scorecardresearch

গুয়ার্দিওলার স্ট্র্যাটেজি কি এবার ফেরান্দোর বাগানে! মেসির পজিশনে হয়ত পেত্রাতোস

এটিকে মোহনবাগানে এবার একজনও সেন্ট্রাল ফরোয়ার্ড নেই। দলের ফর্মেশন সাজানো নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে।

শনিবারই ডুরান্ড এবং সিএফএল যুদ্ধে নামার আগে মাঠে নামছে এটিকে মোহনবাগান। মিনি ডার্বিতে মুখোমুখি মহামেডানের বিপক্ষে নৈহাটি গোল্ড কাপে।

ডুরান্ডে এটিকে মোহনবাগান অংশ নিলেও কলকাতা লিগে সবুজ মেরুন শিবিরকে দেখা যাবে কিনা, তা নিয়ে যথেষ্ট সংশয় রয়েছে। কারণ এএফসি কাপের পরবর্তী পর্যায়ে নামার জন্য প্রস্তুতি সেরে রাখতে হবে হুয়ান ফেরান্দো বাহিনীকে। ঘটনা হল, এটিকে মোহনবাগান এবার নিজেদের স্কোয়াড খোলনলচে বদলে ফেলেছে। একসঙ্গে চারজন বিদেশি ডিফেন্ডারকে সই করিয়েছে। তিরি, কার্ল ম্যাকহিউ তো রয়েছেন। সেই সঙ্গে নতুন তারকা হিসাবে সংযোজন ঘটেছে ব্রেন্ডন হ্যামিল, ফ্লোরেন্তিন পোগবার। এএফসি কাপ এবং আসন্ন আইএসএল-এ রক্ষণ সংগঠন অটোসাঁটো করতেই স্প্যানিশ কোচ এবার নতুন দুই স্টপারকে সংযোজন করেছেন।

আরও পড়ুন: মোহনবাগানের প্রাক্তন বিদেশিকে প্রত্যাখ্যান ইস্টবেঙ্গলের! দুই প্রধানে খেলা হল না সুপার ফরোয়ার্ডের

দল ছেড়ে চলে গিয়েছেন একাধিক তারকা। সাইড ব্যাক প্রবীর দাস তো বটেই এবার সবুজ মেরুন জার্সিতে দেখা যাবে না রয় কৃষ্ণ, ডেভিড উইলিয়ামসের মত তারকাদেরও। মাত্র কয়েকদিন আগে ক্লাবের তরফে জানানো হয়েছে সন্দেশ ঝিংঘানও এর থাকবেন না।

রয়-ডেভিড দল ছাড়ার পরে ভাবা হয়েছিল একজন বক্স স্ট্রাইকার নেবে এটিকে মোহনবাগান শিবির। তবে ফেরান্দো এবার সই করিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার দিমিত্রি পেত্রাতোসকে। তবে এ লিগে সাফল্যের সঙ্গে খেলা পেত্রাতোস একদমই প্রথাগত স্ট্রাইকার নন। উইথড্রয়াল পজিশনেই তিনি বেশি স্বচ্ছন্দ।

পেত্রাতোসের অন্তর্ভুক্তির পরে প্রশ্ন উঠে গিয়েছে, তাহলে কি বিদেশি স্ট্রাইকার ছাড়াই এবার স্বদেশীদের নিয়ে আক্রমণ সাজাবেন স্প্যানিশ কোচ।

এমনিতেই লিস্টন কোলাসো এবং মনবীর সিং স্ট্রাইকার হিসাবে বেশ সফল। জাতীয় দলে কোচ স্টিম্যাচের সিস্টেমেও দারুণভাবে খাপ খেয়ে গিয়েছেন দুই তারকা। তবে ঘটনা হল, দুজনকে একদম আপফ্রন্টে ঠেলে দিলে এটাকিং থার্ডে সৃজনশীলতার অভাব ঘটতে পারে। লিস্টন এবং মনবীর দুজনেই ভালো শুটার। লং রেঞ্জের আচমকা শট নিয়ে প্রতিপক্ষ রক্ষণকে নাস্তানাবুদ করতে পারেন।

আরও পড়ুন: ভিকুনার বাগানে আইলিগ চ্যাম্পিয়ন, দ্রুততম গোলের মালিক! ভারতে ফিরে তারকা বিদেশির সই পুরোনো ক্লাবেই

তবে একদম বক্স স্ট্রাইকার হিসাবে দুজনকে ব্যবহার করলে দুজনের সৃজনশীল ফুটবলে তা বাধা হতে দাঁড়াতে পারে। স্কোয়াডে রয়েছেন কিয়ান নাসিরি। গতবার ডার্বি ম্যাচের হ্যাটট্রিক হিরো। তবে তাঁর মত অনভিজ্ঞকে আইএসএলে বড়সড় পরীক্ষার সামনে ফেলবেন না কোচ ফেরান্দো।

সবমিলিয়ে এবার ফেরান্দো স্ট্রাইকার-বিহীন ফর্মুলায় দল সাজাতে পারেন। যেখানে কোনও বক্স স্ট্রাইকার ছাড়াই নামতে দেখা যেতে পারে সবুজ মেরুন তারকাদের। সেক্ষেত্রে ফলস নাইন পজিশনে ফেরান্দোর তুরুপের তাস হতে পারেন পেত্রাতোস।

লিস্টন, মনবীররা যেমন দুই প্রান্ত ধরে আক্রমণ শানাবেন, তেমনই হুগো বৌমাস, জনি কাউকোদের কাছে মাঝমাঠ শাসনের দায়িত্ব থাকবে। ডিফেন্সিভ স্ক্রিন হিসাবে খেলানো হতে পারে ফ্লোরেন্টিন পোগবাকে।

আরও পড়ুন: ইস্টবেঙ্গল প্রাক্তনী, টানা দু-বার আইলিগ চ্যাম্পিয়ন! প্ৰথমবার সই করলেন ISL-এ

ফলস নাইন ফর্মুলায় এক দশক আগে ফুটবল বিশ্বে বিপ্লব এনে দিয়েছিলেন পেপ গুয়ার্দিওলা। বার্সেলোনায় মেসিকে তারকা থেকে মহাতারকা করে দিয়েছিল গুয়ার্দিওলার এই স্ট্র্যাটেজি। তিকিতাকার মত এই ফুটবল বিপ্লবের আমদানি ঘটতে পারে এবার ভারতেও। স্প্যানিশ কোচের হাত ধরেই।

ডুরান্ড তো বটেই নৈহাটি গোল্ড কাপ ম্যাচেও এই স্ট্র্যাটেজি কতটা কার্যকর হবে, তা ঝালিয়ে নেওয়ার সুযোগ থাকছে ফেরান্দোর সামনে।

ফেরান্দো গুয়ার্দিওলা হবে উঠতে পারবেন কিনা, মেসির ঝলক পেত্রাতোসের পায়ে দেখা যাবে কিনা, তার উত্তর আপাতত সময়ই দেবে।

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Sports news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Isl atk mohun bagan juan ferrando false nine position dimitri petratos