scorecardresearch

বড় খবর

আপত্তিকর বিষয়বস্তু, ক্ষতিকারক কনটেন্ট নিয়ে আরও কঠোর কেন্দ্র, তিন মাসেই গঠিত হবে বিশেষ কমিটি

টুইটার, ফেসবুক, ইউটিউব এবং ইনস্টাগ্রামের মতো সামাজিক প্ল্যাটফর্মগুলিকে ভারতের সংবিধানের বিধান এবং দেশের সার্বভৌমত্বের নিয়মগুলি মেনে চলতে হবে।

আপত্তিকর বিষয়বস্তু, ক্ষতিকারক কনটেন্ট নিয়ে আরও কঠোর কেন্দ্র, তিন মাসেই গঠিত হবে বিশেষ কমিটি
সোশ্যাল মিডিয়ার বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ শুনতে কমিটি গঠন করতে চলেছে কেন্দ্র

 সোশ্যাল মিডিয়ার বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ শুনতে কমিটি গঠন করতে চলেছে কেন্দ্র, আগামী তিন মাসেই গঠিত হবে এই কমিটি। ভারত সরকার আইটি (ইন্টারমিডিয়ারি গাইডলাইনস এবং ডিজিটাল মিডিয়া এথিক্স) নিয়মে বড়সড় পরিবর্তন আনতে চলেছে। সংশোধিত নিয়ম অনুসারে, টুইটার, ফেসবুক, ইউটিউব এবং ইনস্টাগ্রামের মতো সামাজিক প্ল্যাটফর্মগুলিকে ভারতের সংবিধানের বিধান এবং দেশের সার্বভৌমত্বের নিয়মগুলি মেনে চলতে হবে।

কেন্দ্র শুক্রবার আইটি নিয়মে বেশ কিছু পরিবর্তন এনেছে এবং সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মে উপলব্ধ কনটেন্ট এবং অন্যান্য সমস্যা সম্পর্কিত অভিযোগের সন্তোষজনক নিষ্পত্তির জন্য আগামী তিন মাসের মধ্যে একটি কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্র। এই কমিটি মেটা এবং টুইটারের মতো সোশ্যাল মিডিয়া সংস্থাগুলির বিষয়বস্তুর নিয়ন্ত্রণ সংক্রান্ত সিদ্ধান্তগুলি পর্যালোচনা করতেও সক্ষম হবে।

শুক্রবার জারি করা গেজেট বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী তিন মাসের মধ্যে সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মের অভিযোগ শোনার জন্য এক বা একাধিক কমিটি গঠন করা হবে। প্রতিটি কমিটিতে তিন জন করে সদস্য থাকবেন এবং তিন মাসের মধ্যেই গঠন করা হবে এই কমিটি। এই আপিল কমিটি গঠনের জন্য তথ্য প্রযুক্তি (ইন্টারমিডিয়েট গাইডলাইনস এবং ডিজিটাল মিডিয়া পলিসি কোড) ২০২১-এ বেশ কিছু পরিবর্তন করা হয়েছে। 

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, “কেন্দ্রীয় সরকার, তথ্য প্রযুক্তি (ইন্টারমিডিয়েট গাইডলাইনস এবং ডিজিটাল মিডিয়া কোড অফ কন্ডাক্ট) ২০২২, শুরু হওয়ার দিন থেকে তিন মাসের মধ্যে, এক বা একাধিক কমিটি গঠন করবে।” কমিটি কেন্দ্রীয় সরকার কর্তৃক নিযুক্ত একজন চেয়ারপার্সন এবং দুজন সদস্য নিয়ে গঠিত হবে এই কমিটি ।

আরও পড়ুন : [ নিখোঁজ ‘সাধের পোষ্য’, উদ্ধারে ত্রাতা কলকাতা পুলিশ! ]

এই বিশেষ কমিটি গঠনের কেন্দ্রের সিদ্ধান্ত নিয়ে টুইট করেছেন কেন্দ্রীয় তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণব। টুইটবার্তায় তিনি লেখেন, ‘‘সোশ্যাল মিডিয়ায় আপত্তিকর বিষয়বস্তু ও অন্যান্য ইস্যু খতিয়ে দেখতে এবং অভিযোগ শোনার জন্য চালু করা হচ্ছে ‘গ্রিভান্স আপিল কমিটি’ (জিএসি)। এই কমিটি সোশ্যাল মিডিয়ার বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ শুনবে এবং তা তদন্ত করবে।

সংবাদ সংস্থা পিটিআই জানিয়েছে, সংশোধিত নিয়ম অনুসারে, টুইটার, ফেসবুক, ইউটিউব এবং ইনস্টাগ্রামের মতো সামাজিক প্ল্যাটফর্মগুলিকে ভারতের সংবিধানের বিধান এবং দেশের সার্বভৌমত্বের নিয়মগুলি মেনে চলতে হবে। আপত্তিকর কোন বিষয়বস্তু, ক্ষতিকারক কনটেন্ট নিয়ে সাধারণ মানুষ ‘গ্রিভান্স আপিল কমিটি’র কাছে অভিযোগ জানাতে পারবেন।

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Technology news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Centre to set up social media grievance panels in 3 months