scorecardresearch

বড় খবর

সৌমিত্রের পর এবার রাজীব! ‘মুখ্যমন্ত্রীকে অযথা আক্রমণ করবেন না’, শুভেন্দুকে বার্তা বিজেপি নেতার

Rajib Banerjee: মোদী মন্ত্রিসভায় রদবদলের দিন বড়সড় বিড়ম্বনায় রাজ্য বিজেপি।

Suvendu, Rajib, Soumitra, BJP
এদিন দিলীপ ঘোষ এবং শুভেন্দু অধিকারীর বিরুদ্ধে সরব হয়েছিলেন সৌমিত্র খাঁও।

Rajib Banerjee: মোদী মন্ত্রিসভায় রদবদলের দিন বড়সড় বিড়ম্বনায় রাজ্য বিজেপি। বুধবার দুপুরেই যুব মোর্চার রাজ্য সভাপতি থেকে ইস্তফা দিয়েছেন বিজেপি সাংসদ। ফেসবুকে তাঁর ইস্তফার কারণ ব্যক্ত করে শুভেন্দু-দিলীপ ঘোষকে তীব্র আক্রমণ করেন বিষ্ণুপুরের সাংসদ। সেই রেশ মেলানোর আগেই এবার শুভেন্দুর বিরুদ্ধে সরব অপর এক বিজেপি নেতা রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। বুধবার তিনি মুখ্যমন্ত্রীকে অযথা আক্রমণ না করতে শুভেন্দু অধিকারীকে পরামর্শ দেন ডোমজুড়ের এই বিজেপি প্রার্থী।

এদিন তিনি একটি ফেসবুক পোস্ট করেন। সেই পোস্টে লেখেন, ‘যার নেতৃত্বে এবং যাকে দেখতে বাংলার মানুষ ২১৩টি আসনে তাঁর প্রার্থীকে ভোট নির্বাচিত করেছেন সেই মুখ্যমন্ত্রীকে অযথা আক্রমণ না করেস সাধারণ মানুষের দুর্দশা মুক্তির জন্য পেট্রোল-ডিজেল রান্নার গ্যাসের মূল্যহ্রাস এখন লক্ষ্য হওয়া উচিত।‘  এদিকে, রাজ্য যুব মোর্চার সভাপতি পদ থেকে ইস্তফা দিলেন বিষ্ণুপুরের সাংসদ সৌমিত্র খাঁ। নিজেই ফেসবুক পোস্টে এই ঘোষণা করেছেন তিনি। তবে, দল ছাড়ছেন না সৌমিত্র। তিনি বিজেপিতে রয়েছেন, আগামিতেও গেরুয়া দলে থাকবেন বলে সোশাল মিডিয়ায় জানিয়েছেন। ফেসবুক পোস্টে সৌমিত্র খাঁ লিখেছেন, ‘আজ থেকে আমি আমার ব্যক্তিগত কারণে যুব মোর্চার রাজ্য সভাপতি পদ থেকে অব্যাহতি নিলাম। বিজেপি-তে ছিলাম, বিজেপি-তে আছি, আর আগামী দিনে বিজেপি-তেই থাকব।’

আর কয়েক ঘন্টা পরেই কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার সম্প্রসারণ হবে। মোদী মন্ত্রিসভায় বাংলা থেকে নিশীথ প্রামাণিক ও শান্তনু ঠাকুরের জায়গা প্রায় পাকা। কিছুক্ষণ আগেই ফেসবুক পোস্টে এই দুই সতীর্থকে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হতে পারেন বলে শুভেচ্ছাও জানান সৌমিত্র খাঁ। কিন্তু, তার এক ঘন্টার মধ্যেই সেই ফেসবুক পোস্টেই বিষ্ণুপুরের সাংসদ ঘোষণা করলেন, রাজ্য যুব মোর্চার সভাপতি পদের দায়িত্ব ছাড়ছেন তিনি।

তাহলে কী কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় ঠাঁই না পেয়েই এই সিদ্ধান্ত? জল্পনা তুঙ্গে। সূত্রের খবর, কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় জায়গা না পেয়ে ক্ষুব্ধ সৌমিত্র। কিন্তু বিগত কয়েক মাস ধরেই রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ এবং বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে তাঁর মতানৈক্যের প্রবল আকার ধারণ করেছে। যা গোটা রাজ্য বিজেপির কাছেই চরম অস্বস্তির। ইতিমধ্যেই কটাক্ষ করে সৌমিত্র খাঁ বলেছেন, ‘গোটা বিজেপিটাই তো এখন পূর্ব মেদিনীপুর এবং পশ্চিম মেদিনীপুর চালাচ্ছে।’ ফলে নেতৃত্বের সঙ্গে সংঘাতও সোমিত্রের যুব সভাপতির দায়িত্ব ছাড়ার অন্যতম কারণ।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Politics news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Dont make meaningless attack at chief minister rajib told to suvendu state