উদ্ধবের স্বস্তি, শিণ্ডেদের আবেদন নিয়ে এখনই সিদ্ধান্ত নিতে পারবে না কমিশন

সুপ্রিম কোর্টে দায়ের করা উদ্ধব ঠাকরের মামলা খারিজের আবেদন জানিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী।

উদ্ধবের স্বস্তি, শিণ্ডেদের আবেদন নিয়ে এখনই সিদ্ধান্ত নিতে পারবে না কমিশন
উদ্ধাব ঠাকরে, একনাথ শিণ্ডে

শিবসেনার রাশ থাকবে কার হাতে? তা নিয়ে সুপ্রিম কোর্টে মামলা চলছে। অন্যদিকে, দলের রাশ সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত নির্বাচন কমিশনকেই নিষ্পত্তি করার আবেদন জানিয়েছে একনাথ শিণ্ডে গোষ্ঠী। এই অবস্থায় বৃহস্পতিবার দেশের শীর্ষ আদালতে নির্দেশে সাময়িক স্বস্তি পেতে পারেন উদ্ধব ঠাকরে শিবির। এ দিন সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ, একনাথ শিণ্ডেদের আবেদনের ভিত্তিতে শিবসেনার দখল সংক্রান্ত কোনও নির্দেশ যেন না দেয় কমিশন।

প্রধান বিচারপতি এন ভি রামানা জানিয়েছেন, শিবসেনার দখল সংক্রান্ত মামলাটি বৃহত্তর পাঁচ সদস্যের বেঞ্চে পাঠানো হবে কিনা তা আগামী ৮ অগাস্ট নির্ধারিত হবে। তার আগে শিণ্ডেদের আর্জির ভিত্তিতে কমিশন কোনও সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন না। বর্তমানে শিবসেনার মামলাটি প্রধান বিচারপতি রামানা নেতৃত্বাধীন বিচারপতি কৃষ্ণ মুরারি ও বিচারপতি হিমা কোহলির বেঞ্চে বিচারাধীন।

এর আগে মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী একনাথ শিণ্ডে দাবি রেছিলেন যে, শিবসেনার রাশ কার হাতে থাকবে তা ঠিক করবে নির্বাচন কমিশন। সুপ্রিম কোর্টে দায়ের করা উদ্ধব ঠাকরের মামলা খারিজের আবেদন জানিয়েছিলেন তিনি। শিণ্ডে শিবিরের দাবি, কোনও রাজনৈতিক দলের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে আদালত হস্তক্ষেপ করতে পারে না। গণতান্ত্রিক ভাবে একটি রাজনৈতিক দল রাজ্যের ক্ষমতায় এসেছে। সেই দলের রাশ কার হাতে থাকবে, তা ঠিক করুক নির্বাচন কমিশন।

চলতি বছর জুনে শিবসেনায় বিদ্রোহের আগুন জ্বলে ওঠে। উদ্ধাব ঠাকরেদের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ ঘোষণা করেন একনাথ শিণ্ডে সহ শিবসেনার অধিকাংশ বিধায়ক। শেষ পর্যন্ত মুখ্যমন্ত্রিত্ব ছাড়েন উদ্ধব ঠাকরে। এরপর একনাথ শিণ্ডে সেনার বিদ্রোহী বিধায়কদের নিয়ে বিজেপির সঙ্গে হাত মেলায়। জোট গড়ে রাজ্য সরকার গঠন করেন। শিণ্ডে মুখ্যমন্ত্রী পদে বসলে শিবসেনার রাশ কার হাতে থাকবে,তা নিয়ে দুই শিবিরের মধ্যে চলছে লড়াই চলছে।

Stay updated with the latest news headlines and all the latest National news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Relief for thackeray camp sc asks ec not to decide on shinde camp s pleas for now

Next Story
‘মোদী-শাহের নির্দেশেই গান্ধীদের ‘প্যাঁচে’ ফেলতে মরিয়া ED’, সুর চড়াল কংগ্রেস