বড় খবর

লকডাউনে ‘ভোকাট্টা’! কেশপুরে শুভেন্দুর নিশানায় ঘাটালের সাংসদ দেব

কেশপুরে দাঁড়িয়ে শুভেন্দুর দাবি, “ঘাটালে ভারতী ঘোষ জিততেন যদি না কেশপুর ভোট লুঠ হত।”

বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর থেকে তৃণমূলের কোনও নেতা-মন্ত্রীকেই আক্রমণ করতে ছাড়ছেন না শুভেন্দু অধিকারী। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় থেকে শুরু করে অভিষেক, ফিরহাদ, সৌগত রায়, কল্যাণদের পর এবার ঘাটালের তারকা সাংসদ দেবকেও নিশানা করলেন প্রাক্তন মন্ত্রী।

বৃহস্পতিবার কেশপুরের সভা থেকে স্থানীয় সাংসদকে তুমুল খোঁচা দিলেন শুভেন্দু। জনতার উদ্দেশে জিজ্ঞেস করলেন, “লকডাউনে এখানকার সাংসদকে দেখতে পেয়েছেন?” জনতার উত্তর, না! এরপর তিনি বলেন, “দেখবেন না, তোমার দেখা নাই রে তোমার দেখা নাই!” উল্লেখ্য, কেশপুর বিধানসভা কেন্দ্র পড়ে ঘাটাল লোকসভা কেন্দ্রের মধ্যে। পরপর দুবার এখান থেকে জিতে সাংসদ হয়েছেন। তুমুল জনপ্রিয়তায় ভর করে হারিয়েছিলেন বিজেপি প্রার্থী ভারতী ঘোষকে। পশ্চিম মেদিনীপুরে এই একটি আসনেই কাজের কাজ করতে পারেনি বিজেপি। সেই কথা মাথায় রয়েছে শুভেন্দুর।

আরও পড়ুন ‘গোলি মারো’ স্লোগানের জের, গ্রেফতার বিজেপি যুব সভাপতি, বাড়ল বিতর্ক

এদিন কেশপুরে দাঁড়িয়ে শুভেন্দুর দাবি, “ঘাটালে ভারতী ঘোষ জিততেন যদি না কেশপুর ভোট লুঠ হত। লোকসভা ভোটের পর এখনকার তৃণমূল ঘরে ঢুকে গিয়েছিল। সব জেলা নেতাদের ফোন সুইচ অফ। আর এমপি তো ভোকাট্টা! সেদিন আমি এসেছিলাম।” প্রসঙ্গত, দেবকে নিয়ে স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্বের মধ্যেও ক্ষোভ রয়েছে। এলাকায় সময় দিতে পারেন না সাংসদ। কিন্তু এবার শুভেন্দুর নিশানাতেও সাংসদ দেব।

এদিকে, বুধবার হুগলির চন্দননগরে শুভেন্দু অধিকারীর মিছিলে ‘গোলি মারো’ স্লোগান ঘিরে বিতর্কের জেরে পদক্ষেপ করল পুলিশ। হুগলির সাংগঠনিক জেলার যুব সভাপতি সুরেশ সাউ-সহ আরও দুজনকে গ্রেফতার করল পুলিশ। এই ঘটনার প্রতিবাদে থানা ঘেরাও কর্মসূচি নেয় পদ্ম শিবির।

Web Title: Suvendu adhikari attacks tmc mp dev in keshpur

Next Story
একুশের নির্বাচনে ‘কিং মেকার’ হতে চান ভাইজান
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com