scorecardresearch

বড় খবর

ভোটে ভরাডুবি, ঘুরে দাঁড়াতে আত্মীয়দের নিয়েই ঝাঁপাতে তৈরি বহেনজি

ভোটে ভরাডুবির পরেই বসপা-য় বদল। ২০২৪-এর লোকসভা ভোটের আগে আত্মীয়দের নিয়ে ঘুরে দাঁড়ানোর লড়াই মায়াবতীর।

Poll Position, Mayawati's kin set for bigger role in BSP rejig
ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টায় মায়াবতী।

বিধানসভা ভোটে ভরাডুবির পর দলে খোলনলচে বদল আনতে চাইছেন বহেনজি। ভাই ও ভাইপোকে নিয়েই দলের ভাবমূর্তি রক্ষার লড়াইয়ে মায়াবতী। এবারের ভোটে উত্তর প্রদেশ বিধানসভায় মায়াবতীর দলের প্রতিনিধি মাত্র একজন। দলের সবচেয়ে খারাপ এই ফলে হতাশ না হয়ে বরং ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টায় এতটুকুও ফাঁক রাখতে চাইছেন না উত্তর প্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী। ২০২৪-এর আগে দলের গ্রহণযোগ্যতা বাড়াতে পুরোদমে ঝাঁপাতে তৈরি বহেনজি। দলিত, নিম্নমবর্ণের পাশাপাশি উচ্চ বর্ণের জনগণের কাছেও দল যাতে প্রাসঙ্গিক হয়ে উঠতে পারে সেব্যাপারে রণকৌশল নির্ধারণ শুরু হয়েছে। এই কাজে এবার মায়াবতীর দলে বড় ভূমিকা নিতে চলেছেন তাঁর ভাই ও ভাইপো।

মায়বাতীর ভাইপো আকাশ আনন্দ, বর্তমানে দলের জাতীয় আহ্বায়ক। দলের আরও এক জাতীয় আহ্বায়ক তথা রাজ্যসভার সাংসদ রামজি গৌতম। আট রাজ্যে দলের দায়িত্ব সামলান এই গৌতম। এছাড়াও মায়বাতীর ভাই আনন্দ কুমার দলের সর্বভারতীয় সহ সভাপতি। এঁদের নিয়েই এবার ঘুরে দাঁড়ানোর লড়াই শুরু বহেনজির। মায়বাতীর ছোট ভাই আনন্দ কুমারের বয়স ৫৫ বছর।

২০১৭-এর বিধানসভা নির্বাচনের পরে প্রথম বহুজন সমাজবাদী পার্টির সহ-সভাপতি নিযুক্ত হন তিনি। সেবার পরপর দু’বার উত্তর প্রদেশের বিধানসভা ভোটে পর্যদুস্ত হয় বসপা। ২০১৯-এর মে মাসে মায়াবতী স্বজনপোষণের অভিযোগ তুলে ভাই আনন্দকে বরখাস্ত করা হয়েছে বলে ঘোষণা করেছিলেন। কিন্তু একমাসের মধ্যেই ফের তাঁকে পুরনো পদে বহাল করেন বহেনজি। ভাইয়ের ২৮ বছরের ছেলে আকাশকেও দলে এনে জাতীয় আহ্বায়কের পদ দেন মায়াবতী।

বহুজন সমাজবাদী পার্টির এক নেতা জনিয়েছেন, আকাশ যুব সম্প্রদায়কে নিয়ে কাজ করছেন। বিশেষ করে দলিত বর্ণের যুব সম্প্রদায়কে নিয়ে তাঁদের অধিকার রক্ষার লড়াইয়ে রয়েছেন আকাশ। মায়বতীর ভাই আনন্দ কুমারের তিন ছেলের মধ্যে সবচেয়ে বড় আকাশ। লন্ডন থেকে এমবিএ-র ডিগ্রি নিয়ে ফেরা আকাশ ২০১৭ সালে রাজনীতির ময়দানে পা রাখেন। মায়াবতীই তাঁকে সেই সময় দলের বরিষ্ঠ নেতাদের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিয়েছিলেন। তাঁর পরে আকাশই দলকে টেনে নিয়ে যাওয়ার ক্ষমতা রাখবেন বলেও সেই সময় ঘোষণা করেছিলেন বসপা প্রধান মায়াবতী।

