scorecardresearch

বড় খবর

প্রবল বিতর্কের মাঝে ঢোক গিললেন কংগ্রেস নেতা, ‘হিন্দু’ নিয়ে মন্তব্য প্রত্যাহার, ক্ষমা প্রার্থনা

“হিন্দু শব্দের অর্থ জানলে আপনি লজ্জিত হবেন। এর অর্থ ‘অশ্লীল’।” বলেছিলেন জারকিহোলি।

প্রবল বিতর্কের মাঝে ঢোক গিললেন কংগ্রেস নেতা, ‘হিন্দু’ নিয়ে মন্তব্য প্রত্যাহার, ক্ষমা প্রার্থনা
দলের চাপেই ক্ষমা চাইলেন জারকিহোলি?

অনড় অবস্থান থেকে সরে এলেন কর্নাটক কংগ্রেসের কার্যকরী সভাপতি সতীশ জারকিহোলি। গত রবিবারই ‘হিন্দু’ শব্দের উৎপত্তি নিয়ে তাঁর মন্তব্যে প্রবল বিতর্ক বাঁধে। অস্বস্তি বাড়ে হাত নেতাদের। কিন্তু নিজের মন্তব্য থেকে এক চুলও সরতে রাজি ছিলেন না তিন। তবে ‘হিন্দু’ নিয়ে নিজের মন্তব্য বুধবার প্রত্যাহার করে নিয়েছেন জারকিহোলি। সেই সঙ্গেই যাঁরা তাঁর মন্তব্যের জন্য আহত হয়েছেন তাঁদের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন।

বুধবার কর্নাটকের মুখ্যমন্ত্রী বাসভরাজ বোম্মাইকে একটি চিঠিতে জারকিহোলি দাবি করছেন, তাঁর বিরুদ্ধে ‘হিন্দু’ বিরোধী তকমা এঁটে দেওয়া আসলে মানহানির বড় ‘ষড়যন্ত্র’। তাঁর মন্তব্যের ‘ভুল ব্যাখ্যা’ হয়েছে বলে দাবি এই কংগ্রেস নেতার। সত্য উদঘাটন করার জন্য একটি তদন্ত কমিটি গঠনেরও আবেদন করেছেন তিনি।

কর্নাটক কংগ্রেসের কার্যকরী সভাপতি সতীশ জারকিহোলি।

জারকিহোলি চিঠিতে লিখেছেন, ‘গত ৬ নভেম্বর মানব বন্দুত্ব বেদিকে আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে আমি বলেছিলাম ‘হিন্দু’ শব্দটি ফার্সি থেকে এসেছে। কীভাবে এই শব্দ ভারতে এলো? আমি বলেছিলাম যে এমন অনেক লেখনি রয়েছে যাতে দাবি করা হয় যে হিন্দু শব্দের একটি খারাপ অর্থ রয়েছে। আমি বলেছিলাম সেটা প্রকাশ্যে আলোচনা করা প্রয়োজন। আমার বক্তৃতা উইকিপিডিয়া, একাধিক বই, অভিধান এবং ইতিহাসবিদদের কাজের উপর ভিত্তি করে ছিল। এরপরও কিছু স্বার্থান্বেষী ব্যক্তি আমাকে হিন্দু বিরোধী বলে চিহ্নিত করেছে। আমার মানহানি করার এবং আমার ভাবমূর্তি নষ্ট করার জন্য একটি পরিকল্পিত চক্রান্ত হয়েছে।’ এরপরই চিঠিতে তদন্তের দাবি করেছেন কর্নাটক কংগ্রেসের কার্যকরী সভাপতি সতীশ জারকিহোলি।

‘হিন্দু’ শব্দের উৎপত্তি নিয়ে জারকিহোলির বিশ্লেষণ ভাইরাল হওয়ার পরেই তাঁকে বিজেপির সমালোচনার মুখে পড়তে হয়। দলের শীর্ষ নেতার সঙ্গে দলের কোনও সম্পর্ক নেই বললে বিজেপি নেতারা প্রাক্তন মন্ত্রীকে হাত শিবির থেকে থেকে বহিষ্কারের দাবি তুলেছিলেন। জারকিহোলির বিরুদ্ধে ব্যবস্থার দাবিতে বুধবার জেলা বহু স্থানে বিক্ষোভও করেছিল পদ্ম বাহিনী।

গত রবিবার বেলাগাভি জেলায় এক অনুষ্ঠানে সতীশ জারকিহোলি বলেছিলেন, ‘হিন্দু শব্দটি কোথা থেকে এসেছে? এটা কি আমাদের? এটি আসলে একটি ফার্সি শব্দ। ইরান, ইরাক, উজবেকিস্তান, কাজাখস্তানের মতো কোনও জায়গা থেকে এই শব্দের উৎপত্তি। ভারতের সঙ্গে হিন্দু শব্দের সম্পর্ক কী? তা হলে আপনি কী ভাবে এটি গ্রহণ করবেন? এটি নিয়ে প্রশ্ন তোলা উচিত। হিন্দু শব্দের অর্থ জানলে আপনি লজ্জিত হবেন। এর অর্থ ‘অশ্লীল’। আমার কথা বিশ্বাস না হলে বিভিন্ন ওয়েবসাইট থেকে দেখুন যে শব্দটি কোথা থেকে এসেছে।’

Stay updated with the latest news headlines and all the latest National news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Jarkiholi withdraws hindu origin remark tenders apology