scorecardresearch

‘জৈনের গ্রেফতারি আসলে প্রতারণা’, ইডির বিরুদ্ধে একের পর এক তোপ কেজরিওয়ালের

সোমবারই আর্থিক নয়ছয়-সহ একাধিক অভিযোগে সত্যেন্দ্র জৈনকে গ্রেফতার করেছে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট।

‘জৈনের গ্রেফতারি আসলে প্রতারণা’, ইডির বিরুদ্ধে একের পর এক তোপ কেজরিওয়ালের
বোমা ফাটালেন কেজরিওয়াল

দিল্লির আম আদমি পার্টির সরকারে সত্যেন্দ্র জৈন গুরুদায়িত্ব সামলাতেন। একাধিক দফতর সামলাতেন অসাধারণ দক্ষতায়। এককথায় বলতে গেলে সরকারের মেরুদণ্ড। তাই জৈনের গ্রেফতারি খোলা মনে মানতে পারছে না আম আদমি পার্টি। জৈনের গ্রেফতারির পরই দলের একাধিক নেতা সাংবাদিক বৈঠক করেছেন। জৈনের গ্রেফতারির জন্য কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটকে তুলোধনা করেছেন। তালিকায় বাদ থাকলেন না আম আদমি পার্টির সুপ্রিমো অরবিন্দ কেজরিওয়ালও।

তিনিও এবার সাংবাদিক বৈঠক করে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা ইডিকে তোপ দাগলেন। অভিযোগ করলেন, জৈনের গ্রেফতারি আসলে এক ‘সম্পূর্ণ প্রতারণা’। সোমবারই আর্থিক নয়ছয়-সহ একাধিক অভিযোগে সত্যেন্দ্র জৈনকে গ্রেফতার করেছে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট। ৯ই জুন পর্যন্ত তাঁর ইডি হেফাজতের নির্দেশ হয়েছে। মঙ্গলবার এই গ্রেফতারি সম্পর্কে বলতে গিয়ে কেজরিওয়াল অভিযোগ করেন, ‘বিষয়টি সম্পূর্ণ রাজনৈতিক’। রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে বিজেপি নেতৃত্বাধীন কেন্দ্রীয় সরকারের নির্দেশে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট কেজরিওয়ালকে গ্রেফতার করেছে।

শকুর বস্তি এলাকার বিধায়ক সত্যেন্দ্র জৈন আম আদমি পার্টি পত্তনের সময় থেকেই দলের অন্যতম স্তম্ভ। দলের সুপ্রিমো তথা দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ বলেও পরিচিত জৈন। ২০১১ সালে অন্না হাজারের লোকপাল আন্দোলনে জৈন ছিলেন অন্যতম মুখ। ২০১৮ সালে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা সিবিআই অভিযোগ করে, জৈন আর্থিক নয়ছয়ের সঙ্গে যুক্ত। অভিজ্ঞতাহীন একটি নতুন তৈরি সংস্থাকে দিল্লির পূর্ত দফতরের টেন্ডার বেআইনিভাবে পাইয়ে দিয়েছেন জৈন। এই অভিযোগ রয়েছে দিল্লি সরকারের ওই মন্ত্রীর বিরুদ্ধে।

আরও পড়ুন- কাশী-মথুরা অ্যাজেন্ডায় নেই বিজেপির, মসজিদ বিতর্কে উল্টো সুর গেরুয়া শিবিরের

কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার অভিযোগ, জৈন টেন্ডার পাইয়ে দেওয়ার জন্য হাওয়ালার মাধ্যমে অর্থ নিয়েছেন। প্রায় পাঁচ কোটি টাকা তিনি নিয়েছেন বলে জৈনের বিরুদ্ধে অভিযোগ ইডির। শুধু জৈনই নন। তাঁর স্ত্রী এবং আরও চার জনের বিরুদ্ধেও এই মামলায় অভিযোগ দায়ের করেছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাগুলো। আম আদমি পার্টির অবশ্য দাবি, জৈনের বিরুদ্ধে অভিযোগ মিথ্যে বলেই প্রমাণিত হবে। যেমনটা কেজরিওয়াল ও মণীশ সিসোদিয়ার ক্ষেত্রে হয়েছে। কেজরি ও সিসোদিয়ার বিরুদ্ধেও তদন্ত চালিয়েছিল কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাগুলো। কিন্তু, কোনও অভিযোগই সত্যি বলে প্রমাণিত হয়নি।

Read full story in English

Stay updated with the latest news headlines and all the latest National news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Kejriwal calls satyendar jains arrest by ed a complete fraud