কাশ্মীরের থেকে নিজেকে বিচ্ছিন্ন করে ফেলেছে রাষ্ট্র, দুয়ের মাঝে সেতু গড়াই আমার কাজ: রাজ্যপাল সত্যপাল মালিক

পিডিপি-বিজেপি জোট ভেঙে যাওয়ার পর দু'মাস কাশ্মীর উপত্যকায় রাজ্যপালের শাসন চলেছে। তার পরই সেখানকার রাজ্যপাল হিসেবে নিযুক্ত হন সত্যপাল মালিক।

By: Srinagar  Updated: October 4, 2018, 04:51:53 PM

সন্ত্রাসবাদী হানার হুমকি, পিডিপি-র বয়কটের মাঝেই পঞ্চায়েত নির্বাচনের জন্য তৈরি হচ্ছে জম্মু কাশ্মীর। আগামী ৮ অক্টোবর শুরু হচ্ছে নির্বাচন। এর মাঝে কাশ্মীর সংক্রান্ত যাবতীয় বিতর্ক উস্কে দিয়ে বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন কাশ্মীরের রাজ্যপাল সত্যপাল মালিক। বললেন, “ভারত ভুল করেছে। ভুলের মাশুল হিসেবে কাশ্মীর উপত্যকার মানুষের থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। এখন এই পরিস্থিতিতে আমার কাজ জম্মু কাশ্মীরে একটা বিশ্বাস এবং ভরসার আবহাওয়া তৈরি করা যাতে কেন্দ্র কাশ্মীরের সব মূলধারার রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে এমন কী হুরিয়তের সঙ্গেও খোলামেলা আলোচনায় বসতে পারে”।

পিডিপি-বিজেপি জোট ভেঙে যাওয়ার পর দু’মাস কাশ্মীর উপত্যকায় রাজ্যপালের শাসন চলেছে। তার পরই সেখানকার রাজ্যপাল হিসেবে নিযুক্ত হন সত্যপাল মালিক। ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের সাংবাদিকদের রাজ্যপাল মালিক বললেন, “কাশ্মীরকে কেউই একতরফা অধিকার করে রাখেনি। যে যাই বলুক, এটা সত্যি, যে আমরাই পরিস্থিতি ঠিক মতো সামলাতে পারিনি। তবে আমরা জোর করে কাশ্মীরকে আটকে রাখিনি, কাশ্মীর স্বেচ্ছায় ভারতে এসেছে।”

আরও পড়ুন, জম্মু-কাশ্মীর পুরভোট: প্রার্থীদের নামই গোপন রাখা হচ্ছে নিরাপত্তার স্বার্থে

ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ এবং ৩৫ এ ধারায় কাশ্মীর নিয়ে যে শর্তগুলো আছে, তার কোনো পরিবর্তন হতে পারে কি না জিজ্ঞেস করা হলে সত্যপাল মালিকের জবাব, “আমরা কোনো একটা সময় কথা রাখতে পারিনি। কিন্তু সংবিধানের ৩৭০ এবং ৩৫ এ ধারা নিয়ে দেশের বিচার ব্যবস্থার ওপর আমার সম্পূর্ণ আস্থা রয়েছে। যদিও আমি জনসাধারণের নির্বাচিত প্রতিনিধি নই, তবু আমার মনে হয়, কাশ্মীরে জনসাধারণ দ্বারা নির্বাচিত সরকার না আসা পর্যন্ত ৩৫ এ ধারা মুলতুবি রাখাই উচিত। কাশ্মীরের রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে আলোচনা পর্ব শুরু করার আমি কেউ নই। কিন্তু কেউ যদি আমার কাছে আসতে চায়, আমার দরজা খোলা আছে”।

“শুধু কাশ্মীর উপত্যকার রাজনৈতিক দল নয়, কোনো সন্ত্রাসবাদীও যদি একটা মানুষকে মনোনীত করে বলে, তাদের হয়ে সেই মানুষটা কথা বলবে সে ক্ষেত্রে তাও শোনা হবে। শুধু বন্দুক নামিয়ে কথা বলতে হবে। হত্যার মাঝে কোনো কথা, কোনো আলাপচারিতা হয় না”। পিডিপি-র ভোট বয়কট নিয়ে রাজ্যপাল মালিক জানালেন, “মাত্র ১৭ শতাংশ ভোটারের ভোট পড়বে না। তাও আমি ওদের সঙ্গে কথা বলব, ওরা যদি ভোট লড়তে না চায়, লড়বে না, কিন্তু কাশ্মীরের  মানুষকে যেন ভোট দিতে নিরুৎসাহিত না করে। কাশ্মীরে কেন্দ্রের শাসন চলবে না, এ কথা হলফ করে বলতে পারি। নির্বাচনে যে দল জিতবে ক্ষমতায় আসবে তারাই”।

“মোদী যতক্ষণ ক্ষমতায় আছেন, সুষ্ঠুভাবেই নির্বাচন হবে। আর আমরা সন্ত্রাসবাদীদের শেষ করতে চাই না, একজন সন্ত্রাসবাদীকে মারলে আরও পাঁচজন সন্ত্রাসবাদী আসবে, আমরা সন্ত্রাসবাদকে শেষ করতে চাই। আমরা শুধু এই বার্তা দিতে চাই, শেষ ১৫/ ২০ বছর ধরে সন্ত্রাসবাদীরা যে স্বপ্ন দেখছে, সেটা এখানে সফল হবে না”, জানালেন সত্যপাল মালিক।

Get all the Latest Bengali News and West Bengal News at Indian Express Bangla. You can also catch all the Politics News in Bangla by following us on Twitter and Facebook

Web Title:

Jk governor satya pal malik local body elections hurriyat pakistan

The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com.
Advertisement

ট্রেন্ডিং