scorecardresearch

নজরে ভোট, যোগী-রাজ্যে বিজেপিকে চাপে ফেলতে ময়দানে কৃষক-নেতারা

আগামী বছরেই উত্তরপ্রদেশে বিধানসভা ভোট। তার আগে রাজ্যজুড়ে বিজেপি বিরোধী এই আন্দোলন আরও জোরদার করতে তৎপর কৃষক নেতারা।

Eye on UP polls, farm leaders take on BJP
মুজফফরনগরের সভায় কৃষকদের উপচে পড়া ভিড়

বছর ঘুরলেই উত্তরপ্রদেশে বিধানসভা নির্বাচন। বিজেপিকে প্যাঁচে ফেলতে ভোটের আগে এবার ময়দানে কৃষক নেতারা। রবিবার মুজফফরনগরে কৃষি আইন বিরোধী সভায় জনসুমদ্র। হাজার-হাজার কৃষক সামিল ছিলেন বিজেপি-বিরোধী ওই সভায়। মঞ্চ থেকে কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে আওয়াজ তোলেন কৃষক নেতা রাকেশ টিকায়েত-সহ অন্যরা। তাঁদের সঙ্গে একই দাবিতে সোচ্চার হন হাজার-হাজার কৃষক। রবিবার উত্তরপ্রদেশের ওই কৃষক-সমাবেশে হরিয়ানা, রাজস্থান, তেলেঙ্গনা, কর্নাটক, উত্তরাখণ্ড-সহ একাধিক রাজ্য থেকে কৃষকরা এসে যোগ দিয়েছিলেন।

আর কয়েক মাস পরেই গোবলয়ের এই রাজ্যে বিধানসভা ভোট। তার আগে বিজেপি-বিরোধী এই কৃষি আন্দোলন বেশ খানিকটা প্রভাব ফেলতে পারে যোগী-রাজ্যে। রাজ্যের শাসকদলের বিরুদ্ধে রবিবার মুজফফরনগরের ওই কৃষক সমাবেশ থেকে যে আওয়াজ উঠেছে তাতে করে বিধানসভা ভোটের কয়েক মাস আগে রাজ্যের গেরুয়া নেতাদের কপালে ভাঁজ পড়ার পক্ষে যথেষ্ট, এমনই মনে করে রাজনৈতিক মহলের একাংশ। রবিবারের এই সমাবেশকে “মহাপঞ্চায়েত” হিসেবে অভিহিত করা হয়েছিল সম্মিলিত কিষাণ মোর্চার তরফে। এই সংগঠনের তরফেই মাসের পর মাস ধরে কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে সরব দেশের কৃষক সমাজের একটি বড় অংশ। পশ্চিম উত্তরপ্রদেশ জেলায় ২০১৩ সালে সাম্প্রদায়িক হিংসা ছড়িয়েছিল। এই জেলায় বিজেপির উত্থান না হওয়া পর্যন্ত এখানে রাষ্ট্রীয় লোকদলের (আরএলডি) বড়সড় প্রভাব ছিল।

বিশাল এই কৃষক সমাবেশ থেকে রবিবার বিজেপি নেতৃত্বাধীন উত্তরপ্রদেশ সরকারকে তুলোধনা করেছেন কৃষক নেতা রাকেশ টিকায়েত। তিনি বলেন, ”উত্তরপ্রদেশের মানুষ (স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী) অমিত শাহ, (প্রধানমন্ত্রী) নরেন্দ্র মোদী এবং (উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী) যোগী আদিত্যনাথকে সহ্য করবেন না। যদি আমাদের এই সরকারই থেকে যায়, তাহলে দাঙ্গা হবে। এই ভূমি অতীতে আল্লাহু আকবর, হর হর মহাদেব, স্লোগান দেখেছিল। ওরা বিভাজনের কথা বলে। আমরা এক হওয়ার কথা বলি।”

আরও পড়ুন- Daily Horoscope, 6 September 2021: ব্যবসায় সাফল্য বৃশ্চিকের, ধনুর কাজে স্বীকৃতি! পড়ুন রাশিফল

কেন্দ্রের নতুন তিনটি কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে মাসের পর মাস ধরে সরব কৃষক সংগঠনগুলি। দিল্লির সীমানায় লক্ষ-লক্ষ কৃষক এই আইন বাতিলের দাবিতে সরব থাকলেও কেন্দ্রের সরকার কোনও পদক্ষেপ করেনি বলে অভিযোগ কৃষক নেতা রাকেশ টিকায়েতের। তিনি বলেন, ”গত ৯ মাসে আন্দোলন করতে গিয়ে ৬০০-র বেশি আন্দোলনকারীর মৃত্যু হয়েছে। একবারও তার জন্য দুঃখপ্রকাশ খরেনি কেন্দ্রীয় সরকার। আমাদের এই আন্দোলন গোটা দেশে হবে। দেশকে বাঁচাতে আমাদের এই লড়াই।”

আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে উত্তরপ্রদেশে বিজেপিকে রুখতেই জোরদার প্রয়াস কৃষক নেতাদের। রবিবারের সভা থেকে ওঠা স্লোগান যা স্পষ্ট করেছে। বিজেপির বিরুদ্ধে একের পর এক তোপ দেগে যোগী-রাজকেই এবার কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলে দিয়েছেন কৃষক নেতারা। তিনটি কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে অনড় কৃষকরা। তবে এবার সেই আন্দোলন দিল্লি-লাগোয়া গোটা উত্তরপ্রদেশে ছড়িয়ে দিতে চান কৃষক নেতারা। গোবলয়ের এই রাজ্যে কেন্দ্রের শাসকদল বিরোধী এই আন্দোলন জোরদার হলে আদতে বিজেপির ক্ষেত্রে তা বড়সড় বিড়ম্বনার কারণ হতে পারে। বিশেষ করে উত্তরপ্রদেশে বিধানসভা নির্বাচনের আগে বিপুল সংখ্যায় কৃষকের জমায়েতে এই সমাবেশ নতুন করে মাথাব্যথার কারণ হয়ে উঠতেই পারে গেরুয়া শিবিরের কাছে।

Read full story in English

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Politics news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Eye on up polls farm leaders take on bjp