বড় খবর

‘রাবণ-দানব মিলে দেশ চালাচ্ছে’, মোদী-শাহকে নিশানা মমতার

“খেলা একটাই হবে একুশের নির্বাচনে। একদিকে থাকবে সিপিএম-কংগ্রেস-বিজেপি। অন্যদিকে তৃণমূল। আমি থাকবো গোলকিপার। একটাও গোল বারপোস্টে ঢুকবে না। সব ওপর দিয়ে চলে যাবে।”

হুগলির সাহাগঞ্জে সভা থেকে কয়লা পাচারকাণ্ডে মুখ খুললেন তৃণমূল সুপ্রিমো। কড়া আক্রমণ শানালেন মোদী-শাহকে। তাঁদের ‘হোঁদল কুতকুত’-‘কিম্ভূতকিমাকার’ বলে মন্তব্য করেন মমতা। গত সোমবার এই মাঠেই সভা করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী মোদী। সিন্ডিকেট রাজ থেকে বাংলার অনুন্নয়ন নিয়ে তৃণমূলকে নিশানা করে তোপ দেগেছিলেন তিনি। এদিনের সভায় সেই ইস্যুতেও সরব হন মুখ্যমন্ত্রী।

সভার শুরুতেই এদিন বাংলা চলচ্চিত্রের এক ঝাঁক তারকা তৃণমূলে যোগ দান করেন। এই তালিকায় রয়েছেন, কাঞ্চন মল্লিক, সায়নী ঘোষ, জুন মালিয়া, সুদেষ্ণা রায়, মানালী দে। এছাড়াও জোড়া-ফুলে যোগ দেন ক্রিকেটার মনোজ তিওয়ারি ও শিক্ষাবিদ অনন্যা চট্টোপাধ্যায়। প্রত্যেকেই আসন্ন ভোটে ‘দিদি’র পাশে দাঁড়ানোর প্রতিশ্রুতি দেন।

কী বললেন মমতা?

  • “খেলা একটাই হবে একুশের নির্বাচনে। একদিকে থাকবে সিপিএম-কংগ্রেস-বিজেপি। অন্যদিকে তৃণমূল। আমি থাকবো গোলকিপার। একটাও গোল বারপোস্টে ঢুকবে না। সব ওপর দিয়ে চলে যাবে।”
  • “প্রধানমন্ত্রী এই মাঠেই সভা করেছে গত পরশু। উনি চালাকি করেন। ট্রান্সপারেন্ট কাঁচ লাগিয়ে বলেন সব। একলাইন বাংলা বলে বাঙালির মন জয় করা যায় না। ভালোবাসতে হয়। আমি তো না দেখেই সব বলি।”
  • “বিজেপি দলের মা-বোনেরা সব সুরক্ষিত? উত্তরপ্রদেশ-গুজরাট, মধ্যপ্রদেশে সব অরক্ষিত, আর বলছে বাংলার কথা।”
  • “ভাবা যায় দেশের প্রধানমন্ত্রী মিথ্যা কথা বলছেন।”
  • “এদেশে এখন দুটো নেতা, একটা হোঁদল কুতকুত। আরেকটা কিম্ভূতকিমাকার। আমি এর ইংরেজি, হিন্দি জানি না।”
  • “আমার উপর বিজেপির খুব রাগ। ওরা আমাকে মারতে-খুন করতে পারে। ওরা সব পারে।”
  • “ঘরে ঢুকে বাইশ-তেইশ বছরের এক বউ, ঘরের কন্যাকে কয়লা চোর বলছে। আর কয়লা চোরেদের নিজেরা কোলে করে ঘুরছেন।”
  • “আমার বাড়ির মা-বোনেরা কয়লা চোর? তোমার সারা গায়ে ময়লা। নোটবন্দির ময়লা। সেই টাকা কোথায় গেল নরেন্দ্র মোদি জবাব দাও। রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা বিক্করি হচ্ছে কেন, জবাব দাও”
  • “এই সায়নী, এখন এখানে এসেছে। একটা টুইট করেছিল। তাই নিয়ে কত অপমানই না করেছে তাঁকে। একটা মেয়ের স্বাধীনতা থাকবে না? দেবলীনার টুইট নিয়ে ওঁকেও কী ভাবে অপমান করেছে? আজকে বিজেপি-তে মেয়েরা সুরক্ষিত নয়।”
  • “২০১৪ সালে ডানলপ অধিগ্রহণ করতে চেয়ে চিঠি দিয়েছিলাম। তখন করতে দিল না। এটা কেন এখনও বন্ধ। সভার আগে প্রধানমন্ত্রীর জবাব দেওয়া উচিত ছিল।”
  • “ডানলপের মালিক পবন রুইয়ার বিরুদ্ধে এত কেস। তা সত্ত্বেও তাঁর শরৎ বোস রোডের বাড়িতে কেন বিজেপি নেতারা থাকেন?”
  • “তৃণমূলকে কথায় কথায় তোলাবাজ বলেন উনি, তাহলে বিজেপি কী? সবচেয়ে বড় দাঙ্গাবাজ-ধান্দাবাজের দল।”
  • “মোদী মিথ্যা বলছেন। দরিদ্র দূরীকরণে বাংলা এক নম্বর। একশো দিনের কাজ-দক্ষতা বাডা়নোর কাজে বাংলা এক নম্বর। দেড়-দু কোটি মানুষকে বাংলা চাকরি দিয়েছে।”
  • “গরিব লোক পাঁচ-দশ টাকা খেলে হয় কাট মানি। আপনারা খেলে হয় ব়্যাট মানি। যারা দেশ বেচে দেয় তাদের কী বলে?”
  • “তৃণমূলকে আদি সপ্তগ্রামে পুঁতে দিতে দিল্লিতে মাথা তুলে দাঁড়াবে। সুস্থ বাঘের চেয়ে আহত বাধ বেশি ভয়ঙ্কর। আমি হিংস্র বাঘ নই, কিন্তু কুঁদো বাঘও নই।”
  • “এবার খেলাতো হবেই। ঠিক হয়ে যাবে বিজেপি এদেশে থাকবে কিনা। একজন রাবণ ও দানব মিলে দেশ চালাচ্ছে।”

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Get the latest Bengali news and Politics news here. You can also read all the Politics news by following us on Twitter, Facebook and Telegram.

Web Title: Mamata banerjee meeting at hooghly shahganj289446

Next Story
প্রাক্তন মন্ত্রীর নিরাপত্তা প্রত্যাহার রাজ্যের, ‘কারণ জানা নেই’- দাবি কৃষ্ণেন্দুনারায়ণের
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com