বড় খবর

কোনও কারণ ছাড়াই বাদ দেওয়া হয়েছিল! অবসর নিয়েই বোমা ফাটালেন ভাজ্জি

২০১১ বিশ্বকাপের পরে কেরিয়ারে আচমকা টার্ন নেয় হরভজনের। জাতীয় দল থেকেও বাদ পড়তে হয়। সেই বিষয়ে এবার মুখ খুললেন তারকা।

বিশ্বের সর্বকালের অন্যতম সেরা অফস্পিনার। তা সত্ত্বেও কেরিয়ারে একাধিক উত্থান-পতনের সাক্ষী থেকেছেন হরভজন সিং। জাতীয় দল থেকে পাঁচ বছরের অনুপস্থিতির পরে শেষমেশ ইতি টেনেছেন কেরিয়ারে। আড়াই দশকের কাছাকাছি কেরিয়ারে সাফল্যের তুঙ্গে উঠেও হরভজনের বক্তব্য, আরও ভালভাবে কেরিয়ার শেষ করতে পারতেন তিনি। সেটাই তাঁর আপাতত আক্ষেপ।

দৈনিক জাগরণ-কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে হরভজন জানিয়েছেন, তাঁর কেরিয়ারের নানা অধ্যায়। সেই সঙ্গে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় কীভাবে তাঁকে সফল করার ক্ষেত্রে ভূমিকা নিয়েছিলেন, সেকথাও খোলাখুলি জানান তারকা।

আরও পড়ুন: কোহলি-সৌরভ সংঘাতে নীরবতা ভাঙলেন কাইফ, সরাসরি জানালেন কার পক্ষে তিনি

২০১১-য় বিশ্বকাপ জয়ের পরে হরভজনের কেরিয়ারের যেন ‘গ্রহণ’ শুরু হয়। ২০১২-য় হরভজন জাতীয় দলের কাছ থেকে আরও সাপোর্ট প্রত্যাশা করেছিলেন। তবে তা মেলেনি। সেই সমর্থন জুটলে ভাজ্জির আশা কেরিয়ারে ৫০০-৫৫০ উইকেট নিয়ে ফিনিশ করতে পারতেন।

“সমর্থন যতক্ষণ সঙ্গে থাকছে, ততক্ষণ ভাল লাগে। তবে সঠিক সময়ে আরও যদি ব্যাকিং পেতাম, তাহলে হয়ত ৫০০-৫৫০ উইকেট নিয়ে কেরিয়ার আগেই শেষ করতে পারতাম। কারণ যখন আমার ৩১ বছর তখনই ৪০০ উইকেট নিয়ে ফেলেছিলাম। সেই ফর্মে আরও তিন-চার বছর খেললে ৫০০-৫৫০ উইকেট পেতেই পারতাম।”

“তবে সেটা হয়নি। অনেক কারণ রয়েছে। সেসব খুঁড়তে শুরু করলে অনেক অপ্রীতিকর ঘটনা উঠে আসবে। যেটা আর চাইছি না।” বলেছেন হরভজন।

আরও পড়ুন: চড় খেয়ে হাউহাউ করে কেঁদেছিলেন! হরভজনের বিদায়ে মন খারাপ করা বার্তা সেই শ্রীসন্থের

৪০০ উইকেট পাওয়া বোলারের যে সম্মান প্রাপ্য, সেটাও জোটেনি। এমনটাই আক্ষেপ মিস্টার টার্বুনেটরের। সৌরভের অধিনায়কত্বে কেরিয়ার শুরুর পরে টিম ইন্ডিয়ার অপরিহার্য অংশ হয়ে ওঠেন তারকা। তবে ২০১২-র পরে ওলট পালট শুরু হয় ভাজ্জির কেরিয়ারে। রবিচন্দ্রন অশ্বিনের দ্রুত উত্থান আরও ব্যাকফুটে ঠেলে দেয় হরভজনকে। ২০১৬-য় পুরোপুরি বাদ পড়ার আগে বিক্ষিপ্তভাবে জাতীয় দলে জায়গা পাচ্ছিলেন।

হরভজন বলেছেন, “একজন বোলারকে তাঁর প্রাপ্য সম্মান দেওয়া উচিত। স্রেফ বলতে চাই, ২০০১-০২’এ সৌরভের সমর্থন পেয়েছিলাম। ২০১২-র পরে যদি একই সাপোর্ট পেতাম, তাহলে আরও ভালভাবে কেরিয়ার শেষ করতে পারতাম।”

এরপরেই হিন্দি এই প্রচারমাধ্যমে জাতীয় নির্বাচকদের একহাত নিয়েছেন, কোনও কারণ ছাড়াই তাঁকে বাদ দেওয়ার জন্য। ভাজ্জি বলেছেন, “খারাপ বোলিং করে কেউ ৪০০ উইকেটের মালিক হতে পারে না। ৪০০ উইকেট নেওয়া সত্ত্বেও তাঁকে যখন কোনও কারণ ছাড়াই বাদ দেওয়া হয়, তখন সমস্যা দেখা যায়। মাথায় অনেক কিছু ভিড় করে আসত তখন, অনেকের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেছি, তবে কেউ জবাব দেয়নি। নির্বাচক থেকে টিম ম্যানেজমেন্টের কেউই জানায়নি আমাকে কেন বাদ পড়তে হল।”

“আমি জিজ্ঞাসা করতাম, হঠাৎ করে কি আমার বোলিং এতটাই খারাপ হয়ে গেল যে বাদ পড়তে হচ্ছে, কেন আমাকে বারবার বাইরে রাখা হচ্ছে! কোনও জবাবই পাইনি। ৪০০ উইকেটের মালিকের সঙ্গেই যদি এরকম ঘটে, তাহলে ৪০ উইকেট প্রাপকদের তো পাত্তাই দেওয়া হবে না। একজন এত কিছু অর্জন করা সত্ত্বেও যেভাবে খারাপ ব্যবহারের শিকার , সেটাই ভারতীয় ক্রিকেটের খারাপ অধ্যায়।”

ক্রিকেট কেরিয়ারে ইতি টানার পরে ‘দ্বিতীয় ইনিংসে’ মহাতারকা স্পিনারকে কোন অবতারে দেখা যাবে, সেটা আপাতত সময়ই বলবে।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Get the latest Bengali news and Sports news here. You can also read all the Sports news by following us on Twitter, Facebook and Telegram.

Web Title: Harbhajan singh slams selectors for dropping him off team india without any reason

The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com