বড় খবর


চিঠি ঘিরে ফিরহাদ-জিতেন্দ্র বাক সংঘাত তুঙ্গে, চরম অস্বস্তি জোড়া-ফুলে

উন্নয়ন ঘিরে রাজনীতি। আর তাতেই কেন্দ্রীয় প্রকল্প থেকে বঞ্চিত আসনাসোল পুরনিগম। প্রতিশ্রুতি ভঙ্গের অভিযোগ রাজ্যের বিরুদ্ধে। পুরমন্ত্রীকে দেওয়া অভিযোগপত্রে বিস্ফোরক আসানসোলের পুর প্রশাসক জিতেন্দ্র তিওয়ারি।

উন্নয়ন ঘিরে রাজনীতি। আর তাতেই কেন্দ্রীয় প্রকল্প থেকে বঞ্চিত আসনাসোল পুরনিগম। প্রতিশ্রুতি ভঙ্গের অভিযোগ রাজ্যের বিরুদ্ধে। পুরমন্ত্রীকে দেওয়া অভিযোগপত্রে বিস্ফোরক আসানসোলের পুর প্রশাসক জিতেন্দ্র তিওয়ারি। পাল্টা দলেরই বিধায়ক ও আসানসোলের বিদায়ী মেয়রকে ঝাঁঝাঁলো কটাক্ষ করেছেন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। আর তাতেই তৃণমূলের অন্দরে উত্তেজনা চরমে। একে অপরকে নিশানা করে দুই নেতার আক্রমণ, পাল্টা আক্রমণে অস্বস্তি কাঁটা আরও তীব্র হচ্ছে শাসক দলের।

কেন্দ্রের স্মার্ট সিটি প্রকল্পের টাকা পাওয়া থেকে বঞ্চিত আসানসোল পুরনিগম। এ জন্য রাজ্যের সিদ্ধান্তকেই কাঠগড়ায় তুলেছেন আসানসোলের পুর প্রশাসক জিতেন্দ্র তিওয়ারি। ফিরহাদ হাকিমকে লেখা চিঠিতে আসানসোলের পুর প্রশাসক জিতেন্দ্র তিওয়ারি জানিয়েছেন, আসানসোল কেন্দ্রীয় সরকারের স্মার্ট সিটি প্রকল্পের জন্য নির্বাচিত হয়েছিল। সেই দু’হাজার কোটি অর্থে বেশ কিছু উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু রাজনৈতিক কারণে কেন্দ্রীয় প্রকল্পের সেই অর্থ পাওয়ায় রাজ্যের অনুমোদন ছিল না। পরিবর্তে আসানসোল পুরনিগমকে ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল নগরোন্নয়ন দফতর। কিন্তু সেই প্রতিশ্রুতিও পালন করা হয়নি।

চিঠি প্রকাশ্যে আসার পর অবশ্য তা নিয়ে কিছু বলতে রাজি ছিলেন না জিতেন্দ্র তিওয়ারি। কীভাবে চিঠি সামনে এল তা নিয়েই প্রস্ন তোলেন তিনি।

যদিও চুপ থাকেননি পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। পুর প্রশাসকের চিঠি নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেন তিনি। জিতেন্দ্রকে কাঠগড়ায় তুলে তিনি বলেন, ‘আজ কেন সব জেনেও ও (জিতেন্দ্র তিওয়ারি) চিঠি দিল জানি না। আমার সঙ্গে ওর সম্পর্ক ভাল। ও একজন বিধায়কও। সরকারের অবস্থান ওর জানা আছে। এ বিষয়ে আগে কোনও দিন আমারকে কিছু জানায়নি। এই চিঠি দেওয়ারবিষয়টি অত্যন্ত খারাপ।’

আরও পড়ুন- রাজ্যের সিদ্ধান্তেই মেলেনি কেন্দ্রের স্মার্ট সিটির অর্থ, চিঠিতে ফিরহাদকে অভিযোগ আসানসোলের পুর প্রশাসকের

এরপরই সুর চড়িয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘মমতাদি বলে দিয়েছেন যাঁর যাওয়ার চলে যান। তবে আমি বিশ্বাস করি জিতেন্দ্র যাবেন না। বিজেপির বিভ্রান্তিকর প্রচারেই ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে। আলোচনাতেই সমস্যা মিটে যাবে।’

ফলে জিতেন্দ্র তিওয়ারির রাজনৈতিক অবস্থান ঘিরে জল্পনা শুরু হয়। আর তারপরই আসানসোলের পুর প্রশাসক বলেন, ‘কেই বিরোধী কিছু বললেই ওনারা বিজেপির লোক বলছেন। চিঠি দিলেই কী কেউ বিজেপি চলে যাচ্ছে। বিজেপি আমাকে ভুল বোঝাচ্ছে, আর উনি কি জাদুকর। এই চিঠি আমি প্রকাশ্যে আনিনি। দলেরই কিছু লোক এই চিঠি সবাইকে জানিয়েছে।’

এই ইস্যুতে তৃণমূলকে কটাক্ষ করেছে বিজেপি। আসানসোলের পুর প্রশাসকের চিঠি তুলে ধরে টুইটে রাজ্য সরকার ও তৃণমূলের উদ্দেশে শ্লেষ ছুঁড়ে দিয়েছেন বাংলার দায়িত্বপ্রাপ্ত বিজেপি নেতা অমিত মালব্য। রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেছেন, ‘ভূতের মুখে রাম নাম। ভোট এসে গিয়েছে। মানুষের মুখোমুখি হতে হবে। ফলে পিঠ বাঁচাতেই এইসব করা হচ্ছে।’

বেসুরো একাধিক তৃণমূল বিধায়ক। তার মাঝেই জিতেন্দ্রর পত্রবোমা ঘিরে জোর চর্চা জোড়া-ফুলের অন্দরে। কোমড় বেঁধে যখন বিজেপির বিরুদ্ধে লড়াইয়ের ডাক দিচ্ছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তখন বারে বারেই তীব্র হচ্ছে শাসক দলের কোন্দল।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Web Title: Firhad jitendra speech conflict on letter big trouble in tmc

Next Story
রাজ্যের সিদ্ধান্তেই মেলেনি কেন্দ্রের স্মার্ট সিটির অর্থ, চিঠিতে ফিরহাদকে অভিযোগ আসানসোলের পুর প্রশাসকের
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com