বড় খবর

জার্মানির ম্যাচের আগেই চুলোচুলি ফ্রান্স শিবিরে! দুই তারকার ঝামেলায় বেনজির ডামাডোল

Euro Cup 2020: ফ্রান্স দলে অশান্তি ক্রমশ বাড়ছে। জিরুর সঙ্গে একপ্রস্থ লেগে গিয়েছে তরুণ তারকা স্ট্রাইকার এমবাপের। শুরুতেই ফ্রান্স নামছে জার্মানির বিপক্ষে।

ইউরো কাপে প্রথম ম্যাচেই জার্মানির বিরুদ্ধে ব্লকবাস্টার ম্যাচে নামছে ফ্রান্স। তার আগে দলের দুই তারকার ঝগড়া এমন জায়গায় পৌঁছেছে, যে দলগত সংহতি ধরে রাখাই মুশকিল হয়ে পড়েছে। প্রাক ইউরো ম্যাচে বুলগেরিয়ার বিরুদ্ধে ফ্রান্স ৩-০ জিতেছিল। সেই ম্যাচেই দৃষ্টিকটুভাবে ঝামেলায় জড়িয়ে পড়েন কিলিয়ান এমবাপে এবং অলিভিয়ের জিরু। ম্যাচের শেষেই ক্ষিপ্ত জিরু জানিয়ে দেন, তিনি পর্যাপ্ত বলের যোগান পাননি। তাঁর লক্ষ্য ছিল এমবাপে।

করিম বেনজেমার পরিবর্ত হিসাবে খেলতে নেমে জিরু জোড়া গোল করেন। গোলের সেলিব্রেশনের সময় বাকি সতীর্থরা তাঁর কাছে এগিয়ে এলেও এমবাপে অন্যদিকে হাঁটা দিয়েছিলেন। জিরু লেকুইপে টিভি-কে বলে দেন, “আমাকে মাঠে ঠান্ডা লেগেছে। কারণ অনেক সময় দৌড়লেও আমার কাছে বল আসেনি। আমি সবসময় ভালো সিদ্ধান্ত নেওয়ার ভান করতে পারবো না। তবে মাঠেই বিষয়টা সমাধান করতে চেয়েছিলাম।”

আরো পড়ুন: স্টার্লিংয়ের গোলে জয় ইংল্যান্ডের! ইউরোর ইতিহাসে প্রথমবার শুরুর ম্যাচে হারল ক্রোয়েশিয়া

এমন মন্তব্যের পরেই এমবাপে আবার বলে দেন, যেভাবে দলের মধ্যে অশান্তির বাতাবরণ তৈরি হচ্ছে, তাতে তিনিও প্রভাবিত হচ্ছেন। “ও যেটা বলেছে, তাতে আমার কিছু যায় আসে না। কথা বলার সময় ও নিজের মতামত প্রকাশ করে ফেলেছে। আমিও ফরোয়ার্ড হিসাবে এমন অনুভূতি একাধিকবার হয় ম্যাচের মধ্যে। যখন মনে হয়, আমাকে কেউ পাস-ই দিচ্ছে না। তবে এটা প্রকাশ্যে বলার ক্ষেত্রে সমস্যা রয়েছে। ওঁকে ড্রেসিংরুমে দেখে গোলের জন্য শুভেচ্ছা জানালাম, ও কোনো প্রত্যুত্তরই দিল না। ও যা বলেছে, তাঁর থেকেও এটা খারাপ। ও তো খুব একটা ভুল বলেনি। তবে আমরা সকলেই ফ্রান্সের প্রতিনিধিত্ব করতে এসেছি। এটা গুরুত্বপূর্ণ।” জানিয়েছেন বর্তমানে দুনিয়ার অন্যতম সেরা স্ট্রাইকার।

জাতীয় দলে ছয় বছর পর বেনজেমার প্রত্যাবর্তনে জিরুর স্থান প্রথম একাদশে অনেকটাই অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। তবে বুলগেরিয়া ম্যাচে হালকা হাঁটুতে চোট নিয়েই মাঠ ছাড়েন বেনজেমা। ইউরোর প্ৰথম ম্যাচে মিউনিখে জার্মানির বিরুদ্ধে অনেকটাই অনিশ্চিত তারকা স্ট্রাইকার।

সেক্স টেপ স্ক্যান্ডাল নিয়ে কোচ দিদিয়ের দেশের সঙ্গে সম্পর্ক মোটেই ভালো নেই বেনজেমার। অন্যদিকে বেনজেমার সঙ্গে জিরুরও সম্পর্কে শৈত্য রয়েছে। এই কারণেই বেনজেমার জায়গায় জিরু নিয়মিত খেলে দেশের সর্বকালের সেরা গোলদাতাদের তালিকায় দু-নম্বরে উঠে এসেছেন জিরু। ফ্রান্সের হয়ে ৪৬টি গোল করে জিরু থিয়েরি হেনরির পর দ্বিতীয় সর্বোচ্চ গোলদাতা।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Get the latest Bengali news and Sports news here. You can also read all the Sports news by following us on Twitter, Facebook and Telegram.

Web Title: Euro 2020 olivier giroud and kylian mbappe fight france vs germany didier deschamps

Next Story
একপেশে ম্যাচে ভেনেজুয়েলাকে উড়িয়ে জয় ব্রাজিলের, গোল পেলেন নেইমারও
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com