scorecardresearch

বড় খবর

Samsung Galaxy Note কিনবেন নাকি iPhone XS Max কিনবেন ?

স্যামসাংয়ের এর এই মূহুর্তে টপ ক্লাস ফোন Note 9, অন্যদিকে কম যায় না iPhone XS Max। বলাই যায়, গ্যাজেট দুনিয়ায় সেরা ফোনের তালিকায় এই দুই ফোনের অবস্থান কিন্তু শীর্ষে।

গাঁটের কড়ি খরচ করে স্যামসাংয়ের গ্যালাক্সি নোট নাইন কিনবেন নাকি অ্যাপেলের আইফোন এক্স এস ম্যাক্স, এই নিয়ে দ্বন্দ্ব শুরু হয়েছে অ্যাপেল লঞ্চের পর। স্যামসাংয়ের এর এই মূহুর্তে টপ ক্লাস ফোন এটি, অন্যদিকে কম যায় না আইফোন এক্স এস ম্যাক্স। বলাই যায়, গ্যাজেট দুনিয়ায় সেরা ফোনের তালিকায় এই দুই ফোনের অবস্থান কিন্তু শীর্ষে। কিন্তু তালগোল পাকিয়ে যাওয়ার আগে দেখে নিন ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলার এই প্রতিবেদন।

Apple iPhone XS Max vs Samsung Galaxy Note 9: Similarities

ট্রেন্ড মেনে অবশ্যই রয়েছে বড় স্ক্রিন। প্রায় ৬.৫ ইঞ্চি সাইজ iPhone XS Max এর স্ক্রিন, পাশাপাশি ৬.৪ ইঞ্চি Note 9 এর স্ক্রিন। খুব একটা যে তফাৎ চোখে পড়বে এমনটা একেবারেই নয়। তবে উল্লেখ্য iPhone XS Max ফোনটিতে রয়েছে নচ ডিজাইন, যা Note 9 এ নেই। দুটো ফোনেই AMOLED স্ক্রিন থাকলেও পিক্সেল বেশি Note 9 এর।

ওজন দুই ফোনেরই সমান। দুই ফোনেরই রয়েছে ওয়ারলেস চার্জিং সিস্টেম, সঙ্গে গ্লাস ব্যাক। ধুলোবালি থেকে রক্ষার জন্য রয়েছে অতিরিক্ত নিরাপত্তা। যদিও ফোনটি জলে পড়ে গেলেও ভালোভাবে চলবে তার গ্যারান্টি দেওয়া যাচ্ছে না।

Apple iPhone XS Max vs Samsung Galaxy Note 9: Differences

অবশ্যই অপারেটিং সিস্টেমে রয়েছে পার্থক্য, অ্যাপেলের iOS 12 ও Note 9 এর অ্যান্ড্রয়েড, তবে এতে স্যামসাংয়ের নিজস্ব কারুকার্য তো আছে বটেই। যেকোনো অ্যাপ বিনামূল্যেই ডাউনলোড করতে পারবেন আপনি Note 9 এর ক্ষেত্রে। iPhone XS Max এর ক্ষেত্রে কিন্তু তা হবে না।

ডিসপ্লের মধ্যে পিক্সেলে ফারাক রয়েছে

অন্য বড় পার্থক্য রয়েছে প্রসেসরের ক্ষেত্রে। অ্যাপল আইফোন এক্সএস ম্যাক্সে সর্বশেষ আপডেটেড A12 বায়োনিক প্রসেসর দিয়েছে ফোনটিতে। নতুন 7nm চিপ দ্রুত গতিতে ফোন ব্যবহারের উপলব্ধি দেবে। তুলনামূলকভাবে, Note 9 এ Exynos 9810 যা একটি শক্তিশালী প্রসেসর, তবে নতুন A12 বায়নিকের তুলনায় কমজোরি। দুটি ফোন ব্যবহার করলেই সেই পার্থক্য টের পাওয়া যাবে।
Note 9 ফোনটিতে রয়েছে ৮ জিবি র‌্যাম ও আইফোনে ৪ জিবি র‌্যাম।

