scorecardresearch

বড় খবর

‘তৃণমূলের লোকজনকে বলছি মেট্রোয় চড়বেন না’

‘‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রকল্পে তিনিই যদি উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বাদ থাকেন তাহলে আমরা সেখানে কী করতে যাব। যাওয়ার কোনও প্রশ্নই নেই’’

‘তৃণমূলের লোকজনকে বলছি মেট্রোয় চড়বেন না’
অলঙ্করণ: অভিজিৎ বিশ্বাস।

ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর উদ্বোধন ঘিরে তুঙ্গে বঙ্গ রাজনীতি।  ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর উদ্বোধন হাজির থাকছেন না তৃণমূল কংগ্রেসের স্থানীয় সাংসদ ও বিধায়করা। আমন্ত্রণপত্রে নাম নেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। বিভিন্ন অনুষ্ঠানে ব্যস্ত থাকায় সেখানে হাজির থাকছেন না বিধাননগরের মেয়র কৃষ্ণা চক্রবর্তী। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আমন্ত্রণ না জানানোয় হাজির থাকবেন না বারাসতের সাংসদ কাকলি ঘোষ দস্তিদারও। শাসকদলের এহেন ভূমিকাকে নিশানা করে বঙ্গ বিজেপি নেতৃত্বের কটাক্ষ, যাঁরা সৌজন্যবোধ জানেন না তাঁদের সৌজন্য দেখানোর কোনও প্রশ্ন ওঠে না।

এ প্রসঙ্গে রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু বলেন, “তৃণমূলের সৌজন্য কোথায়? জলপাইগুড়ি, আলিপুরদুয়ারে প্রশাসনিক বৈঠকে আমাদের সাংসদকে আমন্ত্রণ জানায় না। সৌজন্যের কথা বলতে গেলে আগে সৌজন্য দেখাতে হয়। তৃণমূলের সঙ্গে সৌজন্যতা দেখানোর কোনও দরকার নেই।” সায়ন্তন আরও বলেন, “মোদীজির স্বপ্নের প্রকল্প আমরা করছি। তৃণমূলের লোকজনকে বলছি মেট্রোতে চড়বেন না”।

আরও পড়ুন: কলকাতায় ঐশীর জ্বালাময়ী ভাষণ, বিজেপি-আরএসএসকে তুলোধনা

এই উদ্বোধনে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আমন্ত্রণ ‘না’ জানানো নিয়ে বিতর্ক দেখা দিয়েছে। এ প্রসঙ্গে বারাসতের সাংসদ কাকলি ঘোষ দস্তিদার বলেন, ‘‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রকল্পে তিনিই যদি উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বাদ থাকেন তাহলে আমরা সেখানে কী করতে যাব। যাওয়ার কোনও প্রশ্নই নেই। এই প্রকল্প ঘোষণা করেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তবু তাঁকে ডাকছেন না। এটা সৌজন্যতার অভাব’’। কাকলিদেবী জানান, বুধবারই তিনি আমন্ত্রণের কার্ড পেয়েছেন।

নিজের কর্মসূচি থাকায় ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর উদ্বোধনে হাজির হতে পারছেন না বিধাননগরের মেয়র কৃষ্ণা চক্রবর্তী। তাঁর বাড়িতে বুধবারই আমন্ত্রণের কার্ড এসেছে। একটু রাতে বাড়ি ফেরায় আজ সকালে সেই কার্ড দেখেছেন বলে জানিয়েছেন কৃষ্ণাদেবী। তিনি বলেন, ‘‘বৃহস্পতিবার আমার নিজস্ব কতগুলো কর্মসূচি আছে। তিন মাস আগে থেকেই তা ঠিক করা ছিল। কেএমডিএ, টেন্ডার কমিটির বৈঠক রয়েছে। এলাকার মানুষের উন্নয়ন আমার কাছে অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ’’।

আরও পড়ুন: ‘পিকে মমতার মাসতুতো ভাই’

এই প্রকল্প করার সময় জমি-জটে জেরবার ছিল মেট্রো কতৃপক্ষ। কৃষ্ণা চক্রবর্তীর বক্তব্য, ‘‘সংকটের সময় আমি ও সুজিত বসু সেখানে বসে আমরা সমাধান করেছিলাম। যেখানে যেখানে জমি-জট ছিল তা ছাড়িয়েছি। আমরা উন্নয়নের পক্ষে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্বপ্নের প্রকল্প। মুখ্যমন্ত্রীকে জানায়নি। আমাদের কে জানাল কে জানাল না এটা নিয়ে ভাবি না’’।

বহু টালবাহানার পর বৃহস্পতিবার ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর উদ্বোধন হচ্ছে। সল্টলেক সেক্টর ফাইভে মেট্রো চলাচলের সূচনা করবেন রেলমন্ত্রী পীযুষ গোয়েল। আপাতত সেক্টর ফাইভ থেকে মেট্রো চলবে সল্টলেক স্টেডিয়াম পর্যন্ত। এই রুটে মোট ছটি স্টেশন থাকছে। সেক্টর ফাইভ, করুণাময়ী, সেন্ট্রাল পার্ক, সিটি সেন্টার, বেঙ্গল কেমিকেল ও সল্টলেক স্টেডিয়াম।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Politics news download Indian Express Bengali App.

Web Title: East west metro opening debate mamata banerjee bjp