বড় খবর

‘আর ফেরার চেষ্টা করবে না-নেব না’, ‘দলবদলু’দের কড়া বার্তা মমতার

”আমি নেতাজির অনুষ্ঠানে গেলাম। এত বড় সাহস, ধর্মান্ধ আমায় টিজ করছে প্রধানমন্ত্রীর সামনে। আমায় ওরা চেনে না। আমায় বন্দুক দেখালে আমি বন্দুকের সিন্দুক দেখাবো।”

দুয়ারে ভোট। তার আগে হুগলির পুরশুড়ায় জনসভা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নিশানা করলেন বিজেপিকে। কেন ভোটের আগে তৃণমূলের অনেকেই দল বদল করছেন তার কারণ ব্যাখ্যা করে কটাক্ষ ছুড়ে দিলেন ‘দলবদলু’দের উদ্দেশ্যে।  রাজ্য সরকারি বিভিন্ন সামাজিক উন্নয়ন প্রকল্পের সাফল্যের কথা তুলে ধরছেন তিনি। হুগলির সবকটা আসনেই তৃণমূল প্রার্থীদের জেতানোর জন্য আর্জি জানান তৃণমূল নেত্রী।

ভাষণে কী বলছেন মুখ্যমন্ত্রী?

* “বুথ কর্মীরাই দলের সম্পদ। তাঁরাই ভোট করে, ঝড়ে-জলে ঘুরে বেড়ায়। আজকের সভা বুথ কর্মীদের জন্য নিবেদন করলাম।”

* “কর্মীরাই পরিশ্রম করে নেতা হয়। বিবেকানন্দ-নেতাজি বলে গিয়েছেন কেউ গাছ থেকে পড়ে নেতা হয় না।”

* “বন্যা হলে আগে আমি ছুঁটে আসি, লোয়ার দামোদর রিভার ইরিগেশন প্রজেক্ট হচ্ছে, আগামিদিনে আর বন্যা হবে না।”

* “তারকেশ্বরে রেলের কানেক্টিং লাইন ছিল না, কেউ ভাবেনি। করা হয়েছে। উত্তরবঙ্গে যাওয়ার রাস্তা তৈরি হচ্ছে।”

* “আগে কাস্ট সার্টিফিকেট পেতে সময় লাগত, দুয়ারে সরকারে ১০ লক্ষ কাস্ট সার্টিফিকেট দেওয়া হয়েছে।”

* “জুন পর্যন্ত রেশন ফ্রিতে পাবেন, আগামিদিনেও ফ্রি চালু রাখব। বিজেপির মতো নয়, বিজেপি ভোঁ ভাঁ। আমার ছিলাম, আমারই থাকবো। হরেকৃষ্ণ হরে রাম , বিদায় যাও বিজেপি বাম। হরে কৃষ্ণ হরে হরে, তৃণমূল ঘরে ঘরে।”

* “বিজেপি ওয়াশিং মেশিন। যারা অনেক টাকা করেছে তারা টাকা রাখতে বিজেপিতে যাচ্ছে। যেতে চান তাড়াতাড়ি যান। তৃণমূল আপনাদের চায় না, বাংলা আপনাদের চায় না। তৃণমূলের টিকিট পাবে না জেনেই ওদের দলবদলের এত তাড়া। যারা যাচ্ছ যাও, তৃণমূলে আর ফেরা যাবে না। কাদের নিতে হয় আমি জানি। কাজ করলে টিকিট, নয়তো নয়।”

* “আপনারা কি ঘরে ডেকে বেরিয়ে যেতে বলবেন। আমি নেতাজির অনুষ্ঠানে গেলাম। এত বড় সাহস, ধর্মান্ধ আমায় টিজ করছে প্রধানমন্ত্রীর সামনে। আমায় ওরা চেনে না। আমায় বন্দুক দেখালে আমি বন্দুকের সিন্দুক দেখাবো। তুমি নেতাজি নেতাজি করলে আমি স্যালুট করতাম। কিন্তু যারা এগুলে করেছে তারা বাংলা, নেতাজিকে অপমান করেছে। তার আগে বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভেঙেছ। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, দলিতদের অপমান করেছে।”

* “বিজেপি সিপিএমের সমর্থনে বাংলায় এসেছে।”

* “আগেরবার একটা আসন নিয়ে গেছে, এবার তার প্রতিবাদে প্রত্যেকটা সিট তৃণমূলকে দিন। টাকা দিলে টাকা নিয়ে নিন, ভোট বাক্সে উলটে দিন। ব্যারাকপুরে একবার জিতেছে, আগুন লাগানোর চেষ্টা করছে, বর্ধমানে আগুন লাগানোর চেষ্টা করছে। বাইরের গুন্ডা ঢুকতে দেবা না।”

* “আমি আপনাদের পাহারদার, আমি একজন কর্মী হিসেবে থাকতে ভালবাসি। আমি জনগণের সেবক। বিজেপি দাঙ্গাবাজ, ভুয়ো খবর রটায়। ফেক ভিডিও বানায়, ফেক হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ বানায়। ওদের বিশ্বাস করবেন না। আমি জেলে থাকতে রাজি, বিজেপির ঘরে থাকতে রাজি নয়। বিজেপির কাছে মাথা নত করব না, তার চেয়ে নিজের গলা নিজে কেটে দেব।”

* “দেবলীনা, সায়নীকে বলেছে বাইরে গেলে ধর্ষণ করে দেবে, করে দেখ, তারপর বুঝবি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কী জিনিষ। বিজেপি বাড়াবাড়ি করলে মা বোনেরা হাতা খুন্তি নিয়ে ভাল করে রান্না করে দেবেন তো?”

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Web Title: Mamata banerjee porsura hooghly meeting updates

Next Story
নেতাজি জয়ন্তীর ‘সরকারি’ অনুষ্ঠানে কার্ড বিলি বিজেপির, পরিকল্পিত চক্রান্ত?
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com