বড় খবর

ধর্ষণ-অপহরণ নিয়ে ধনকড়ের পরিসংখ্যান নস্যাৎ রাজ্যের, পাল্টা টুইটে হুঁশিয়ারি রাজ্যপালের

রাজ্যে অপহরণ ও ধর্ষণের পরিসংখ্যান নিয়ে টুইট, পাল্টা টুইটে ফের রাজভবন-নবান্ন সংঘাত নয়া মাত্রা পেল।

মমতা বন্দ্যোপাদ্যায়, জগদীপ ধনকড়

নারীদের বিরুদ্ধে অপরাধ সংক্রান্ত রাজ্য সরকারি সংখ্যাতত্ত্ব তুলে ধরেই মমতা সরকারকের বিরুদ্ধে টুইটে সুর চড়ালেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়। নারীদের বিরুদ্ধে শুধু আগাস্ট মাসে কত অপরাধ হয়েছে এদিন তারই একটি খতিয়ান দেন ধনকড়। নারী সুরক্ষার প্রশ্নে বাংলার অবস্থা যে ‘উদ্বেগজনক’ তাও এদিন স্পষ্ট করে দেন তিনি।

মঙ্গলবার টুইটে রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর লিখেছেন, ‘সরকারি রিপোর্ট অনুযায়ী ২২৩টি ধর্ষণ এবং ৬৩৯টি অপহরণ হয়েছে অগাস্ট মাসে। রাজ্যে নারীহিংসার ছবিটা খুবই উদ্বেগের। যা চিন্তা বাড়াচ্ছে। বিভিন্ন জায়গায় আগুন জ্বলার আগেই তাই তা নিয়ন্ত্রণে এনে শৃঙ্খলা ফেরানোর উচিত পশ্চিমবঙ্গ ও কলকতা পুলিশের।’

পশ্চিমবঙ্গের আইনশৃঙ্খলা নিয়ে দায়িত্বভার গ্রহণের শুরু থেকেই সরব রাজ্যপাল ধনকড়। এ দিনে রাজভবন-নবান্ন দ্বন্দ্বও স্বতঃসিদ্ধ। সাম্প্রতি মুর্শিদাবাদ থেকে জঙ্গি সন্দেহে গ্রেফতার হওয়া থেকে বিস্ফোরক উদ্ধার, বিরোধীদের দমনের চেষ্টা, আফফান ত্রাণ দুর্ণীতি ও লকডাউনে রেশনের চাল চুরিরর অভিযোগ নিয়ে মমতা সরকারের বিরুদ্ধে তোপ দেগেছেন রাজ্যের সাংবিধানিক প্রধান। টিটাগড়ের বিজেপি নেতা মণীশ শুক্লা খুনের ঘটনাতেও সোমবার রাতেই পুলিশ প্রশানকে কটাক্ষ করে নিরপেক্ষ তদন্ত ‘ধামাচাপা’র সন্দেহ প্রকাশ করেছেন রাজ্যপাল। দাবি তুলেছেন স্বাধীন সংস্থাকে দিয়ে তদন্তের। তার ২৪ ঘন্টা কাটতে না কাটতেই এবার নারী নিরাপত্তার প্রশ্নে রাজ্যের বিরুদ্ধে আক্রমণ শানালের ধনকড়।

তবে ধর্ষণ ও অপহরণের যে পরিসংখ্যান রাজ্যপাল দিয়েছেন তা নস্যাৎ করে রাজ্যের স্বরাষ্ট্র দফতর। টুইটে জানানো হয় সেই পরিসংখ্যান রাজ্য সরকারের নয়। টুইট বার্তায় বলা হয়, ‘রাজভবনের তরফে ধর্ষণ এবং অপহরণের যে পরিসংখ্যান দেওয়া হয়েছে, তা কোনও সরকারি রিপোর্ট, পরিসংখ্যান বা তথ্যের উপর ভিত্তি করে নয়। অভিযোগ ভিত্তিহীন, অমূলক, প্রকৃত তথ্য এবং পরিসংখ্যানের সঙ্গে সম্পূর্ণ বেমানান।

আরও পড়ুন- হাথরাসের ঘটনা ভয়াবহ! যোগী সরকারের কাছে জবাব তলব সুপ্রিম কোর্টের

স্বরাষ্ট্র দফতরের টুইটের কিছুক্ষণের মধ্যেই ফের টুইট করেন রাজ্যপাল ধনকড়। জানান তিনি হতবাক’। রাজ্য সরকারের ক্ষমা চাওয়া উচিত বলে দাবি করেন তিনি। টুইটে তিনি লেখেন, ‘চূড়ান্ত ভুল উপস্থাপনায় হতবাক। ক্ষমা চেয়ে প্রত্যাহার এবং সংশোধন করা আবশ্যিক। প্রতিটি ডিভিশন থেকে আমার কাছে পাঠানো সত্যিকারের রিপোর্ট থেকে ২০২০ সালের অগাস্টে ২২৩ টি ধর্ষণ এবং ৬৩৯ টি অপরহণের পরিসংখ্যান পাওয়া গিয়েছে। খুঁটিনাটি পরীক্ষার পর যাবতীয় পরিসংখ্যান তুলে ধরা হয়েছে।

হাথরাসে দলিত তরুণীর গণধর্ষণ ও খুনের বিরুদ্ধে মুখ খুলেছে তৃণমূল। জোড়া-ফুলের প্রতিনিধি দল যেমন হাথরাসে গিয়ে নির্যাতিতার পরিবারের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করেছে, তেমনই মহানগরের বুকে হেঁটেছেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রিমো। বিজপির বিরুদ্ধে দলিতদের শোষণের অভিযোগ করেছেন মমতা। রাজ্যের শাসক শিবির থেকে প্রশ্ন তোলা হয়েছে, হাথরাসকাণ্ড নিয়ে কেন মুখে কুলুপ এঁটেছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, নারী নিরাপত্তার প্রশ্নে এ দিন টুইটে পরিসংখ্যান দিয়ে বাংলায় ছবি স্পষ্ট করারচেষ্টা করেন রাজ্যপাল। কৌশলে দিয়েছেন শাসকের অভিযোগের জবাব।

কিন্তু, রাজ্যে অপহরণ ও ধর্ষণের পরিসংখ্যান নিয়ে টুইট, পাল্টা টুইটে ফের রাজভবন-নবান্ন সংঘাত নয়া মাত্রা পেল।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Web Title: Jagdeep dhankar attacked mamata govt on women sefty with list of rapes and kidnapping in bengal

Next Story
শবদেহ নিয়ে রাজপথে আন্দোলনে বিজেপি, প্রকট মুকুল-দিলীপ দূরত্ব!
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com