scorecardresearch

বড় খবর

বিজেপিকে তুষ্ট করতেই মমতার RSS প্রশংসা? নাকি বরাবরই সংঘ-ঘনিষ্ঠ তৃণমূল নেত্রী!

২০০৩ সালে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি আরএসএসকে দেশপ্রেমিকদের সংগঠন বলে প্রশংসা করেছিলেন।

বিজেপিকে তুষ্ট করতেই মমতার RSS প্রশংসা? নাকি বরাবরই সংঘ-ঘনিষ্ঠ তৃণমূল নেত্রী!

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী এবং তৃণমূল কংগ্রেস (টিএমসি)-এর প্রধান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সম্প্রতি রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘ (আরএসএস)-র প্রশংসা করেছেন। যা নিয়ে তুমুল বিতর্ক শুরু হয়েছে রাজনৈতিক মহলে। বিরোধী দলগুলোর পাশাপাশি, তৃণমূল কংগ্রেসের একাংশও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই বক্তব্য খোলামনে নেননি। তবে, তাঁরা প্রকাশ্যে মুখ খুলতে নারাজ। তবে, রেয়াত করেনি বিরোধীরা। তাদের অভিযোগ, বিজেপিকে সন্তুষ্ট করতেই তাদের পরামর্শদাতা সংগঠন আরএসএসের ভূয়ষী প্রশংসা করেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো।

বাম-কংগ্রেস তো রয়েছেই। এমনকী, আসাউদ্দিন ওয়াইসির এআইএমআইএমের মত বিরোধী দলগুলোও রেয়াত করেনি তৃণমূল নেত্রীকে। বিরোধীদের অভিযোগ, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বরাবরই সুবিধাবাদী রাজনীতি করেন। এক্ষেত্রেও তাই করেছেন। তাঁর দলের একের পর এক নেতা বর্তমানে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার কড়া নজরে। শীর্ষস্থানীয় একাধিক নেতা এখন জেল হেফাজতে। এই পরিস্থিতিতে কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গে সখ্যতা বজায় রাখতে চান তৃণমূল সুপ্রিমো। তাই, কেন্দ্রের শাসক দল বিজেপির পরামর্শদাতা সংগঠন আরএসএসের প্রশংসা করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

চলতি সপ্তাহের গোড়ায় রাজ্য সরকারের সচিবালয় নবান্নে এক সাংবাদিক বৈঠকে ভাষণ দিতে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘আরএসএস এতটা খারাপ নয়। আমি বিশ্বাস করি না যে আরএসএস এতটা খারাপ। এখনও আরএসএসে অনেক ভালো মানুষ আছেন, যাঁরা বিজেপিকে সমর্থন করেন না। একদিন তাঁরা নীরবতা ভাঙবেন।’

তাঁর সমালোচকদের অবশ্য বক্তব্য, মমতা ব্যানার্জি কিন্তু এই প্রথমবার আরএসএসের প্রশংসা করলেন না। এর আগে ২০১৮ সালে তিনি দলের ছাত্রসংগঠন টিএমসিপির অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়েও আরএসএসের প্রশংসা করেছিলেন। কেন্দ্রে যখন অটলবিহারী বাজপেয়ীর সরকার, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সেই সরকারের শরিক ছিলেন। সমালোচকদের অভিযোগ, সেই সময় শুধু বাজপেয়ী, আদবানিরাই নন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজেও আরএসএস নেতৃত্বের একটা অংশের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ ছিলেন। এমনকী, ২০০৩ সালে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি আরএসএসকে দেশপ্রেমিকদের সংগঠন বলে প্রশংসা করেছিলেন।

আরও পড়ুন- কংগ্রেসে বড় বিপর্যয়, একের পর এক নেতা ছাড়তে পারেন দল, যাচ্ছেন কোথায়?

বিরোধীদের অভিযোগ, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে বিজেপির বিবাদ শুরু হয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও অমিত শাহ রাজ্যে দলের সংগঠনে মনোনিবেশ করার পর। শাহদের চেষ্টায় প্রধান বিরোধী দল হিসেবে বিজেপি উঠে আসায়, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে বিজেপির বিবাদ তুঙ্গে ওঠে। ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির থেকে ভয়ঙ্কর চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হয় তৃণমূল কংগ্রেস। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তার জবাব দেন ২০২১ সালে। বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপিকে রীতিমতো পর্যুদস্ত করে বাংলার ক্ষমতায় ফেরে তৃণমূল কংগ্রেস। তৃতীয়বারের জন্য বাংলার মুখ্যমন্ত্রী হন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

Read full story in English

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Politics news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Cm mamata banerjee praised mentor of bjp rss