scorecardresearch

ঝাড়খণ্ডের ধৃত বিধায়কদের কীর্তিতে হতবাক ঘনিষ্ঠরাও, কিছুদিন আগেই আনসারি নিশানা করেছিলেন বিজেপিকে

সরকারি আইনজীবী ১৪ দিনের সিআইডি হেফাজতের আবেদন করেছিলেন। আদালত ১০ আগস্ট পর্যন্ত ১০ দিনের হেফাজতের আবেদন মঞ্জুর করেছে।

arrested_mla

বাংলায় ধৃত ঝাড়খণ্ডের কংগ্রেস বিধায়কদের মধ্যে, একজন উত্তরাধিকারী। একজন প্রথমবারের বিধায়ক। আর, একজন ‘সরল আদিবাসী নেতা’। যাঁদের বর্তমানে ভবানীভবনে নিয়ে এসে জিজ্ঞাসাবাদ করছে সিআইডি। ইতিমধ্যেই ঝাড়খণ্ডের আরোগোরা থানায় গোটা ঘটনায় অভিযোগ দায়ের করেছেন কংগ্রেস বিধায়ক জয়মঙ্গল সিং। সেই অভিযোগপত্র পাঠানো হয়েছে পাঁচলা থানায়। পাশাপাশি, গাড়িতে বিপুল পরিমাণ টাকা তাঁরা কোথা থেকে পেলেন, তার কোনও সদুত্তর দিতে পারেননি ঝাড়খণ্ডের ওই তিন বিধায়ক। যদিও ওই বিধায়করা যে অঞ্চলের বাসিন্দা, সেখানকার মানুষজন এত টাকা উদ্ধারের ঘটনায় তাজ্জব। এমনকী, ওই বিধায়কদের পরিবারের লোকজনও অভিযোগ করছেন যে তাঁদের ফাঁসানো হয়েছে।

তাঁরা-সহ ওই গাড়ি থেকে মোট পাঁচ জনকে গ্রেফতার করেছে পাঁচলা থানার পুলিশ। ওই তিন বিধায়ককে রবিবার কংগ্রেস সাসপেন্ড করার পর তাঁদের গ্রেফতার করা হয়। মামলার দায়িত্ব নেয় সিআইডি। ধৃত বিধায়করা-সহ পাঁচ জনকে তোলা হয় হাওড়া আদালতে। সরকারি আইনজীবী ১৪ দিনের সিআইডি হেফাজতের আবেদন করেছিলেন। আদালত ১০ আগস্ট পর্যন্ত ১০ দিনের হেফাজতের আবেদন মঞ্জুর করেছে। শনিবার ওই বিধায়কদের গাড়ি থেকেই মোট ৪৯ লক্ষ টাকা উদ্ধার হয়েছে।

অভিযুক্ত তিন বিধায়কের মধ্যে রাজেশ কাচ্চাপ খিজরি, নমন বিক্সল কোঙ্গেরি কোলেবিড়া আর ইরফান আনসারি জামতাড়ার বিধায়ক। কংগ্রেসের অভিযোগ, ওই বিধায়ককে গোয়াতে যেতে বলা হয়েছিল। তারপর কলকাতায় আসতে বলা হয়েছিল। তাঁরা গুয়াহাটিতে হিমন্ত বিশ্বশর্মার সঙ্গে দেখা করেছেন। জেএমএম-কংগ্রেস জোট সরকার ফেলতে ওই বিধায়কদের অগ্রিম টাকা দেওয়া হয়েছিল বলেই অভিযোগ কংগ্রেসের।

আরও পড়ুন- ঝাড়খণ্ডের তিন বিধায়কের গ্রেফতারিতে নাম জড়াল হিমন্ত বিশ্বশর্মার, FIR দায়ের কংগ্রেস বিধায়কের

যদিও অভিযোগ অস্বীকার করে হিমন্ত বিশ্বশর্মা জানিয়েছেন, কংগ্রেসের শীর্ষ থেকে শীর্ষস্তরের নেতারাও তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ রাখেন। এর সঙ্গে বিধায়ক কেনাবেচার কোনও সম্পর্ক নেই। তবে, বিশ্বশর্মার এই সব বক্তব্য মানতে নারাজ কংগ্রেস। এআইসিসির তরফে ঝাড়খণ্ডের দায়িত্বপ্রাপ্ত অবিনাশ পাণ্ডে অভিযোগ করেছেন, এটাই প্রথম নয়। গত দু’বছর ধরেই ঝাড়খণ্ডের জোট সরকার ফেলার চক্রান্ত চালাচ্ছে বিজেপি।

আশ্চর্যের বিষয় হল, চলতি মাসের গোড়ার দিকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর দেওঘর সফরের একদিন আগে, কংগ্রেসের জামতারার বিধায়ক ইরফান আনসারি বিজেপিকে তীব্রভাবে আক্রমণ করেছিলেন। তিনি ঝাড়খণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সোরেনকে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট নিশানা করায় বিজেপির বিরুদ্ধে সরব হয়েছিলেন। আনসারির অভিযোগ ছিল, কেন্দ্রীয় এজেন্সিকে ব্যবহার করেই বিজেপি বিভিন্ন রাজ্যে সরকার ফেলার চক্রান্তে লিপ্ত হয়েছে। আর নিজেরা ক্ষমতা দখল করছে। সেই অভিযোগের কিছুদিন পর আনসারি নিজেই সরকার ফেলার চক্রান্তের অভিযোগে সিআইডি হেফাজতে গেলেন।

Read full story in English

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Politics news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Jharkhand congress mla held in bengal