scorecardresearch

বড় খবর

ক্রিকেট সিংহাসনে বসার পথেই সৌরভ! লড়াই করেই ছিনিয়ে নেবেন নিজের ফেলে আসা গদি

ক্রিকেট প্রশাসনেই থাকছেন সৌরভ। বিরাট আপডেট এল শনিবার

ক্রিকেট সিংহাসনে বসার পথেই সৌরভ! লড়াই করেই ছিনিয়ে নেবেন নিজের ফেলে আসা গদি

বোর্ড প্রেসিডেন্ট পদে থাকছেন না। নিশ্চিত হয়ে গিয়েছে। তবে এখনই প্রশাসন থেকে সরতে চাইছেন না তিনি। সিএবি সভাপতি পদে আসন্ন বঙ্গ ক্রিকেটের নির্বাচনে অংশ নেবেন তিনি। ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে পাঠানো টেক্সট বার্তায় তিনি এই খবর নিশ্চিত করেছেন। চলতি অক্টোবরের ৩১ তারিখেই সিএবির নির্বাচন রয়েছে।

বোর্ড সভাপতি পদে থাকতে চেয়েছিলেন। তবে সৌরভের সেই ইচ্ছায় মান্যতা না দিয়ে মহারাজকে আইপিএল চেয়ারম্যান হওয়ার প্রস্তাব দেয় বোর্ড। পত্রপাঠ সেই প্রস্তাব খারিজ করে দেন সৌরভ। সেই সঙ্গে বিসিসিআইয়ের তরফে স্পস্ট করে বলে দেওয়া হয়, কোনওভাবেই আইসিসি চেয়ারম্যান পদের জন্য তাঁকে ব্যাক করবে না বিসিসিআই।

আরও পড়ুন: সৌরভ সরতেই ৯৫৬ কোটি টাকা ক্ষতির মুখে BCCI! ‘মাথার চুল ছেঁড়ার জোগাড়’ জয় শাহদের

বোর্ড প্রেসিডেন্ট হওয়ার অফে এর আগে সিএবির সভাপতি ছিলেন ২০১৫-২০১৯ পর্যন্ত। ফের একবার সিএবি সভাপতি হলে দ্বিতীয়বার বঙ্গ ক্রিকেটের মসনদে বসবেন তিনি। কয়েকদিন আগেই সৌরভ এক প্রমোশনাল ইভেন্টে জানিয়ে দিয়েছিলেন, “আজীবন কেউ প্রশাসক, ক্রিকেটার থাকতে পারেন না। মুদ্রার দুই পিঠই উপভোগ করেছি।” সম্ভবত নিজের স্টান্স বদলে নিয়েছেন তিনি।

অক্টোবরের ১৮ তারিখে বোর্ডের এজিএম-এ সরকারিভাবে তিনি দায়িত্ব অর্পণ করবেন রজার বিনিকে। বোর্ডের নতুন সংবিধান অনুযায়ী, সিএবি-তে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় আরও চার বছর প্রেসিডেন্ট থাকতে পারেন।

আরও পড়ুন: বোর্ড থেকে সরার পরেই বড় দায়িত্বে সৌরভ! যোগ দিলেন বড় সংস্থায়

সৌরভের বোর্ডে-প্রস্থানের আগে সিএবির সভাপতি হিসেবে ভেসে উঠেছিল সৌরভের দাদা স্নেহাশিস গঙ্গোপাধ্যায়ের নাম। অভিষেক ডালমিয়ার প্রস্থান কার্যত নিশ্চিত। চলতি মাসের ২২ তারিখ সিএবিতে সভাপতি পদে মনোনয়ন জমা দেবেন তিনি।

টাইমস অফ ইন্ডিয়া-কে সৌরভ ঘনিষ্ঠ এক সূত্র জানিয়েছেন, “ক্রিকেটেই থাকতে চাইছেন সৌরভ। ক্রিকেটারদের সাহায্য করতে প্রস্তুত তিনি। সিএবি নিয়ে বরাবর তিনি প্যাশনেট। বোর্ডে পরপর দুটো টার্মে প্রেসিডেন্ট থাকা যায় না। তবে প্রশাসক হিসাবে উনি বেশ অভিজ্ঞতা সঞ্চয় করেছেন।”

সৌরভকে একসময় ভাবা হয়েছিল, বোর্ডের তরফে আইসিসির প্রতিনিধি হবেন। তবে বর্তমান বোর্ড রাজনীতির অঙ্ক অনুযায়ী, সচিব জয় শাহ-ই সম্ভবত বোর্ডের প্রতিনিধি হিসেবে আইসিসিতে হাজির থাকবেন।

আইপিএলের বর্তমান চেয়ারম্যান ব্রিজেশ প্যাটেল সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, “রজার বিনি বিসিসিআইয়ের প্রেসিডেন্ট পদে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন। আমি ভাইস-প্রেসিডেন্ট, জয় শাহ সচিব, আশিস শেহলার কোষাধ্যক্ষ এবং দেবজিত সাইকিয়া যুগ্ম সচিব পদে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন।”

আরও পড়ুন: দাদাকে বোর্ডে চূড়ান্ত অপমান শ্রীনিবাসনের, মুখ খুলে পাল্টা ছোবল সৌরভেরও

“অরুণ ধূমল আইপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের চেয়ারম্যান হবেন। অভিষেক ডালমিয়া সেই কাউন্সিলের সদস্য হবেন। খাইরুল জামাল মজুমদার এপেক্স কাউন্সিলের মেম্বার হচ্ছেন। এখনও পর্যন্ত এগুলো সবই মনোনয়ন জমা করা হয়েছে। অন্য কেউ এইসব পদে নমিনেশন ফাইল করেননি।”

গত বুধবারই বোর্ডে মনোনয়ন জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ছিল। ১৪ তারিখ ছিল মনোনয়ন প্রত্যাহার করার শেষ দিন। মনোনয়ন দাখিলেই প্রমাণিত বোর্ডের নতুন প্যানেল কেমন হতে চলেছে।

মহারাষ্ট্রে বিজেপি নেতা আশিস শেহলার বোর্ডের নতুন কোষাধ্যক্ষ হচ্ছেন। মহারাষ্ট্র ক্রিকেট সংস্থায় তিনি প্রেসিডেন্ট হওয়ার দৌড়ে এগিয়ে ছিলেন। এবার তাঁকে মহারাষ্ট্র ক্রিকেট সংস্থা থেকে নিজের মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নিতে হবে। ঘটনা হল, বোর্ড নির্বাচনের আগেই বিসিসিআইয়ের প্রশাসনিক প্যানেল কার্যত নিশ্চিত হয়ে গিয়েছে। ১৮ অক্টোবর কেবল অনুষ্ঠানিক ঘোষণা টুকুই বাকি রয়েছে। কারণ বোর্ডের কোনও পদেই একজনের বেশি কেউ মনোনয়ন জমা দেননি।

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Sports news download Indian Express Bengali App.

Web Title: After bcci exit sourav ganguly to contest election in cab