তৃণমূলের ব্রিগেডের সভায় আমন্ত্রণ পায়নি সিপিএম, দাবি সীতারামের

রাজনৈতিক ভাবে অনেকটাই দিশাহীন সিপিএম। ক্ষমতায় থাকা আর না থাকার মধ্য়ে যে আমূল ফারাক, তা হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছে এই বামদল। নিজেদের ব্রিগেডের সভা নিয়েও কোনও সিদ্ধান্তই নিতে পারছেন না রাজ্য় নেতৃত্ব।

sitaram yechury
কলকাতায় দলের রাজ্য় দপ্তরে সাংবাদিক বৈঠকে সীতারাম ইয়েচুরি, পাশে সূর্যকান্ত মিশ্র।
বিজেপি বিরোধী শক্তিকে একজোট করতে উদ্য়োগ নিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্য়ায়। ২০১৯-এ ১৯ জানুয়ারি ব্রিগেডে জনসভা করবে তৃণমূল কংগ্রেস। এর আগে তৃণমূল নেত্রী জানিয়েছিলেন, সেই সভায় কেরালার মুখ্য়মন্ত্রী পিনারাই বিজয়নকে আমন্ত্রন জানানো হবে। কিন্তু আজ কলকাতায় আলিমুদ্দিন স্ট্রিটের সাংবাদিক বৈঠকে সিপিএমের সর্বভারতীয় সাধারন সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি দাবি করেন, “এখনও পর্যন্ত তৃণমূলের পক্ষ থেকে ব্রিগেডের জনসভার কোনও আমন্ত্রণপত্র সিপিএম পার্টি বা পিনারাই বিজয়ন পাননি। আমন্ত্রণই পাইনি যখন, যাওয়া না যাওয়ার কথা ভাবব কি করে?”

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে গনতান্ত্রিক ও ধর্মনিরপেক্ষ শক্তিগুলোর সঙ্গে জোট করবে সিপিএম, তা নিয়ে দল আগেই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এদিন ইয়েচুরি জানিয়ে দিলেন, সামনের পাঁচ রাজ্য়ের বিধানসভার নির্বাচনের ফলের ওপর নজর রাখছে দল। এদিকে বছরের শুরুতেই ৮ ও ৯ জানুয়ারি শিল্প ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে বাম শ্রমিক সংগঠনগুলি। ইয়েচুরি বলেন, “দুদিনের শিল্প ধর্মঘটকে সফল করতে সমর্থন করবে সিপিএম। নভেম্বরে দেশব্য়াপী কৃষকদের নিয়েও বিক্ষোভ কর্মসূচি নিয়েছে সিপিএম।” এদিন ফের রাফালে ইস্য়ুতেও তোপ দেগেছেন ইয়েচুরি।

আরও পড়ুন: মমতাকে হারাতে হলে, অধীরের কংগ্রেস না ছেড়ে উপায় নেই: মুকুল

শুক্র ও শনিবার, দুদিন ধরে সিপিএমের রাজ্য় কমিটির বৈঠক ছিল আলিমুদ্দিনে দলের রাজ্য় দপ্তরে। সূত্রের খবর, এখনই ব্রিগেডে জনসভা করার ঝুঁকি নেবে না সিপিএম। রাজ্য় সিপিএম মনে করছে, এই মুহুর্তে ব্রিগেডের জনসভা সফল করার মত লোকবল তাদের নেই। এক সময়ে রাজ্য়ে ক্ষমতায় থাকা সিপিএমের কর্মীরা সব ক্ষেত্রে বুথ স্তরে পৌঁছাতে পারছেন না। আপাতত সিদ্ধান্ত হয়েছে, আগামী লোকসভা নির্বাচন ঘোষণার পর ব্রিগেডে সভা করবে সিপিএম। দলের রাজ্য় সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র বলেন, “প্রতিবারই নির্বাচনের আগে ব্রিগেডে জনসভা হয়। এবারও হবে।” তবে কবে ব্রিগেডে সভা হবে তা জানাতে পারেননি।

এদিকে শিলিগুড়িতে এসএফআইয়ের মিছিলে পুলিশের গায়ে পেট্রোল ঢেলে দেওয়ার অভিযোগে হাওড়া থেকে সুপ্রীতি আশকে গ্রেপ্তার করা হয়। এবার ওই গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে রাস্তায় নামতে চলেছে বিভিন্ন বাম গণসংগঠন। আগামীকাল, অর্থাৎ রবিবার কলকাতা সহ রাজ্য়ের বিভিন্ন জায়গায় ১,০০০ টি স্থানে মুখ্য়মন্ত্রীর কুশপুত্তলিকাও পোড়ানো হবে। তাদের দাবি, মুখ্য়মন্ত্রীর কুশপুতুল পোড়ালে যদি গ্রেপ্তারও হতে হয়, তাহলেও এই কুশপুত্তলিকা পোড়ানোর কর্মসূচী চলবে।

Get the latest Bengali news and Politics news here. You can also read all the Politics news by following us on Twitter, Facebook and Telegram.

Web Title: Cpm national secretary sitaram yechury says mamata did not invite vijayan

Next Story
প্রেসিডেন্সিতে ছাত্র আন্দোলন, ফের নতি স্বীকার কর্তৃপক্ষেরpreci
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com