাজ্যে বিজেপির নেতাদের ঘিরে বিক্ষোভ দেখানো হচ্ছে…মমতাও কিন্তু দিল্লি যান, দেশের অন্যত্রও যান। সেখানেও কিন্তু বিক্ষোভ হতে পারে।’’

এদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের উদ্দেশে বলেছেন, ‘‘আপনি দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, দেশে আগুন জ্বালানো আপনার কাজ নয়, আগুন নেভানো কাজ। হাতজোড় করে অনুরোধ করছি, শান্তি বজায় রাখুন’’। এ প্রসঙ্গে মুকুল রায়ের জবাব, ‘‘রাজ্যের মুখ্য়মন্ত্রীর কি উচিত রাজ্যে আগুন লাগানো?” যে ভাবে দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে তিনি কটাক্ষ করেছেন তা সংবিধানের পরিপন্থী বলে দাবি মুকুল রায়ের।

Get all the Latest Bengali News and West Bengal News at Indian Express Bangla. You can also catch all the Politics News in Bangla by following us on Twitter and Facebook

Web Title:

Citizenship amendment act 2019 in west bengal supreme court mamata banerjee mukul roy

The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com.
Advertisement

ট্রেন্ডিং
Big News
X