scorecardresearch

বড় খবর

ছবি থেকে টাকা নিয়েছি, প্রমাণ করুন: মোদী-শাহকে চ্যালেঞ্জ মমতার

“দুর্গাপুজো উদ্যোক্তাদের আয়কর নোটিস পাঠাচ্ছেন ওঁরা। মহারাষ্ট্রে গণেশ পুজোয় কেন আপনারা নোটিস পাঠাচ্ছেন না? সেই ক্ষমতা রয়েছে?”

ছবি থেকে টাকা নিয়েছি, প্রমাণ করুন: মোদী-শাহকে চ্যালেঞ্জ মমতার
মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফাইল ছবি- ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস।

ছবি বিক্রি বিতর্কে মোদী-শাহদের চ্যালেঞ্জ করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। “মোদী বাবু, আপনাকে চ্যালেঞ্জ করছি, আমি ছবি থেকে টাকা নিয়েছি, এটা প্রমাণ করুন আগে। প্রমাণ করে দেখান, যে ছবি থেকে এক পয়সাও আমার অ্যাকাউন্টে এসেছে,” এ সুরেই এদিন সরব হলেন তৃণমূল সুপ্রিমো।

এ প্রসঙ্গে হুঁশিয়ারির সুরে মমতা বলেছেন, “অসভ্যের মতো কথা বলছেন, ন্যূনতম সৌজন্যটুকু জানেন না ওঁরা। কাল নোটিস পাঠিয়েছি, প্রয়োজনে মানহানির মামলা করব।” ছবি বিক্রির নামে কোটি কোটি টাকা নিয়েছেন মমতা, মঙ্গলবার কাঁথিতে বিজেপির জনসভা থেকে এমন অভিযোগই তোলেন দলের সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ।

আরও পড়ুন, অমিত শাহর সভা ঘিরে উত্তপ্ত কাঁথি, মমতাকে ফোন উদ্বিগ্ন রাজনাথের

অমিত শাহের চাঞ্চল্যকর অভিযোগ প্রসঙ্গে এদিন বীরভূমের রামপুরহাটের সভা থেকে সুর চড়ান মমতা। দুর্গাপুজো নিয়ে অমিত শাহের মন্তব্যের প্রেক্ষিতে এদিন কটাক্ষ করে মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন, “দিল্লিতে কয়েকজন অর্ধশিক্ষিত নেতা রয়েছেন, যাঁরা বাংলা সম্পর্কে কুৎসা রটাচ্ছেন। ওঁরা বলছেন, আমরা নাকি কেন্দ্রের প্রকল্পের নকল করছি। ওঁরা বলছেন, এখানে দুর্গাপুজো, সরস্বতী পুজো হয় না। গোটা রাজ্য জুড়ে হাজার হাজার দুর্গাপুজো হয়, সব স্কুলে সরস্বতী পুজো হয়। কে সাহস দিয়েছে ওঁদের বাংলা সম্পর্কে মিথ্যে কথা বলার? আমি চ্যালেঞ্জ করছি ওঁদের, প্রমাণ করে দেখান। যদি ওঁরা প্রমাণ করতে পারেন, তাহলে রাজনীতি ছেড়ে দেব।”

মোদী-শাহকে নিশানা করে মমতা বলেন, “আমার হাতেও সিআইডি আছে, রাজ্য সরকারের হাতেও ইকোনমিক অফেন্সে বিভাগ রয়েছে, এসটিএফ রয়েছে, আরও অনেক এজেন্সি আছে। ভাববেন না সব মুখ বুজে সহ্য করব। শিশু পাচার মামলায় সকলে বাইরে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। গ্যাস কেলঙ্কারিতে আপনার নেতারা জড়িত আছেন নাকি নেই? নারী নির্যাতনেরও অভিযোগ রয়েছে। আপনাদের আয়ু আর মাত্র একমাস।”

আরও পড়ুন, দেশ লড়ুক মোদীকে জেতাতে, বাংলায় বিজেপি-র লক্ষ্য অন্য: অমিত শাহ

অন্যদিকে, শহরের দুর্গাপুজো কমিটিগুলিকে আয়কর দফতরের নোটিস পাঠানো প্রসঙ্গে এদিন মমতা ফের বলেন, “দুর্গাপুজো উদ্যোক্তাদের আয়কর নোটিস পাঠাচ্ছেন ওঁরা। মহারাষ্ট্রে গণেশ পুজোয় কেন আপনারা নোটিস পাঠাচ্ছেন না? সেই ক্ষমতা রয়েছে? ভুয়ো তথ্য পেশ করে বাংলার ভাবমূর্তি নষ্ট করছেন আপনারা। আপনারা রাজ্যের মানুষকে অসম্মান করছেন।”

মমতা এদিন আরও বলেন, “ওঁরা বলছেন, আমরা নাকি ওঁদের প্রকল্প নকল করছি। আমাদের কন্যাশ্রী প্রকল্পের সূচনা হয়েছিল ২০১৩ সালে। ওঁদের ‘বেটি বাঁচাও, বেটি পড়াও’ প্রকল্পের সূচনা হয়েছে ২০১৫ সালে। ওঁদের ‘স্বচ্ছ ভারত’ প্রকল্পের আগেই আমাদের ‘নির্মল বাংলা’ প্রকল্পের সূচনা হয়েছে। কৃষকদের বীমার জন্য আমরা টাকা দিই। ওঁরা শুধু মিথ্যে কথা বলছেন। ওঁরা দাঙ্গা লাগানো ছাড়া আর কিছু জানেন না।”

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Politics news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Mamata banerjee west bengal cm pm modi amit shah paintings