ইস্টবেঙ্গলের বাতিল বাঙালি এবার মোহনবাগানে, প্রত্যাবর্তনের সুযোগ মিলছে পড়শি ক্লাবেই

এক প্রধানে খেলে স্বপ্নভঙ্গ হয়েছিল। ছেড়ে আসতে হয়েছিল আশা, অপূর্ণ ইচ্ছে। ইস্টবেঙ্গলের সেই বাতিল হিরাকেই এবার ডেকে নিচ্ছে মোহনবাগান।

HEERA MONDAL_1
নতুনভাবে প্রত্যাবর্তনের সুযোগ পাচ্ছেন হিরা মণ্ডল (ফেসবুক)
ইস্টবেঙ্গলের তরফে উপেক্ষিত হতে হয়েছিল। অনেক অপমান নিয়ে বেরিয়ে আসতে হয়েছিল লেসলি ক্লডিয়াস সরণি ধরে। খিদিরপুরের হীরা মণ্ডল সেই অপমানের বদলা নেওয়ার সুযোগ পেয়ে যাচ্ছেন বছর ঘুরতে না ঘুরতেই। তিনি এবার খেলবেন মোহনবাগানের জার্সিতে। তাঁর চুক্তি প্রায় চূড়ান্ত। সূত্রের খবর এমনটাই।

কোচ হয়ে আসছেন কিবু ভিকুনা। তিনি নিজের সাপোর্ট স্টাফ বেছে নেবেন। দেশি ফুটবলারদের বাছাইয়ের দায়িত্বে রয়েছে ক্লাবেরই টেকনিকাল কমিটি। তাঁরাই বেছে নিচ্ছেন গত মরশুমে ইস্টবেঙ্গলের উপেক্ষিত নায়ক কে! কথাবার্তা প্রায় চূড়ান্ত। এমনটাই জানা যাচ্ছে।

গৌরবের ইতিহাস নিয়ে সোনার গোলার্ধে, বিখ্য়াত দুই ক্লাবের সঙ্গে আলোচনা মোহনবাগানের

গত মরশুমে অনেক স্বপ্ন নিয়ে লাল-হলুদ জার্সি গায়ে চাপিয়েছিলেন হিরা। তবে আইলিগে খেলার সুযোগ জোটেনি। ক্লাবে সই করে একদিনও স্প্যানিশ কোচ আলেয়ান্দ্রো মেনেনদেজ-এর তত্ত্বাবধানে অনুশীলন করতে পারেননি। বাতিল ফুটবলারকে কর্তারা বলেছিলেন, দার্জিলিং গোল্ড কাপে নিজেকে প্রমাণ করতে পারলে তবেই মূল দলে তাঁকে সুযোগ দেওয়া হবে।

সেই অনুযায়ী, দার্জিলিং গোল্ড কাপে নিজেকে প্রমাণ করে ফিরেও এসেছিলেন পিয়ারলেসে খেলা হিরা। তবে দলে আর ঢুকতে পারেননি বাঙালি প্রতিশ্রুতিমান ফুটবলার। পরে রিলিজ করে দেওয়া হয় হিরাকে। এরপরে, সন্তোষে বাংলা গ্রুপ পর্বের গণ্ডি টপকাতে না পারলেও হিরা নজর কেড়েছিলেন। বিহারের বিরুদ্ধে প্রথম ম্যাচেই দর্শনীয় গোল করে নিজের জাত চিনিয়েছিলেন তিনি।

যাইহোক, প্রত্যাবর্তনের মঞ্চ এবার সাজিয়ে দিচ্ছে গঙ্গাপাড়ের ক্লাব। এক স্প্যানিশ কোচের সান্নিধ্যে স্বপ্নভঙ্গ হয়েছিল, অন্য স্প্যানিশ কোচের সংস্পর্শে হিরা সবুজ মাঠে দ্যুতি ছড়াবে কিনা, সেটাই আপাতত দেখার।

Get the latest Bengali news and Sports news here. You can also read all the Sports news by following us on Twitter, Facebook and Telegram.

Web Title: Forsaken at east bengal heera mondal is now set to play for mohun bagan

Next Story
আন্ডারটেকারকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়লেন জন সিনা
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com