scorecardresearch

বড় খবর

পুরসভায় মনোনয়ন জমা ফিরহাদের, বিজেপি প্রার্থী মীনাদেবী

মেয়র পদে বিজেপি প্রার্থী মীনাদেবী পুরোহিত প্রসঙ্গে তাঁর মন্তব্য, “গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে সবাই প্রার্থী হতে পারেন। কিন্তু ১২২ জনের সমর্থন আমাদের সঙ্গে আছে। আমরা জিতব।”

মেয়রপদে তৃণমূল প্রার্থীর জয় নিশ্চিত হলেও বিনাপ্রতিন্দ্বীতায় হল না। খোঁচ থেকে গেলেন বিজেপি প্রার্থী। কলকাতা কর্পোরেশনের মেয়র পদে মনোনয়ন জমা দিলেন পুর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম (ববি)। বুধবার পুরসভার সচিব হরিহর মন্ডলের কাছে মনোনয়নপত্র পেশ করেন ফিরহাদ। সঙ্গে ছিলেন ডেপুটি মেয়র পদে তৃণমূলের প্রার্থী অতীন ঘোষ।

এদিন দুপুর দুটো নাগাদ পুরসভায় ঢোকেন ফিরহাদ। প্রথমে সেক্রেটারির ঘরে ঢুকে সেখান থেকে কনফারেন্স রুমে গিয়ে মনোনয়ন জমা দেন। মনোনয়ন জমা দিয়ে ফিরহাদ বলেন, “আমি টিএমসি মেয়র পদের প্রার্থী। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপস্থিতিতে ১২২ জন কাউন্সিলর এই পদে আমাকে মনোনয়ন করেছেন। সেই অনুযায়ী আজকে মনোনয়নপত্র দাখিল করলাম। ৩ ডিসেম্বর নির্বাচন হওয়ার কথা। নিশ্চিতভাবেই ওই দিন আমরা জয় পাব।”

আরও পড়ুন: এখনও শপথ নেননি, শুক্রবার বাড়িতেই বৈঠক ফিরহাদের

মেয়র পদে বিজেপি প্রার্থী মীনাদেবী পুরোহিত প্রসঙ্গে তাঁর মন্তব্য, “গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে সবাই প্রার্থী হতে পারেন। কিন্তু ১২২ জনের সমর্থন আমাদের সঙ্গে আছে। আমরা জিতব।”

পাশাপাশি তাঁকে মেয়র পদে অধিষ্ঠিত করতে যে পুরসভা আইন সংশোধনী বিল এনেছে রাজ্য সরকার, তার বিরুদ্ধে সিপিএম-এর মামলার প্রেক্ষিতে ফিরহাদের বক্তব্য, “সিপিএম কোর্টে থাকুক, সিপিএম বিরোধীতায় থাকুক। এর আগে অনেক মামলা করেছে। সেখানে ওদের মুখ পুড়েছে। আমরা মানুষের পাশে অাছি। মানুষ আমাদের সঙ্গে রয়েছেন। অাদালত নিয়ে আমরা চিন্তিত নই।”

পুরসভায় ঢুকে আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েন ভাবী মেয়র। তিনবারের কাউন্সিলর, মেয়র পারিষদ, বরো চেয়ারম্যান ছিলেন। এদিন তিনি বলেন, “মনোনয়ন জমা দিতে এসে খুবই ভালো লাগছে। পুরসভায় এসে নস্টালজিক হয়ে পড়েছি। এখানে অনেক পুরনো সহকর্মীরা রয়েছেন। বন্ধুদেরও দেখছি। পুরসভা বরাবরই আমার কাছে খুব প্রিয়।” এরপর তিনি পুরসভার চেয়ারপার্সন মালা রায়ের ঘরে যান।

এদিন পুরসভার আলো বিভাগের কর্মীরা পুরসভার রিলিফ ফান্ডে পাঁচ হাজার টাকার একটি চেক প্রদান করেন। মনোনয়ন জমা দেওয়ার আগে ভাবী মেয়র বলেছিলেন, ফুল বা উপহার না দিয়ে রিলিফ ফান্ডে টাকা দিতে। তাতে সাধারণ মানুষের উপকার হবে। সেই অনুযায়ী ওই টাকা চাঁদা করে তুলে দেন আলো বিভাগের কর্মীরা।

এদিকে কলকাতা পুরসভার সংশোধিত আইনকে চ্যালেঞ্জ করে মামলা দায়ের হল কলকাতা হাইকোর্টে। কলকাতা পুরসভার মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায় ইস্তফা দেওয়ার পর উত্তীর্ণ সভা ঘরে মুখ্যমন্ত্রী ঘোষণা করেন, পরবর্তী মেয়র ফিরহাদ হাকিম এবং ডেপুটি মেয়র অতীন ঘোষের নাম। বিধানসভা চলাকালীন কলকাতা পুরসভার ১৯৮০ সালের আইনে উল্লেখ রয়েছে শুধুমাত্র পৌরপিতা বা পৌরমাতাই মেয়র হতে পারবেন। সেই আইনকে সংশোধন করা হয় । কিন্তু ৮০ সালের আইনে এও বলা রয়েছে বহিরাগত কেউই মেয়র পদে বসতে পারবেন না । বিধানসভায় নতুন সংশোধনীতে সংযোজন হয় যে কোনও ব্যাক্তি মেয়র হতে পারেন তবে কলকাতা পুরসভার ১৪৪ টি ওয়ার্ডের মধ্যে বহিরাগত ব্যাক্তিকে গনতন্ত্রিক প্রক্রিয়ায় নির্বাচনে বিজয়ী হয়ে আসতে হবে । সেই সংশোধনী বিল বর্তমানে রাজ্যপাল অনুমোদন দিয়েছে।
কলকাতা পুরসভার ৭৫ নম্বর ওয়ার্ডের সিপিআইএমের পৌরমাতা বিলকিস বেগম বুধবার সকাল সাড়ে দশটায় সম্প্রতি বিধানসভায় পাশ হওয়া পুর আইনকে চ্যালেঞ্জ করে মামলা করার আবেদন জানান বিচারপতি দেবাংশু বসাকের এজলাসে । সেই আবেদন মঞ্জুর করেছে আদালত । চলতি সপ্তাহে শুনানির সম্ভাবনা রয়েছে ।

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Politics news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Firhad hakim files nomination mayor kolkata