scorecardresearch

বড় খবর

রাস্তার লোকের সঙ্গে খাবার ভাগ পুলিশের, প্রশংসায় যুবরাজ

করোনার মোকাবিলায় ভারতে আপাতত লকডাউন চলছে। ভাইরাসের হামলায় গোটা বিশ্বের মতো আক্রান্ত ভারতও। ইতিমধ্যেই এক মিলিয়নের বেশি লোক এই ভাইরাসের কবলে। প্রতিদিনই বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা।

রাস্তার লোকের সঙ্গে খাবার ভাগ পুলিশের, প্রশংসায় যুবরাজ

যুবরাজ সিং নিজের ইনস্টাগ্রামে ভিডিও শেয়ার করে পুলিশের প্রশংসায় এবার মাতলেন। ভাইরাল হওয়া ভিডিওয় দেখা যাচ্ছে একজন পুলিশ নিজের খাবার এক দরিদ্রের সঙ্গে ভাগ করে নিচ্ছেন। ৩ মিনিট ৩০ সেকেন্ডের সেই ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশ সাড়া ফেলেছে। সেখানে দেখা যাচ্ছে, কয়েকজন পুলিশ একজন রাস্তার মানুষকে খাবার খাওয়াচ্ছেন।

যুবরাজ সেই ভিডিও পোস্ট করেই নিজের সোশ্যাল মিডিয়া একাউন্টে লিখলেন, “পুলিশ যে মানবিকতার কাজ করছে তা দেখলে হৃদয় জুড়িয়ে যায়। কঠিন সময়ে দরিদ্রদের জন্য এমন দয়ালু ব্যবহারের জন্য অনেক শ্রদ্ধা রইলো।” এই ভিডিও শেয়ার করে যুবি হ্যাশট্যাগে ‘স্টে হোম স্টে সেফ’ এবং ‘বি কাইন্ড’ শব্দ বন্ধনীও জুড়ে দিয়েছেন।

করোনার মোকাবিলায় ভারতে আপাতত লকডাউন চলছে। ভাইরাসের হামলায় গোটা বিশ্বের মতো আক্রান্ত ভারতও। ইতিমধ্যেই এক মিলিয়নের বেশি লোক এই ভাইরাসের কবলে। প্রতিদিনই বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। এমন অবস্থায় দেশবাসীকে রাস্তায় না বেরিয়ে সামাজিক সংস্রব এড়ানোর পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে প্রতিনিয়ত।

এমন অবস্থায় দেশের এলিট ক্রীড়াবিদদের সঙ্গে আলোচনায় বসেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ৪০জন ক্রীড়াবিদদের মধ্যে ছিলেন যুবরাজও।

তার আগে যুবরাজ অবশ্য বিতর্ক বাড়িয়েছেন পাকিস্তানে শাহিদ আফ্রিদির সংস্থায় দান করার বার্তা দিয়ে। নেটিজেনদের প্রবল সমালোচনার মুখে পরে যুবি পরে লেখেন, বুধবারে যুবরাজ টুইট করে নিজের পাল্টা ক্ষোভ উগরে দেন, “দরিদ্রদের সাহায্য করার বার্তা কিভাবে অন্যভাবে তুলে ধরা হয়, তা আমার কাছে এখনও বোধগম্য নয়। আমার উদেশ্য ছিল একটাই, সেই বার্তার মাধ্যমে প্রতিবেশী দেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা যেন আরো সাহায্য করে দরিদ্রদের। কাউকে আঘাত করার উদ্দেশ্যে টুইট করিনি।”

এর সঙ্গে তিনি আরো লেখেন, “আমি সবার আগে একজন ভারতীয়, ব্লিড ব্লু। এবং সর্বদাই মানবতার পক্ষে দাঁড়াবো। জয় হিন্দ।”

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Sports news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Yuvraj singh praises policeman for sharing food with poor people