বড় খবর


চাঁদের মাটিতে মোবাইল টাওয়ার বসাবে নোকিয়া, নাসার সঙ্গে চুক্তি

পৃথিবীর এই উপগ্রহটিতে এবার মোবাইল টাওয়ার বসানোর জন্য মোবাইল ফোন উৎপাদনকারী সংস্থা নোকিয়াকেই বেছে নিল নাসা।এই প্রথম চন্দ্রপৃষ্ঠে এই কাজ হবে।

চন্দ্রপৃষ্ঠে অভিযান তো রয়েছেই কিন্তু মানুষ সেখানে গেলে যোগাযোগ করবে কীভাবে? চাঁদের বুকে সেই যোগাযোগের মাধ্যমকে আরও উন্নত করতে এবার আরও একধাপ এগোল নাসা। পৃথিবীর এই উপগ্রহটিতে এবার মোবাইল টাওয়ার বসানোর জন্য মোবাইল ফোন উৎপাদনকারী সংস্থা নোকিয়াকেই বেছে নিল নাসা।

সোমবারই ফিনল্যান্ডের টেলিকমিউনিকেশন সংস্থা জানায় যে নাসার সঙ্গে অংশীদারীত্বের পথে হেঁটেছে তাঁরা। চাঁদের মাটিতে মানুষের উপস্থিতি আরও মজবুত করার পথ তাঁরা তৈরি করতে আগ্রহী হয়েছে। এর ফলে মহাকাশে এটিই প্রথম কাজ হবে যেখানে LTE/4G কমিউনিকেশন সিস্টেম থাকবে।

নোকিয়ার বেল ল্যাবস ইউনিট এটিকে “আল্ট্রা-কমপ্যাক্ট, লো-পাওয়ার, এন্ড-টু-এন্ড এলটিই সলিউশন” হিসাবে বর্ণনা করেছে। বিশেষ টেকনোলজি ব্যবহার করার পরিকল্পনা করছে যা ২০২২ সালের শেষের দিকে চাঁদের মাটিতে বসানো সম্ভব হবে। নোকিয়া বলেছে, এমন ধরণের প্রযুক্তি সরবরাহ করার পরিকল্পনা করা হয়েছে যা চাঁদের রোভারগুলি দূর থেকে নিয়ন্ত্রণ করতে বা রিয়েল-টাইম নেভিগেশন এবং হাই ডেফিনেশন ভিডিওটির স্ট্রিমিংয়ের ব্যবস্থা করতে পারবে।

সংস্থার তরফে বলা হয়েছে, ” এর ফলে উৎক্ষেপণ এবং চন্দ্রপৃষ্ঠের অবতরণের জন্য এখন যে কঠোর পদ্ধতি অবলম্বন করতে হয় তার সুরাহা হবে। এছাড়াও অন্যান্য কঠিন পরিস্থিতি সমাধান করার জন্য বিশেষভাবে তৈরি করা হচ্ছে এই টেলিকমিউনিকেশন সিস্টেমকে।” নোকিয়া এও জানায় যে 5G নেটওয়ার্কের মতো আপগ্রেডেড প্রযুক্তি ব্যবহার করছে তাঁরা। যাতে মহাকাশচারীরা প্রয়োজনে ওয়ারলেস ব্যবহার করতে পারেন।

নোকিয়া তাঁদের নেটওয়ার্ক সিস্টেমকে একটি লুনার ল্যান্ডারের মধ্যে বসাচ্ছে। এটি চাঁদের পৃষ্ঠে পৌঁছে দেওয়ার জন্য স্বয়ংক্রিয় মেশিনগুলির সঙ্গে যাতে কাজ করতে পারে।

Read the story in English

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Web Title: To build first cellular network on the moon nokia picked by nasa

Next Story
করোনা কাঁটায় এবার হেঁটে নয়, নেটে দুর্গাপুজো দেখুন এই ভাবে
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com