‘বারবার প্রত্যাখ্যান, তবুও এত কথা!’ রাহুলকে নিশানা বিজেপির

প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ বলেন, কংগ্রেস নেতা “লজ্জাজনক এবং দায়িত্বজ্ঞানহীন” মন্তব্য করেছেন।

‘বারবার প্রত্যাখ্যান, তবুও এত কথা!’ রাহুলকে নিশানা বিজেপির
গেরুয়া শিবিরের কড়া নিশানায় হাত শিবির।

রাহুল গান্ধীকে পাল্টা নিশানা করল বিজেপি। নয়াদিল্লিতে গান্ধীর প্রেস কনফারেন্সের পরেই, প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ বলেন, কংগ্রেস নেতা “লজ্জাজনক এবং দায়িত্বজ্ঞানহীন” মন্তব্য করেছেন। গেরুয়া দলের অভিযোগ, রাহুলের ঠাকুমা তথা, প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী দেশে জরুরি অবস্থা জারি করে জনগণের গণতান্ত্রিক অধিকার হকণ করেছিলেন।

প্রাক্তন কংগ্রেস সভাপতি রাহুলের অভিযোগ, ভারত “গণতন্ত্রের মৃত্যু” দেখছে, এবং যে বা যাঁরা সরকারের একনায়কত্বের বিরুদ্ধে কথা বলছে তাঁদেরই “নিষ্ঠুরভাবে আক্রমণ করা হচ্ছে।”

রাহুলের নিন্দা করে রবিশঙ্কর প্রসাদ বলেছিলেন, “দুর্নীতি এবং অপকর্মকে ঢাকতে ভারতের সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানগুলিকে অবমাননা করা বন্ধ করুন। যদি লোকেরা আপনার কথা না শোনে তবে আপনি কেন আমাদের দোষ দিচ্ছেন?” জনগণ প্রকৃত স্বৈরাচার দেখেছিলেন ৭৫ সালে, এমনটাই মনে করেন বিজেপি নেতৃত্ব। বলেন, “জরুরি অবস্থার সময় বিরোধী নেতা ও সম্পাদকসহ লোকজনকে জেলে পাঠানো হয়েছিল, বিচারকদের বরখাস্ত করা হয়েছিল এবং সেন্সরশিপ আরোপ করা হয়েছিল। ইন্দিরা গান্ধী তখন প্রতিশ্রুতিবদ্ধ বিচার বিভাগ থাকার কথা বলেছিলেন।”

রবিশঙ্করের সংযোজন, “ভারতের লোকেরা আপনাকে বারবার প্রত্যাখ্যান করছে, তাহলে আপনি কেন গণতন্ত্রকে দোষারোপ করছেন?” রাহুলের কাছে প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর প্রশ্ন, কংগ্রেসের অভ্যন্তরে গণতন্ত্র আছে? কেন বহু নেতা গান্ধী পরিবারের নেতৃত্বে নিয়ে প্রশ্ন তোলার পরও সোনিয়া গান্ধী দলের চেয়ারপার্সন হয়ে রয়েছেন?

রাহুল এবং কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধীর বিরুদ্ধে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের মামলা তুলে ধরে, প্রসাদ বলেছিলেন যে, ইয়াং ইন্ডিয়ান, একটি ফার্ম যেখানে রাহুল-সনিয়া গান্ধীর গান্ধীর ৭৬ শতাংশ শেয়ার রয়েছে, কীভাবে ন্যাশনাল হেরাল্ডের বিনিয়োগ মাত্র ৫ লক্ষ টাকা হলেও ৫ হাজার কোটি টাকারও বেশি মূল্যের সম্পদ অর্জন করেছে এর উত্তর তাঁদের দিতে হবে। আদালত এই মামলায় তাঁর এবং অন্যদের বিরুদ্ধে অভিযোগ খারিজ করতে অস্বীকার করেছে। এরপরও তিনি এখন সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানগুলিকে দোষারোপ করছেন?

রাহুল গান্ধী কৃতকর্মের ফল ভোগ করছেন বলে হুঙ্কার রবিশঙ্কর প্রসাদ। তাঁর কথায়, “রাহুল গান্ধীকে বিচারের মুখোমুখি হতে হবে এবং ইডির প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে।”

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সরকার দুর্নীতির বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ করছে। কংগ্রেস বিপর্যস্ত বোধ করছে কারণ তারা ক্ষমতায় থাকাকালীন গণতন্ত্র, আর্থিক অনিয়মের সমার্থক হয়ে উঠেছিল বলে দাবি প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর।

Stay updated with the latest news headlines and all the latest National news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Stop blaming indian democracy for peoples repeated rejection of you bjp to rahul gandhi

Next Story
দিল্লিতে তুলকালাম, আটক রাহুল গান্ধী-শশী থারুর