scorecardresearch

DMK-র কার্যালয় উদ্বোধনে একমঞ্চে বিরোধীরা, ‘ভারতকে বাঁচাতে একজোট হতেই হবে’, বার্তা স্ট্যালিনের

রাজধানী দিল্লিতে ডিএমকে-এর দলীয় কার্যালয়ের উদ্বোধন অ-বিজেপি নেতাদের একজোট হওযার একটি মঞ্চ তৈরি করে দিল।

Opposition parties come together as Stalin inaugurates party office in capital
দিল্লিতে ডিএমকের কার্যালয়ের উদ্বোধনে সোনিয়া গান্ধী-সহ বিজেপি বিরোধী দলের নেতারা।

দিল্লিতে ডিএমকে-এর দলীয় কার্যালয়ের উদ্বোধন অ-বিজেপি নেতাদের একটি মঞ্চ তৈরি করে দিল। শনিবার দিল্লিতে তামিলনাড়ুর শাসকদল ডিএমকে-র কার্যালয়ের উদ্বোধনে অবিজেপি দলগুলির শীর্ষনেতাদের উপস্থিতি নজর কেড়েছে। কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী থেকে শুরু করে সমাজবাদী পার্টির নেতা অখিলেশ যাদব, সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি, বাম নেতা ডি রাজা, ন্যাশনাল কনফারেন্স নেতা ফারুক আবদুল্লা ছাড়াও ডিএমকে-র কার্যালয়ের উদ্বোধনে হাজির ছিলেন তৃণমূল ও টিডিপি-র প্রতিনিধিরাও। শনিবার তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী তথা ডিএমকে সুপ্রিমো এমকে স্ট্যালিন দিল্লিতে দলের কার্যলয়ের উদ্বোধন করেন।

শনিবার ডিএমকে-র কার্যলায়ের একটি লাইব্রেরির উদ্বোধন করেছেন সোনিয়া গান্ধী। ডিএমকে এবং কংগ্রেসের মধ্যে বিশেষ করে করুণানিধির পরিবার এবং গান্ধীদের মধ্যে পারিবারিক একটি সম্পর্ক রয়েছে। তবুও বিজেপির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে কংগ্রেসকে আরও বেশি সতর্ক থাকতে পরামর্শ দিয়েছেন স্ট্যালিন। বিশেষ করে জাতীয়স্তরে বিজেপি বিরোধী দলগুলির সঙ্গে ভালো সম্পর্ক তৈরির কথা বলে কংগ্রেসকেও বার্তা দিতে দেখা গিয়েছে ডিএমকে সুপ্রিমোকে। রাজধানীতে দলের কার্যালয়ের উদ্বোধনে বিরোধী দলের নেতাদের একমঞ্চে হাজির করান স্ট্যালিন। তাঁদের সামনেই তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রীর স্পষ্ট বার্তা, ”বিজেপির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ভারতকে বাঁচাতে একত্রিত হতেই হবে।”

তবে বিজেপি বিরোধিতায় এখন আর কংগ্রেসের নেতৃত্বকে মেনে নিতে অনেকেই নারাজ। রাজ্যে-রাজ্যে একাধিক নির্বাচনে হাত শিবিরের ভরাডুবি জাতীয় স্তরের রাজনীতিতে দলের প্রাসঙ্গিকতাকেই বড়সড় প্রশ্নের মুখে দাঁড় করিয়ে দিয়েছে। যদিও ডিএমকের পার্টি অফিসের উদ্বোধনে শনিবার সোনিয়া গন্ধীর উপস্থিতি তাৎপর্যপূর্ণ ছিল। কারণ দ্রাবিড় দলটিই এখনও কংগ্রেসের একমাত্র অবিচল বন্ধু হিসেবে রয়েছে।

আরও পড়ুন- ‘সরকারে কোনও অস্থিরতা নেই, কাজেই জবাব সমালোচকদের’, স্পষ্ট বার্তা উদ্ধবের

এক্ষেত্রে করুণানিধির পরিবার ও গান্ধী পরিবারের পুরনো সম্পর্ককেই দায়ী করছেন অনেকে। তবে বন্ধু দলগুলিও যে কংগ্রেসে আর আস্থা রাখছেন না তা বোধ হয় এবার বুঝেছেন সোনিয়া গান্ধী নিজেও। সেই কারণেই সম্ভবত আগামী সপ্তাহে শেষ হওয়া বাজেট অধিবেশনের দ্বিতীয় পর্যায়ে সংসদে ফ্লোর কোঅর্ডিনেশনের জন্য বিরোধী দলের নেতাদের নিয়ে একটি বৈঠকও ডাকেনি কংগ্রেস।

এদিকে এবারও রাজধানী সফরে গিয়ে সোনিয়া গান্ধীকে ফোন করেননি স্ট্যালিন। তার বদলে শুক্রবার দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী এবং আপ নেতা অরবিন্দ কেজরিওয়ালের সঙ্গে সময় কাটিয়েছেন তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী। দিল্লির একটি সরকারি স্কুল এবং মহল্লা ক্লিনিকেও গিয়েছিলেন তিনি।

Read full story in English

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Politics news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Opposition parties come together as stalin inaugurates party office in capital