scorecardresearch

বলে লালা ব্যবহার বন্ধ করা উচিত, বলছেন প্রাক্তনরাই

দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজের আগেই জাতীয় দলের দুই পেসার ভুবনেশ্বর ও শামি জানিয়েছিলেন, বলে লালার ব্যবহার কমাবেন। এছাড়া বৈধ উপায়ে বল সুইং করানোর একটাই উপায় আছে, তা হলো ঘামের প্রয়োগ।

বলে লালা ব্যবহার বন্ধ করা উচিত, বলছেন প্রাক্তনরাই

ব্যাটসম্যানদের আউট করতে বোলারদের অস্ত্র সুইং। আর বলের কারিকুরিতে ভরসা বোলার, ফিল্ডারদের লালারস। তবে ভাইরাস সংক্রমণের পরিপ্রেক্ষিতে বলে সাময়িকভাবে লালারস মাখানোয় নিষেধাজ্ঞা জারি করার কথা বলছেন প্রাক্তন বোলাররাই।

ক্রিকেটে সুইং করানোর জন্য ঘাম ও লালারস ব্যবহার করা আইসিসির নিয়মের মধ্যেই পরে। তবে অনেকক্ষেত্রেই জেলিজাতীয় দ্রব্য ব্যবহারে বলবিকৃতি ঘটিয়ে আইসিসির নিষেধাজ্ঞার কবলে পড়েছে একাধিক ক্রিকেটার। এবার অবশ্য পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে বৈধ নিয়ম পালনেও সমস্যায় পড়বেন বোলাররা।

জাতীয় দলের প্রাক্তন পেসার প্রসাদ জানিয়েছেন, “নিরাপত্তার স্বার্থে কিছুদিন বোলারদের লালা ব্যবহারে রাশ টানতে হবে। কেবলমাত্র ঘাম ব্যবহার করে কাজ চালাতে হবে। তবে খেলার সময় অনেকেই উত্তেজনার মুহূর্তে ভুলে যেতেই পারে। অন্যভাবে ব্যাটসম্যানের উপর চাপ তৈরি করতে হবে বোলারদের।”

গত মাসে দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজের আগেই জাতীয় দলের দুই পেসার ভুবনেশ্বর ও শামি জানিয়েছিলেন, বলে লালার ব্যবহার কমাবেন তাঁরা। লালা ছাড়া বৈধ উপায়ে বল সুইং করানোর একটাই উপায় আছে, তা হলো ঘামের প্রয়োগ। সেটাও অবশ্য বেশ কার্যকর হতে পারেন। বলছেন প্রসাদ।

তাঁর বক্তব্য, “দলের মধ্যে যাঁরা বেশি ঘামে তাঁদের কাছে বল পাঠানো হোক বল করার মাঝে। আমি এমনন একজন যে বেশি ঘামে না। আবার রাহুল দ্রাবিড় বেশি ঘামতো।”

প্রসাদের বক্তব্যের সঙ্গেই একমত হয়েছেন অন্য এক প্রাক্তন প্রবীণ কুমার। তিনি জানিয়েছেন, “খেলা নতুন করে শুরু হওয়ার পর বেশ কিছুদিন লালা ব্যবহারে সংযম দেখাতে হবে। নতুন কোনো উপায় বের করতে হবে। বল হাতে ইনিংসের শুরুতে বা পুরোনো বলে রিভার্স সুইং করানোর ক্ষেত্রে লালা বেশ উপযোগী। স্পিনাররাও লালা ব্যবহার করে বলে ড্রিফট আদায় করে নেয়।”

প্রায় একই ধরণের মতামত প্রকাশ করেছেন প্রাক্তন অস্ট্রেলীয় বোলার জেসন গিলেসপিও। তিনি জানিয়েছেন, “এটা আলোচনার বিষয় নয়। এটাই প্রয়োগ করতে হবে। প্রতি ওভারের শেষে আম্পায়ারের উপস্থিতিতে বল সাইন করার কাজ করতে হবে।”

প্রসাদ আবার মনে করিয়ে দিয়েছেন, “শুধু লালা ব্যবহার করেই সুইং করানো সম্ভব নয়। পিচ, পরিস্থিতি, আবহাওয়া অনেক কিছুর উপরেই সুইংয়ের তারতম্য নির্ভর করে। পাকিস্তানের বিরুদ্ধে যখন ৬ উইকেট নিয়েছিলাম। তখন বলের কন্ডিশন, পিচ এবং আবহাওয়া সাহায্য করেছিল। তবে বোলারকে যখন ব্যাটসম্যান মাঠের বাইরে পাঠাবে তখন অবচেতনেই আউট করার ইচ্ছায় হয়ত লালা ব্যবহার করে ফেলবে সেই বোলার। এই প্রবৃত্তির ক্ষেত্রেই সাবধান থাকতে হবে।”

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Sports news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Bowlers need not to use saliva for swing feels ex cricketers