scorecardresearch

বড় খবর

‘লাভ জিহাদ’ মানতে অ্যালার্জি সিপিএমের, অভিযোগ তোলায় প্রাক্তন বিধায়ককে প্রকাশ্যে তিরস্কার

কোঝিকোড়ের জেলা সম্পাদক থমাসের নিন্দা করেন। তাঁকে সতর্ক করে দেন।

THOMAS
জর্জ এম থমাস।

দীর্ঘদিন ধরেই বিভিন্ন মহলের অভিযোগ, মুখে শ্রমিক-কৃষকের কথা যতই চলুক, দলের মূল ভোটব্যাংক মুসলিমরাই। তাই ‘লাভ জিহাদ’ শব্দ শুনতে নারাজ সিপিএম। কেরলে দলের প্রাক্তন বিধায়ক খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের এম থমাস সেই ‘লাভ জিহাদ’-এরই অভিযোগ তুলেছেন। কেরলের খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের একাংশের অভিযোগ, তাই থমাসকেও রেয়াত করল না দল। প্রকাশ্যে তাঁকে তিরস্কার করা হল। কেরলের কোঝিকোড় জেলা সিপিএমের একমাত্র খ্রিস্টান মুখ থমাস। দলের জেলা কমিটিরও সদস্য।

সম্প্রতি দলেরই যুবকর্মী এক খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের মেয়েকে পালিয়ে বিয়ে করেছেন এক মুসলিম যুবনেতা। সেই ঘটনায় ক্ষুব্ধ কেরলের কোঝিকোড়ের খ্রিস্টান সম্প্রদায়। তাঁরা থানায় পর্যন্ত অভিযোগ করেছেন। স্বয়ং যাজক পর্যন্ত থানায় ছুটে গিয়েছেন অভিযোগকারীদের সঙ্গে। খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের প্রতিনিধি থমাস এই পরিস্থিতিতে নিজের সম্প্রদায়ের পাশে না-দাঁড়িয়ে পারেননি। অভিযোগকারী ওই মহিলা যুবকর্মীর পরিবারের পাশে দাঁড়িয়ে ‘লাভ জিহাদ’-এর অভিযোগে থমাসও সরব হয়েছিলেন। তার পরই মুসলিম ভোটব্যাংক ধসে যাওয়ার ভয়ে শুরু হয়ে যায় সিপিএম নেতৃত্বের তড়িঘড়ি আসরে নামার পালা।

কোঝিকোড়ের জেলা সম্পাদক থমাসের নিন্দা করেন। তাঁকে সতর্ক করে দেন। এরপর বাকি ছিল আরও উচ্চ নেতৃত্বের বকাবকি। থমাসের অবস্থান যে দল ভালোভাবে নিচ্ছে না, তা স্পষ্ট বুঝিয়ে দেওয়ার পালা। এবার, সেই কাজটাই করলেন সিপিএমের উচ্চস্তরের নেতৃত্ব। প্রকাশ্যে থমাসের নিন্দা বা তাঁকে তিরস্কার করা হল। সাধারণত, দল থেকে বহিষ্কারের আগে সিপিএমের শৃঙ্খলারক্ষা কমিটি প্রকাশ্যে এভাবে নিন্দা বা তিরস্কার করে থাকে। তবে, থমাসের বহিষ্কার নিয়ে এখনও কোনও সিদ্ধান্ত নিতে পারেনি কেরল সিপিএম। কারণ, থমাস শুধু জেলা সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্যই নন। কোঝিকোড়ের খ্রিস্টান মুখ। তাঁর বিরুদ্ধে বর্তমান পরিস্থিতিতে ব্যবস্থা নিলে আবার খ্রিস্টান সম্প্রদায় ক্ষুব্ধ হবে। যার প্রভাব পড়তে পারে ভোটব্যাংকে। সেই কারণেই থমাস পার পেয়ে গেলেন বলে মনে করছেন কোঝিকোড়ের বিরোধী রাজনৈতিক নেতাদের একাংশ।

বিভিন্ন মহলের দাবি, সেই কারণেই আপাতত থমাসকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। তবে, তাঁকে দিয়ে ক্ষমাপ্রার্থনা করিয়ে চিঠিও লিখিয়ে নিয়েছেন সিপিএম নেতৃত্ব। কোঝিকোড় সিপিএমের জেলা সম্পাদক পি মোহনন বুধবার জেলা কমিটির বৈঠকের পর জানিয়েছেন, থমাস দলের লাইনের বিরুদ্ধে মন্তব্য করেছেন। তবে, তিনি নিজের ভুল বুঝতে পেরেছেন, ক্ষমাও চেয়েছেন। তাই তাঁকে প্রকাশ্যে তিরস্কার করেই আপাতত রেহাই দেওয়া হল।

Read story in English

Stay updated with the latest news headlines and all the latest National news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Cpm publicly censures former mla george m thomas for claiming love jihad