লেফটেন্যান্ট গভর্নর শান্ত লাদাখে জঙ্গিবাদের বীজ বপন করছেন, অভিযোগ ওয়াংচুকের

‘কেন্দ্রশাসিত লাদাখের চেয়ে জম্মু-কাশ্মীরের সঙ্গে ভালো ছিলাম’, ভাবিনি এটা বলতে হবে, বার্তা সোনমের।

Sonam Wangchuk
সোনম ওয়াংচুক

আজকের কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের চেয়ে জম্মু-কাশ্মীরের সঙ্গেই ভালো ছিলাম। এবার এমন খেদোক্তিই শোনা গেল পরিবেশবিদ সোনম ওয়াংচুকের মুখে। তাঁর স্পষ্ট কথা, এসব যে বলতে হবে, তা কখনও ভাবিনি। কিন্তু, এটা বলতে হচ্ছে যে আগেই ভালো ছিল লাদাখবাসী। ওয়াংচুকের কথার আলাদা দাম আছে। কারণ তিনি ম্যাগসেসে পুরস্কার জয়ী। দীর্ঘদিন ধরে লাদাখের উন্নয়নে কাজ করছেন। তাঁর চরিত্রকে মাথায় রেখে বলিউডে জনপ্রিয় সিনেমা তৈরি হয়েছে। সেই সোনম সোমবারই, ‘লাদাখের হিমবাহ, পর্বত, ভূমি এবং জনগণ’কে সংবিধানের ষষ্ঠ তফসিলের অন্তর্ভুক্ত করার দাবিতে পাঁচ দিনের অনশন শেষ করেছেন।

এই সোনম ওয়াংচুকই কিন্তু ২০১৯ সালে জম্মু-কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা বাতিলের দাবিতে সোচ্চার ছিলেন। ৩৭০ ধারা বাতিলের অন্যতম প্রবক্তা হয়ে উঠেছিলেন। উদ্ভাবক এবং জলবায়ু কর্মী হিসেবে বিশ্বজোড়া নাম করেছেন। আর, একসময় ছিলেন কট্টর মোদী ভক্ত। হ্যাঁ, একসময়। কারণ, সোনম এখন যেন তাঁর আগের অবস্থান নিয়ে বেশ বিভ্রান্ত। তাঁর খেদোক্তি, ‘লাদাখের শান্তিপূর্ণ অঞ্চলে জঙ্গিবাদের বীজ বপনের জন্য প্রশাসন কঠোর চেষ্টা চালাচ্ছে।’ তাঁর নিজের তৈরি প্রতিষ্ঠান, ‘হিমালয়ান ইনস্টিটিউট অফ অল্টারনেটিভ লাদাখ’-এ অনশন শেষ করেছেন ওয়াংচুক। কারণ, প্রশাসন তাঁকে ওই জায়গাতেই অনশনের অনুমতি দিয়েছিল।

সেই সোনম ওয়াংচুক বলছেন, ‘এটা দেখে খারাপ লাগছে যে কেন্দ্রশাসিত লাদাখ অঞ্চল অন্ধকার নগরীতে পরিণত হয়েছে। এক ব্যানানা রিপাবলিক। দুঃখিত, এক ব্যানানা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল। সোশ্যাল মিডিয়াকে ধন্যবাদ। আমি আইনজীবী-সাংবাদিক মহসিনাহমাদ্দারের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পেরেছি। পরিস্থিতি দেখে তিনি পাশে থাকার অঙ্গীকার করেছেন।’ সোনম ওয়াংচুকের অভিযোগ, ‘আমাকে একটি বন্ডে স্বাক্ষর করতে বলা হয়েছে। আমার স্কুলের তিন জন নির্দোষ শিক্ষককে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে। কারণ হল, তাঁরা যাতে আমাকে বন্ডে স্বাক্ষর করতে বাধ্য করেন। আর এই সব কিছু করাচ্ছেন লেফটেন্যান্ট গভর্নর।’

আরও পড়ুন- অনিশ্চয়তার মধ্যেও দুনিয়ার নজরে নাকি ভারতের বাজেট, দাবি মোদীর

এক ভিডিও বিবৃতিতে সোনম ওয়াংচুক হুঁশিয়ারির সুরে বলেছেন, ‘আমি বলব যে লেফটেন্যান্ট গভর্নর সাহেব, আপনি শান্তিপূর্ণ লাদাখে জঙ্গিবাদের বীজ বপন করার জন্য কঠোর পরিশ্রম করছেন। যুবকদের যেভাবে বেকার রাখা হয়েছে, নিপীড়িত করা হচ্ছে, আমরা তা হতে দেব না।’ ভিডিওবার্তায় কার্যত খেদোক্তির সুরেই ওয়াংচুক বলেছেন, ‘আমি কখনও ভাবিনি যে বলতে হবে আজকের কেন্দ্রশাসিত লাদাখের চেয়ে জম্মু-কাশ্মীরের সঙ্গেই ভালো ছিলাম।’ একইসঙ্গে অবশ্য এই ভিডিওবার্তায় ভবিষ্যতের সোনালি স্বপ্নও দেখিয়েছেন সোনম ওয়াংচুক। তিনি বলেন, ‘আমার আশা যে আগামিদিনের কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল আরও ভালো এবং সোনালি হবে।’

Read full story in English

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Politics news download Indian Express Bengali App.

Web Title: We were better off with jammu and kashmir than todays ut

Next Story
অনিশ্চয়তার মধ্যেও দুনিয়ার নজরে নাকি ভারতের বাজেট, দাবি মোদীর
Exit mobile version