বড় খবর

বাড়িতে বসেই দর্শকরা থাকবেন স্টেডিয়ামে, আইপিএল নিয়ে বড় পরিকল্পনা স্টারের

আসন্ন অক্টোবর-নভেম্বরে টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজন একবারেই অনিশ্চিত। সেই বিশ্বকাপ বাতিল অথবা পিছিয়ে গেলে সেই উইন্ডোতে আইপিএল আয়োজনের পরিকল্পনা রয়েছে বোর্ডের।

ড্রয়িংরুমে উছ্বসিত পরিবারের সঙ্গে আইপিএল প্রেমীরা। সেই আনন্দ, হুল্লোড়ের এনিমেটেড ক্লিপিংসই এবার আইপিএল সম্প্রচারের কাজে লাগাতে পারে স্টার স্পোর্টস। করোনা ভাইরাস বদলে দিয়েছে প্রাত্যহিক জীবনে যাপন। খেলাধুলার জগতেও আসতে চলেছে বিশাল পরিবর্তন। ফাঁকা স্টেডিয়ামই ভবিতব্য হতে চলেছে ক্রীড়াবিদদের কাছে। এমন অবস্থায় সম্প্রচারের সময় নিত্যনতুন উদ্ভাবনী পরিকল্পনা রয়েছে স্টার স্পোর্টসের।

আইপিএল সহ ভারতের অধিকাংশ আন্তর্জাতিক ম্যাচ সম্প্রচার করে থাকে স্টার স্পোর্টসই। স্টার এবং ডিজনি ইন্ডিয়ার সিইও উদয়শঙ্কর ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস কে জানালেন, “প্রত্যেকের কাছে বর্তমানে মোবাইল ফোন রয়েছে। আমরা ড্রয়িংরুম থেকে তাদের ক্লিপিংস প্রচারের কাজে লাগাবো। এটা উদ্ভাবনী চ্যালেঞ্জ।”

ইউরোপের আসন্ন ফুটবল মরশুমে ফাঁকা স্টেডিয়ামে খেলতে হবে, এমনটা বিবেচনা করেই সিজিএই ফ্যান এবং দর্শকদের নকল কাঠবোর্ড লাগানো থাকবে স্টেডিয়ামে। তাদের থেকে আলাদা করে নতুন কিছু করতে চায় স্টার স্পোর্টস।

উদয়শঙ্কর বলছিলেন, “স্টেডিয়ামে দর্শকদের উপস্থিতি নিঃসন্দেহে একটা পরিবেশ তৈরি করে দেয়। তবে দর্শকদের অনুপস্থিতি নিয়ে আমরা একদমই ভাবিত নই। গ্রাফিক্স, কৃত্রিম অডিও এবং সাউন্ডের মাধ্যমে আমরা সেই আবহ ফিরিয়ে আনতে পারি।”

স্পেশাল এফেক্ট বরাবরই আইপিএলের অংশ। তবে স্টেডিয়ামে কোনো দর্শক দেখা যাবে না, এই বিষয়েই নতুন করে ভাবতে হচ্ছে স্টার স্পোর্টসকে। উদয়শঙ্কর জানালেন, “বাড়িতে বসে আইপিএলের যখন কোনো টানটান মুহূর্ত তৈরি হয়, সেই সময় কী আপনার মধ্যে কোনো টেনশনের অনুভূতি ফুটে ওঠে না? আমাদের যেটা করতে হবে সেটা ধরতে হবে। তাই তুমি বাড়িতে থেকেও টেলিভিশনের পর্দায় মুখ দেখাতে পারো। ২০ বছর আগে এমন পরিস্থিতি ছিল যেসময় কোনো ব্রডব্র্যান্ড তো বটেই কোনো স্মার্টফোন ছিল না। এখন প্রযুক্তির এই সুবিধা থাকা সত্ত্বেও সেই মুহূর্ত ফের হাজির হয়েছে।”

স্টারের পেশাদারি সাফল্যের কথা জানাতে গিয়ে তিনি আরো জানান, “হটস্টার যখন লঞ্চ করি, সেই সময় লক্ষ লক্ষ লোক বলেছিল তিন ইঞ্চির স্ক্রিনে কেন লোকে খেলা উপভোগ করবে। ব্যাট-বলের যুদ্ধ তো অনুভবই করা যাবে না। হটস্টার মোটেই সফল হবে না। তবে হটস্টার লঞ্চ করার পর বাকিটা ইতিহাস। এখন ১০০ মিলিয়ন লোক খেলা দেখে হটস্টারে। ”

আসন্ন অক্টোবর-নভেম্বরে টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজন একবারেই অনিশ্চিত। সেই বিশ্বকাপ বাতিল অথবা পিছিয়ে গেলে সেই উইন্ডোতে আইপিএল আয়োজনের পরিকল্পনা রয়েছে বিসিসিআইয়ের।

আইপিএলেই বিদেশিদের খেলানো নিয়ে কোনো আপত্তি নেই তাঁর। তিনি সাফ জানান, “আগে বিদেশিরা পাঁচ দিন আগে আসত। এখন দু সপ্তাহ আগে আসতে হবে। এবং অনেক সতর্ক থাকতে হবে।”

এমন দমবন্ধ করা পরিস্থিতি সবাই মানিয়ে নেবে ধীরে ধীরে। এমনটাই তিনি বলছেন। জমাচ্ছেন, “মানুষ ধীরে ধীরে এই অবস্থার সঙ্গে মানিয়ে নিতে অভ্যস্ত হয়ে পড়বে। লকডাউনের প্রথম দিনে সকলেই বলছিল মাস্ক ব্যবহার করলে নিঃশ্বাস নিতে অসুবিধা হচ্ছে। এখন তো সবাই মানিয়ে নিয়েছে।”

Get the latest Bengali news and Sports news here. You can also read all the Sports news by following us on Twitter, Facebook and Telegram.

Web Title: Home to become stadium as star sports prepares for new innovation

Next Story
পিছিয়ে গেল ভারতে মহিলাদের ফুটবল বিশ্বকাপ
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com