scorecardresearch

বড় খবর

Pegasus-এর হানা! কতটা নিরাপদ আপনার সাধের আইফোন?

Project Pegasus Spyware: Pegasus spyware খুব নির্দিষ্ট সংখ্যক আইফোন ব্যবহারকারীদের টার্গেট করে তাঁদের ফোনে পাঠানো হয়েছিল।

Phones of 2 Ministers 3 Opp leaders among many targeted for spyware pegasus surveillance
রিপোর্টে জানা গেছে, মুলত হোয়াটসঅ্যাপ, মেসেজ ইত্যাদির মধ্যে দিয়ে পাঠানো একটি লিঙ্কের সাহায্যে পেগাসাসকে ডিভাইসে প্রবেশ করানো হয়।

আইফোনগুলি, অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনের চেয়ে অনেক বেশি সুরক্ষিত বলে মনে করা হয়। সুরক্ষা এবং গোপনীয়তার প্রশ্নে অ্যাপল বরাবরই সতর্ক থাকে। ব্যবহারকারীর মেসেজ, তথ্য এবং ডেটা সম্পূর্ণ সুরক্ষিত আইফোনগুলিতে, এরকমই ধারণা ছিল বড় অংশের আইফোন ব্যবহারকারীদের মধ্যে। সংস্থাটি বারবার নিরাপত্তার প্রশ্নে ব্যবহারকারীদের আশ্বস্ত করেছে।

একদমই সঠিক, কিন্তু আইফোনকে হ্যাক করা যায় না, বিষয়টি হয়তো একেবারেই সেরকম নয়। অন্তত Pegasus spyware-এর বিষয়টি সামনে আসার পর এরকম মনে করার আর হয়তো কোন কারণ থাকবে না। Pegasus spyware খুব সহজেই আইফোনে থাকা তথ্য, ডেটা, কল লগ-সহ ফোনের যাবতীয় বিষয়গুলি হ্যাক করতে পারে। ‘zero-click iMessage’ –এর সাহায্যে হ্যাকাররা খুব সহজেই আপডেটেড ‘iOS 14.6’-সহ আইফোন গুলিতে Pegasus spyware প্রবেশ করাতে পারে যার মাধ্যমে মুহূর্তেই আইফোনে থাকা সকল তথ্য হ্যাকারদের কাছে সহজেই চলে যেতে পারে।

Pegasus spyware খুব নির্দিষ্ট সংখ্যক আইফোন ব্যবহারকারীদের টার্গেট করে তাঁদের ফোনে পাঠানো হয়েছিল। আইফোন ব্যবহারকারী এক বড় অংশের ফোনের তথ্য, ডেটা-সহ সকল বিষয় এখনও সম্পূর্ণ ভাবেই নিরাপদ রয়েছে। তবে যে আইফোন গুলিতে spyware-এর অস্তিত্ব পাওয়া গেছে, সেগুলিকে হ্যাকারদের থেকে সম্পূর্ণ নিরাপদ করতে সংস্থা উপযুক্ত পদক্ষেপ নেবে বলে এক বিবৃতে জানিয়েছে আইফোন প্রস্তুতকারী সংস্থা অ্যাপল।

আরও পড়ুন স্মার্টফোনে Pegasus-এর হানা! জানেন কী সর্বনাশ করতে পারে আপনার?

অ্যাপলের আইওএসটি (ISO) বিশ্বের সর্বাধিক সুরক্ষিত প্ল্যাটফর্ম হিসাবে বিশ্বাস করা হয় এবং অ্যাপল গ্রাহকদের এই বিশ্বাসকে ধরে রাখতে বদ্ধপরিকর। এক দশকেরও বেশি সময় ধরে অ্যাপল তার লক্ষ লক্ষ গ্রাহকের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করে আসছে। ভবিষ্যতেও তা অক্ষুণ্ণ থাকবে বলেই আশাবাদী সংস্থা। অ্যাপল, ব্যবহারকারীর গোপনীয়তা নিশ্চিত করতে অনেক পদক্ষেপ নিয়েছে। বর্তমানে কোন অ্যাপস অ্যাকসেস করতে গেলেই তাতে ব্যবহারকারীর অনুমতি লাগবে।

সাইবার বিশেষজ্ঞ ‘দিমিত্রি গালভ’এর কথায় এখন গোপনীয়তার থেকেও বড় বিষয় ‘সাইবার সিকিউরিটি’ spyware-কে কোন ফোনে প্রবেশ করানো হলে তাতে ব্যবহারকারীর কোনও অনুমতির প্রয়োজন হয় না কারণ এই ম্যালওয়ারটিকে সেভাবেই ডিজাইন করা হয়েছে। সকল বিষয়কে নজরে রেখে নিরাপত্তার দিকটি ঢেলে সাজাতে চাইছে অ্যাপল। এরমধ্যেই অ্যাপল তাদের সমস্ত ফোনে বিশেষ ‘সিকিউরিটি আপডেট’ লিঙ্ক পাঠিয়েছে। শুধুমাত্র নতুন ফোন গুলিতেই নয়, এমনকি অ্যাপলের সকল পুরনো ফোনেও‘সিকিউরিটি আপডেট’ লিঙ্ক পাঠানো হয়েছে বলে সংস্থা দাবি করেছে।

আরও পড়ুন Pegasus-এর অপব্যবহার বন্ধের পক্ষে জোরালো সওয়াল WhatsApp প্রধানের

অ্যাপল এক বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছে, সিলিকন এবং ব্লাস্টডোরের মতো যে আধুনিক সুরক্ষা সফ্টওয়্যার আইফোন গুলিতে রয়েছে সেগুলো আরও উন্নত এবং শক্তিশালী করার লক্ষে অ্যাপল ‘সিকিউরিটি টিম’ রাতদিন অক্লান্ত পরিশ্রম করে চলেছে। অ্যাপল ‘সিকিউরিটি ইঞ্জিনিয়ারিং ও আর্কিটেকচারের’ প্রধান ইভান ক্রিস্ট বলেন, “এক দশক ধরে অ্যাপল মোবাইল গুলিকে সঠিক সুরক্ষা সংক্রান্ত বিষয়ে নেতৃত্ব দিয়েছে এবং ফলস্বরূপ, সাইবার গবেষকরা মেনে নিয়েছেন যে আইফোন বাজারের সবচেয়ে নিরাপদ, সবচেয়ে সুরক্ষিত মোবাইল ডিভাইস’।

Pegasus spyware একটি নির্দিষ্ট সংখ্যক ব্যক্তিকে ‘টার্গেট’ করে অতি উন্নত প্রযুক্তি ব্যাবহারের মাধ্যমে তাদের ডিভাইসে পাঠানো হয়। কিন্তু ব্যাপক নিরাপত্তার প্রশ্নে অ্যাপল ব্যবহারকারীরা নিশ্চিন্তে তাঁদের আইফোন ব্যবহার করতে পারেন। সেই বিষয়ে অ্যাপলের তরফে সব রকম ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Technology news download Indian Express Bengali App.

Web Title: Project pegasus experts fear apple android duopoly making life easier for spyware a losing battle for users