ওই একই সময়ে মায়াবতী তাঁর ছোট ভাই আনন্দ কুমারকেও দলে নিয়ে আসেন। বছর পঞ্চান্নর আনন্দ রিয়েল এস্টেট ব্যবসা শুরু করার আগে নয়ডার একটি সংস্থায় কেরানি হিসেবে কাজ করেছিলেন। মায়াবতী ২০০৭ থেকে ২০১২ পর্যন্ত উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন। সেই সময়ের মধ্যে তাঁর ভাই আনন্দ কুমার যে সংস্থায় চাকরি করতেন সেটি ‘অস্বাভাবিক মুনাফা’ করেছিল। ২০১৭ সাল থেকে আয়কর বিভাগ এবং অন্যান্য সংস্থার স্ক্যানারে এসে গিয়েছেন মায়বতীর ভাই আনন্দ কুমার। তা সত্ত্বেও ভাইয়ের সাথ ছাড়েননি দিদি।

আরও পড়ুন- ‘পাঞ্জাবে নতুন মাফিয়া বিরোধী যুগ’, পদ খুইয়ে মানের প্রশংসায় পঞ্চমুখ সিধু

২০১৯-এর জুলাই মাসে আয়কর বিভাগ নয়ডায় একটি সাত একরের বাণিজ্যিক প্লটের কথা উল্লেখ করেছে। যার মূল্য ৪০০ কোটি টাকা। ওই প্লটটি আনন্দ কুমার এবং তাঁর স্ত্রী বিচিত্রা লতার “লাভজনকভাবে মালিকানাধীন” বলে উল্লেখ করা রয়েছে। বর্তমানে আনন্দ কুমার দলের জোনাল ইউনিটগুলির সঙ্গে সমন্বয় রাখেন। বিএসপি-র আর্থিক দিকগুলিও তিনিই দেখেন।

বিএসপি-র একজন প্রবীণ নেতা বলেছেন, ”আকাশ দিল্লিতে প্রায় দেড়শো তরুণকে নিয়ে কাজ করছেন। তাঁর প্রাথমিক ভূমিকা হল ওই যুবকদের বিএসপির সঙ্গে সংযুক্ত করা। তিনি দলের ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম এবং সোশ্যাল মিডিয়া আউটরিচও দেখেন।” পরপর এত বছর দল ক্ষমতায় না থাকার জেরে ইতিমধ্যেই বহু নেতাকে হারিয়েছে বসপা।

এদিকে, রাজ্যে ভোটে বিএসপি-র শোচনীয় ফলের পর থেকে বসপা-য় বদলের ভাবনা জোরদার হয়েছে। ইতিমধ্যেই লোকসভায় দলনেতার পদ থেকে সরানো হয়েছে ব্রাহ্মণ নেতা এবং আম্বেদকরনগরের বসপা সাংসদ রীতেশ পাণ্ডেকে। তাঁর জায়গায় বহুজন সমাজবাদী পার্টির লোকসভার নেতা হয়েছেন নাগিনার দলিত সাংসদ গিরিশ চন্দ্র জাটভ। পাণ্ডের বাবা জালালপুর থেকে এবারের বিধানসভা ভোটে সমাজবাদী পার্টির প্রার্থী হিসেবে জিতেছিলেন। পাণ্ডেকে অপসারণ সেটিও অন্যতম প্রধান কারণ হতে পারে বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

Read full story in English

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Politics news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Poll position mayawatis kin set for bigger role in bsp rejig