বড় খবর

‘অপমানিত, বিরক্ত’, রায়দীঘি থেকে এবার প্রার্থী হবেন না ‘অভিমানী’ দেবশ্রী

‘তিনি আর পারছেন না। রায়দিঘির মানুষ ভালবাসলেও অপমানটা আর নিতে পারছেন না। তিনি একজন শিল্পী। সম্মানের সঙ্গে বড় হয়েছেন। ফলে কেউ অপমান করলে সেটা মেনে নিতে অসুবিধা হয়।’

বিধানসভায় প্রার্থী হলেও রায়দিঘি আর নয়। সাফ জানালেন রায়দিঘি কেন্দ্রের দু’বারের বিধায়ক অভিনেত্রী দেবশ্রী রায়। বুধবার তিনি বলেন, ‘‘আর রায়দিঘি থেকে ভোটে দাঁড়াতে চাইছি না। এটা আমার ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত। খুব তাড়াতাড়ি দলকে সেটা জানিয়ে দেব।’’

কেন এমন সিদ্ধান্ত? দেবশ্রীর কথায়, ‘‘আমি অনেক অপমানিত, অনেক বিরক্ত হয়েছি। টোটো কেলেঙ্কারি নিয়ে অনেক অপবাদ সহ্য করতে হয়েছে। দলেরই একাংশ সেটা করছে। এমনকি, আমাকে ফোনে হুমকি দেওয়া হচ্ছে। দলের লোকেরাই দিচ্ছে। তারা চায় না আমি রায়দিঘি থেকে প্রার্থী হই। বিধায়ক হই।’’

দেবশ্রীর দাবি, দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে এই অভিযোগ আগেই জানিয়েছেন। কিন্তু তাতে কোনও কাজ না হওয়াতেই রায়দিঘি আসন ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। তবে কি অন্য কোনও কেন্দ্র থেকে প্রার্থী হবেন? বিধায়ক জানান, এ বিষয়ে কোনও আলোচনা হয়নি। সেটা দল সিদ্ধান্ত নেবে।

প্রসঙ্গত সম্প্রতি দেবশ্রীর বিরুদ্ধে টোটো বিলি সংক্রান্ত আর্থিক প্রতারণার অভিযোগ সামনে নিয়ে এসেছেন অধুনা বিজেপি নেতা শোভন চট্টোপাধ্যায়। রায়দিঘির বিধায়ক দেবশ্রী এলাকায় কোনও কাজ করেননি বলে বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে একযোগে আক্রমণ শানিয়েছেন শোভন। রায়দিঘিতে গিয়ে সেখানকার মানুষের কাছে দেবশ্রীকে জেতানোয় উদ্যোগ নেওয়ার জন্য প্রকাশ্যে ক্ষমাও চেয়েছেন।

তবে কি শোভন-বৈশাখীদের ভয়েই রায়দিঘি কেন্দ্র ছেড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত? দেবশ্রী বলছেন, ‘রায়দিঘির মানুষের সঙ্গে তাঁর গভীর যোগাযোগ। নির্বাচন জেতার জন্য শোভন-বৈশাখী ফ্যাক্টার নন।’ বিজেপি-র বিরোধিতার জন্য নয়, নিজের দলের ভিতরের কিছু মানুষের কাছে অপমানিত হয়েই এই সিদ্ধান্ত বলে জানিয়েছেন অভিনেত্রী-বিধায়ক।

দেবশ্রী আরও বলেন, ‘তিনি আর পারছেন না। রায়দিঘির মানুষ ভালবাসলেও অপমানটা আর নিতে পারছেন না। তিনি একজন শিল্পী। সম্মানের সঙ্গে বড় হয়েছেন। ফলে কেউ অপমান করলে সেটা মেনে নিতে অসুবিধা হয়।’

তৃণমূলে থাকাকালীন শোভনের সঙ্গে দেবশ্রীর ভাল সম্পর্ক ছিল। বস্তুত, ২০১৬ সালে দেবশ্রীকে রায়দিঘিতে ফের টিকিট দেওয়ার বিষয়ে দলে দ্বিমত থাকলেও শোভন তাঁকে জেতানোর দায়িত্ব নেন। এর পরে ঘটনাচক্রে, শোভন-বৈশাখী যেদিন বিজেপি-তে যোগদানের জন্য দিল্লিতে তাদের সদর দফতরে যান, সেদিন সেখানে অকস্মাৎ দেখা যায় দেবশ্রীকে।

যার ফলে যারপরনাই ক্ষুব্ধ হন শোভন-বৈশাখী। এমনকি, দলে যোগ দিতে অসম্মত হয়েছিলেন তাঁরা। দেবশ্রী বিজেপি-তে যোগ দিচ্ছেন না বোঝানোর পরেই তাঁরা যোগদান করতে রাজি হন। যদিও তার পরেও দেবশ্রী বিজেপি-র রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের সঙ্গে যোগাযোগ করেছিলেন।

এখন দলে ‘অপমানিত’ দেবশ্রীর কি আবার বিজেপি-তে যোগ দেওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে? বিজেপি সম্মানের সঙ্গে কোথাও প্রার্থী করতে চাইলে তিনি রাজি হবেন? দেবশ্রী বলছেন, প্রস্তাব এলে ভেবে দেখবেন।

গত ২১ জানুয়ারি রায়দিঘিতে বিজেপি-র এক জনসভায় গিয়েছিলেন শোভন-বৈশাখী। সেখানে দু’জনেই দেবশ্রীর কড়া সমালোচনা করেন। সেই সূত্রেই পরবর্তীতে সূত্রে আলিপুর আদালতে দু’জনের বিরুদ্ধে মানহানির মামলাও করেছেন দেবশ্রী। এ বার তাঁর অভিযোগ তৃণমূলেরই একাংশের বিরুদ্ধে। আর এভাবেই রাজ্য-রাজনীতির আলোচনায় ফের উঠে এসেছেন প্রচারের আড়ালে সরে যাওয়া দেবশ্রী রায়।

Get the latest Bengali news and Politics news here. You can also read all the Politics news by following us on Twitter, Facebook and Telegram.

Web Title: Debashree ray will not contest from raydighi constituency says the tmc mla state

Next Story
‘হোঁদল কুতকুত-কিম্ভূত কিমাকার’, বাংলার সংস্কৃতি নিয়ে মমতাকে পাল্টা খোঁচা বিজেপির
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com