scorecardresearch

বড় খবর

বড়সড় অপমান রাজস্থানকে! IPL সম্প্রচারকারী সংস্থাকে তুলোধোনা স্যামসনের স্ত্রীর, তুঙ্গে বিতর্ক

আরসিবিকে হারিয়ে ফাইনালে পৌঁছেছে রাজস্থান রয়্যালস। এরপরেই আইপিএলে ব্রডকাস্টারকে সূক্ষ্ম খোঁচা স্যামসনের স্ত্রীর।

২০০৮-এর উদ্বোধনী আইপিএলের পর এই প্রথমবার ফাইনালে পৌঁছেছে রাজস্থান রয়্যালস। শুক্রবার আহমেদাবাদের নরেন্দ্র মোদি স্টেডিয়ামে আরসিবিকে সাত উইকেটে পর্যুদস্ত করে ফাইনালে ওঠার টিকিট নিশ্চিত করেছে সঞ্জু স্যামসনের দল। গোটা টুর্নামেন্ট জুড়েই ধারাবাহিকভাবে ভালো খেলে লিগ পর্বে দ্বিতীয় হয়ে প্লে অফে উঠেছিল। প্ৰথম কোয়ালিফায়ারে গুজরাটের কাছে হেরে গেলেও দ্বিতীয় সুযোগে আর ভুল করেনি গোলাপি জার্সিধারীরা। ফাইনালে ট্রফি জয়ের সঙ্গে গুজরাটের বিরুদ্ধে প্রতিশোধ নেওয়ার তাগিদও রয়েছে রাজস্থানের।

টুর্নামেন্ট শুরুর আগে খাতায় কলমে শক্তিশালী দল হলেও টুর্নামেন্টের ট্র্যাকরেকর্ডের জন্য কেউ কার্যত পাত্তাই দেয়নি সঞ্জু স্যামসনদের। ফেভারিট হিসাবে ধরা হয়নি রাজস্থানকে।

আরও পড়ুন: রবিবার IPL চ্যাম্পিয়ন পাবে কোটি কোটি টাকা! রানার্স সহ বাকি দলের ভাগ্যেও রয়েছে বিশাল অর্থ

আইপিএল শুরুর আগে সম্প্রচারকারী স্টার সংস্থা সম্ভাব্য ট্রফি জয়ী দলদের নিয়ে একটি এনিমেশন কোলাজ বানিয়েছিল। যেখানে রাজস্থানকে রাখা হয়নি।

পুরোনো সেই কোলাজ এবার নিজের ইন্সটা-স্টোরিতে শেয়ার করে একহাত নিলেন রাজস্থান ক্যাপ্টেন সঞ্জু স্যামসনের স্ত্রী চারুলতা। সেই কোলাজে বড় বড় করে মুম্বই ইন্ডিয়ান্স এবং চেন্নাইকে সামনে রাখা হয়েছিল। অন্যান্য দল-ও ছিল। তবে ছিল না একমাত্র রাজস্থান রয়্যালসই।

নিজের ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে সেই ছবি পোস্ট করে চারুলতা লিখলেন, “এই এনিমেটেড ভিডিওটা দেখলাম। আইপিএল ২০২২-এর প্ৰথম দিনেই এই ভিডিও পোস্ট করা হয়েছিল। তবে অবাক লাগছে কোনও গোলাপি জার্সি খুঁজে না পেয়ে।”

যাইহোক, এর আগে একবার-ই ফাইনালে পৌঁছেছিল রাজস্থান রয়্যালস। ২০০৮-এ প্ৰথম মরশুমে চ্যাম্পিয়ন দলের সামনে পুরোনো ইতিহাসকে ছোঁয়ার চ্যালেঞ্জ। হার্দিক পান্ডিয়ার দলকে হারিয়ে সঞ্জু স্যামসন শ্যেন ওয়ার্নের সঙ্গে নিজের নাম খোদাই করতে পারেন কিনা, সেটাই আপাতত দেখার।

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Ipl news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Ipl 2022 final rr vs gt sanju samson wife charulatha slams broadcaster for animation teaser