বড় খবর


শাহরুখের কেকেআরে যোগ দিয়েই ‘প্রতিজ্ঞা’ হরভজনের! উচ্ছ্বসিত নাইট শিবির

হরভজন সিংকে নিলামের আগেই রিলিজ করে দিয়েছিল সিএসকে। তারপরে কেকেআর বর্ষীয়ান স্পিনারকে কেনে নিলামে।

অভিজ্ঞতা ক্রিকেটারদের সম্পদ। তবে ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেটে অভিজ্ঞার থেকে মূল্য বেশি দেওয়া হয় বর্তমান পারফরম্যান্সকে। তা হাড়ে হাড়েই নিলামে টের পেয়েছেন হরভজন সিং।

গত মরশুমে ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে আইপিএল থেকে নিজের নাম তুলে নিয়েছিলেন। তারপরেই হরভজনকে নিলামের আগে রিলিজ করে দেয় সিএসকে। নিলামে প্রথম রাউন্ডে অবিক্রিত ছিলেন তিনি। শেষ পর্যন্ত ভাজ্জিকে তাঁর বেস প্রাইস ২ কোটি টাকাতেই কেনে কেকেআর। টারবুনেটরকে স্কোয়াডে নিয়েই কেকেআর টুইট করেছিল, “একজন সিরিয়াল উইনার আরো সাফল্যের খোঁজে। ভাজ্জির আগমনে আমরা সবাই খুশি।”

আরো পড়ুন: ভাই অর্জুন মুম্বই ইন্ডিয়ান্সে! আনন্দে আত্মহারা দিদি সারা, দিলেন বিশেষ বার্তা

তাঁকে শেষ পর্যন্ত নেওয়ায় হরভজন ধন্যবাদ জানিয়েছেন ইয়ন মর্গ্যানের নেতৃত্বাধীন দলকে। টুইট করে তারকা স্পিনার বলেছেন, “সোনালি বেগুনি জার্সিতে আরো একবার ট্রফি জেতার অপেক্ষায় রইলাম। আমার কাছ থেকে কেকেআর সবসময় ১০০ শতাংশ আনুগত্য। পাবে। খুব শীঘ্রই দেখা হচ্ছে।”

২০১৮ সালে সিএসকের দারুণ পারফরম্যান্স এর পিছনে অন্যতম কারণ ছিলেন হরভজন। ১৬টি উইকেট দখল করেন সেই সংস্করণে। ১৫০ উইকেট নিয়ে তিনি আইপিএলে ভারতীয় বোলারদের মধ্যে তৃতীয় সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি। আইপিএলে কেবলমাত্র অমিত মিশ্র (১৬০) এবং পীযুষ চাওলার (১৫৬) বেশি উইকেট রয়েছে হরভজনের থেকে।

সিএসকে ছাড়াও হরভজন মুম্বই ইন্ডিয়ান্স দলে খেলেছেন টানা ১০ বছর। আইপিএলে মুম্বই ইন্ডিয়ান্স দলে কেরিয়ার শুরু করার পর সিএসকেতে তিনি যোগ দেন ২০১৮ সালে। দুই দলে চারবার আইপিএল জিতেছেন তিনি- ২০১৩, ২০১৫, ২০১৭, ২০১৮।

২০১৬ সালের পর থেকে জাতীয় দলের বাইরে হরভজন। বর্তমানে ঘরোয়া ক্রিকেট খেলেননা। শেষবার তাঁকে মাঠে দেখা গিয়েছিল ২০১৯ সালে আইপিএলের ফাইনালে। ক্রিকেটের সঙ্গে কার্যত কোনো সংস্রব না থাকা হরভজন নিজের প্রতিজ্ঞা পূরণ করতে পারেন কিনা, সেটাই দেখার।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Web Title: Ipl auction 2021 harbhajan singh expresses gratitude towards shah rukh khan owned kkr franchise

Next Story
ভাই অর্জুন মুম্বই ইন্ডিয়ান্সে! আনন্দে আত্মহারা দিদি সারা, দিলেন বিশেষ বার্তা
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com