Note 9 ও iPhone XS Max এর মধ্যে রয়েছে স্টোরেজ ফারাক। দুটো ফোনেই রয়েছে ৫১২ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজ। তবে Note 9 এর এক্সটারনাল স্টোরেজ রয়েছে যা আইফোনের কোনোকালেই ছিল না। গ্রাহকদের মূল আকর্ষণ থাকে ছবির মান এবং ভিডিওর মান কতটা উন্নত তার প্রতি।

নোট নাইনের পিছনে রয়েছে আনলক করার জন্য ফিঙ্গারপ্রিণ্ট সেন্সর

উভয় ফোনেই রয়ছে ১২ মেগাপিক্সেলের (ওয়াইড) + ১২ মেগাপিক্সেলের (টেলিফোটো) ডুয়াল ক্যামেরা সেটআপ। যখন আপনি একই সঙ্গে ক্যামেরাগুলি দিয়ে একই বিষয়ের ফটো তুলবেন, তার ফলাফলের পার্থক্য চোখে পড়বে।

iPhone XS Max ফটো সূক্ষ্ম, এবং যা দেখছেন তাই হুবহু ক্যামেরায় দেখতে পারবেন। Note 9 এর ক্ষেত্রে একটু কারুকার্য রয়েছে। ছবিতে অতিরিক্ত রঙ চোখে পড়বে, অর্থাৎ প্রাকৃতিক সবুজ ছবিতে আরও বেশি গাঢ় ও উজ্জ্বল সবুজ দেখাবে। অন্ধকারে ছবি তোলার ক্ষেত্রে Note 9 ফোনটি বেশ ভাল কাজ দেয়। ফোনটির আরেকটি ইউএসপি হল একটি ক্যামেরায় ডুয়াল অ্যাপারচার। বিভিন্ন রকম লাইটে ফোনটির ক্যামেরা একেবারে সেরা পারফরম্যান্স দিতে প্রস্তুত। তার জন্য কোনওরকম অতিরিক্ত ম্যানুয়াল সেটিংয়ের বা আলোর কমবেশি নিয়ে অতিরিক্ত ভাবনাচিন্তার প্রয়োজন হবে না। দুটি অ্যাপারচার থাকার কারণে কম থেকে অতিরিক্ত আলো, সব পরিস্থিতিতেই নিজে থেকে ক্যামেরা বদলে নেবে অ্যাপারচারের মোড।

৪০০০ এমএইচের ব্যাটারি ব্যাকআপে এগিয়ে আছে Note 9। অন্যদিকে iPhone XS Max রয়েছে ৩১৭৪ এমএইচের ব্যাটারি। কিন্তু কার্যত দুটোর ক্ষমতা প্রায় সমানই।

Apple iPhone XS Max vs Samsung Galaxy Note 9: The killer feature

এখন, Samsung galaxy Note 9 এ এমন কিছু আছে যা অন্য কোনও ফোন নেই, এমনকি iPhone XS Max এও নয়; ফোনের মূল আকর্ষণ S Pen। যার মধ্যে রয়েছে একাধিক ফিচার। বলাই যায় S Pen ফোনটির ট্রিগার। যা প্রেস করলেই আপনার একাধিক কাজ সারা হয়ে যাবে। কোম্পানির দাবি, তারা S Pen শুধু স্টাইলাস নয়, রিমোট কন্ট্রোল বানিয়ে তুলেছে। ক্যামেরা হোক বা ভিডিও, সব কিছুই দূর থেকেই পরিচালনা করতে পারবেন আপনি। ফোনটিকে কয়েক হাত দূরে রেখে S Pen দিয়ে ছবি তুলতেও পারবেন আপনি।

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Technology news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Apple iphone xs max vs samsung galaxy note