iPhone 13 সিরিজ উৎপাদনের হার ২০% হ্রাস পেয়েছে সেপ্টেম্বর-অক্টোবরে, দাবী Nikkei-এর

আইফোন ১৩ সিরিজের যে উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধার্য করা হয়েছিল, গত দু’ মাসে সেই উৎপাদন অপেক্ষা ২০% কম পণ্য উৎপাদন করেছে সংস্থা।

অফার উপলক্ষে আপনি এই ফোন কিনতে পারবেন মাত্র ৫৫,৯০০ টাকায়।

সামনেই বড়দিন উৎসবের মরশুমে তুঙ্গে থাকে স্মার্ট ফোন কেনার হিরিক, সম্প্রতি অ্যাপেল লঞ্চ করেছে ব্র্যান্ডের নতুন আইফোন ১৩ সিরিজ। নতুন আইফোনে রয়েছে অপেক্ষাকৃত দ্রুত গতির এ১৫ চিপ এবং উজ্জলতর ডিসপ্লে। পূর্ববর্তী মডেলগুলোর চাইতে এর ব্যাটারি স্থায়িত্বও আড়াই ঘণ্টা বেশি।

নতুন মডেলটি পাওয়া যাবে গোলাপি, নীল, ‘মিডলাইট স্টারলাইট’ এবং লাল রঙে। নতুন আইফোনে সর্বোচ্চ ৫০০ গিগাবাইট স্টোরেজের ব্যবস্থা থাকছে। আইফোন ১৩ গত সেপ্টেম্বরে লঞ্চের পর থেকে, সেপ্টেম্বর এবং অক্টোবরে পূর্ববর্তী পরিকল্পনার তুলনায় ২০% কম উৎপাদন হয়েছে বলে জানিয়েছে Nikkei, বুধবার প্রকাশিত এক রিপোর্টে Nikkei, উল্লেখ করেছে, আইফোন ১৩ সিরিজের যে উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধার্য করা হয়েছিল, গত দু’ মাসে সেই উৎপাদন অপেক্ষা ২০% কম পণ্য উৎপাদন করেছে সংস্থা।

সেপ্টেম্বরেই সামনে আনা হয়েছিল আইফোন ১৩ সিরিজ। এই ফোন সামনে আসার খবরে উত্তাল হয়েছিল টেকদুনিয়া। তবে অনেকেই অভিযোগ করেছেন, আইফোন ১৩ সিরিজ তাদের প্রত্যাশা পূরণ করতে পারেনি। আগের সিরিজের তুলনায় এই ১৩ সিরিজের ফোনে বিশেষ কোন পার্থক্য চোখে পড়েনি বলেও মত একশ্রেণীর গ্রাহকদের। এর মাঝেই উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা অপেক্ষা কম উৎপাদন ঘিরে জল্পনা তুঙ্গে।

টেক বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, করোনা কালে বিশ্ব ব্যাপী চিপসেটের ঘাটতি এবং সাপ্লাই চেইনের ঘাটতি তার অন্যতম প্রধান কারণ। অ্যাপেল প্রধান কুক গত অক্টোবরে সংবাদ সংস্থা রয়টার্সকে একান্ত এক সাক্ষাতকারে জানিয়েছেন, বিগত তিনমাসের তুলনায় আগামী তিনমাস উৎপাদন একটা বৃহত্তর চ্যালেঞ্জের মুখে দাঁড় করিয়ে দিতে পারে সংস্থাকে, তার অন্যতম প্রধান কারণ হিসাবে তিনি বিশ্বব্যাপী চিপ সেটের ঘাটতি, সাপ্লাই চেইন চ্যালেঞ্জের প্রভাবকেই দায়ী করেছেন।

Nikkei,-এর রিপোর্ট অনুসারে জানানো হয়েছে, গত অক্টোবরে একদশক সময়কালের মধ্যে প্রথম বিশ্বব্যাপী চিপসেটের ঘাটতির কারণে, চিনে আইফোন সহ আইপ্যাডের উৎপাদন বেশ কিছু দিনের জন্য বন্ধ রাখতে বাধ্য হয় সংস্থা। Nikkei,-আরও জানিয়েছে, সেপ্টেম্বর এবং অক্টোবরের মধ্যে, আইপ্যাড উৎপাদন হার প্রায় ৫০% কম ছিল পরিকল্পনা অপেক্ষা অন্যদিকে আগের আইফোন মডেলের উৎপাদন হারও এক ধাক্কায় প্রায় ২৫ % পর্যন্ত কমে গিয়েছিল। ব্লুমবার্গ এক রিপোর্টে উল্লেখ করেছে, অ্যাপল জানিয়েছে আইফোন ১৩ লাইনআপের জন্য তার যন্ত্রাংশ সরবরাহকারীদের চাহিদা আগের থেকে অনেক কমে গেছে। 

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Get the latest Bengali news and Technology news here. You can also read all the Technology news by following us on Twitter, Facebook and Telegram.

Web Title: Technology apple iphone 13 production drops 20 in seotember october

Next Story
কোন কোন বিষয়গুলি সবচেয়ে বেশি ‘সার্চ’ হয়েছে, সামনে আনল Google
Show comments