বড় খবর

‘পুলিশ আক্রামণ করলে মিষ্টি খাওয়াব না’, নবান্ন অভিযান নিয়ে হুঁশিয়ারি সায়ন্তনের

কর্মীরা বাধা পেলে প্রতি আক্রমণের ‘ইন্ধন’ সায়ন্তনের কথাতেই স্পষ্ট।

রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু, ফাইল ছবি

‘পুলিশ আক্রামণ করলে আমরা তো আর মিষ্টি খাওয়াব না।’ এই মন্তব্যের মাধ্যমেই বৃহস্পতিবারের নবান্ন অভিযানের সুর বেঁধে দিলেন রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু।

রাজ্যে গণতন্ত্র ফেরানো, বেকারদের কর্মসংস্থান সহ সাত দফা দাবিতে আদামিকাল নবান্ন অভিযান করবে বিজেপির যুব মোর্চা। সেই অভিযানের রূপ কেমন হতে পারে? তার জবাবেই সায়ন্তন বসু বলেছেন, ‘বিজেপি গণতান্ত্রিক শিষ্টাচার ভাঙতে চায় না। কিন্তু, তা একতরফা ভাবে মানাও সম্ভব নয়। পুলিশের আচরণের উপরই নির্ভর করবে আমাদের আচরণ। পুলিশ গুলি করলে আমরা তো মিষ্টি খাওয়াব না।’

গেরিলা কায়দায় নবান্ন অভিযানের মধ্যে দিয়েই শক্তি পরীক্ষায় নামছে বিজেপি। আর তা সফল করতে মরিয়া পদ্ম বাহিনী। তাই বৃহস্পতিবারের অভিযানকে কেন্দ্র করে পরিস্থিতি উত্তপ্ত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। সায়ন্তনের হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, ‘হাজার হাজার যুবক হাঁটবেন। তাঁরা সকলে গাঁধীজি না-ও হতে পারেন। সুভাষচন্দ্র বসুকেও স্মরণ করতেই পারেন তাঁরা।’ কর্মীরা বাধা পেলে প্রতি আক্রমণের ‘ইন্ধন’ সায়ন্তনের কথাতেই স্পষ্ট।

প্রস্তুতি সারা। কোন পথে, কী কায়দায় মিছিল হবে, পুলিশকে বোকা বানিয়ে কীভাবে নবান্ন অভিযান সম্ভব তা পরিকল্পনা করে ফেলেছে বিজেপি। ঠিক হয়েছে ৪টি বড় মিছিল থাকবে ওই দিন। এছাড়া থাকবে ছোট ছোট বেশ কয়েকটি মিছিল। বিজেপির রাজ্য দফতর, হেস্টিংস কার্যালয়, হাওড়া ময়দান এবং সাঁতরাগাছি থেকে চারটি মিছিল নবান্নের অভিমুখে যাবে। দলের রাজ্য দফতর থেকে মিছিলের নেতৃত্বে থাকবেন রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। হেস্টিংসের মিছিলের দায়িত্বে থাকবেন রাজ্য বিজেপির কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয় ও দলের সর্বভারতীয় সহ সভাপতি মুকুল রায়। হাওড়া ময়দান থেকে মিছিলের আগ্রভাগে থাকবেন যুব মোর্চার সর্বভারতীয় সভাপতি তেজস্বী সূর্য ও রাজ্য সভাপতি সৌমিত্র খান এবং সাঁতরাগাছির মিছিলে দলের রাজ্য সম্পাদক সায়ন্তন বসু থাকবেন। পরিস্থিতি দেখে অবশ্য পরিকল্পনা বদলাতেও পারে পদ্ম শিবির।

সাংসদ ও বিজেপির রাজ্য যুব মোর্চার সভাপতি সৌমিত্র খাঁ নবান্ন অভিয়ানকে চ্যালেঞ্জ হিসাবেই গ্রহণ করেছেন। তিনি বলেছেন, ‘কোনও কিছু করেই নবান্ন অভিযান আটকাতে পারবে না পুলিশ।’ কয়েক লক্ষ বিজেপি কর্মী, সমর্থক আগামিকাল অভিযানে থাকবেন বলেই জানিয়েছেন সৌমিত্র।

মনে করা হচ্ছে, ছোট-বড় মিছিল, উত্তেজনা সৃষ্টি করে পুলিশ প্রশাসনকে ব্যাতিব্যস্ত রাখাবে বিজেপির। নেতৃত্বের ‘ইন্ধনে’ ছড়িয়ে দেওয়া হতে পারে উত্তেজনা। এর ফাঁকেই নবান্ন পর্যন্ত পৌঁছানোর ছক রয়েছে বিজেপির।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Web Title: Nabanna abhijan bjp sayantan basu threatens

Next Story
“বিশেষ পরিবারের কালীঘাটের ঝুপড়ি থেকে নেতা চলবে না,” কটাক্ষ দিলীপেরdilip-abhishek cover
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com