scorecardresearch

বড় খবর

‘তোমরা কি আমাদের গুলি করতে এসেছ?’ দেখুন মর্মস্পর্শী ভিডিও

ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, মাটিতে হাঁটু গেড়ে বসে পাঁচ বছরের মেয়েটিকে অফিসার বলছেন, “আমরা এখানে তোমাদের নিরাপদ রাখতে এসেছি।”

houston cop black girl
পুলিশ দেখে কেঁদে ফেলে ছোট্ট মেয়েটি
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে জর্জ ফ্লয়েডের মৃত্যু, বর্ণবৈষম্য, এবং পুলিশি বর্বরতার প্রতিবাদে দেশজুড়ে এখনও চলছে হাজার হাজার মানুষের প্রতিবাদ। তারই মাঝে একটি ছোট্ট মেয়ের প্রতি এক পুলিশ অফিসারের সহৃদয়তার পরিচয় মিলেছে একটি ভাইরাল ভিডিওতে, যা দেখে আবেগপূর্ণ প্রতিক্রিয়া দিচ্ছেন অজস্র নেটিজেন। ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, মাটিতে হাঁটু গেড়ে বসে পাঁচ বছরের মেয়েটিকে অফিসার বলছেন, “আমরা এখানে তোমাদের নিরাপদ রাখতে এসেছি।” হৃদয়স্পর্শী এই দৃশ্য ক্যামেরাবন্দি করেছেন মেয়েটির বাবা।

সিমেওন বারটি, যিনি টেক্সাস রাজ্যের রাজধানী হিউস্টন-এ জর্জ ফ্লয়েডের মৃত্যুর প্রতিবাদে একটি মিছিলে অংশগ্রহণ করেছিলেন, বলেন যে চারদিকে যুদ্ধবেশে অত পুলিশ দেখে ভয় পেয়ে কাঁদতে শুরু করে তাঁর মেয়ে। টুইট করে তিনি জানিয়েছেন, মেয়েকে কাঁদতে দেখে এগিয়ে আসেন এক পুলিশ অফিসার। তাঁকে মেয়ে জিজ্ঞেস করে, “তোমরা কি আমাদের গুলি করতে এসেছ?” এক হাঁটু গেড়ে মাটিতে বসে একহাতে তাকে জড়িয়ে ধরে ওই অফিসার বলেন, “আমরা তোমাদের কোনোরকম ক্ষতি করতে আসি নি।” শিশুটিকে সান্ত্বনা দিয়ে ওই অফিসার আরও বলেন, “তোমরা প্রতিবাদ করো, পার্টি করো – যা খুশি করো। শুধু কিছু ভেঙো না।”

এবিসি নিউজ-কে মেয়েটির বাবা বলেন তিনি ওই অফিসারকে ধন্যবাদ দিতে চান, তাঁকে “অন্যরকম দৃষ্টিভঙ্গি” উপহার দেওয়ার জন্য। শুধু তাঁকেই নয়, তাঁর মেয়েকেও পুলিশকে অন্য চোখে দেখতে সাহায্য করার জন্য। তিনি আরও বলেন যে জর্জ ফ্লয়েডের মৃত্যু তাঁর কাছে আরও বেদনাদায়ক যেহেতু ২০১৬ সালে তাঁর নিজের ভাইকেও পুলিশি বর্বরতার শিকার হতে হয়।

হ্যারিস কাউন্টি জেলে থাকাকালীন বারটির ভাইয়ের ওপর চড়াও হন পাঁচ পুলিশকর্মী, অভিযোগ তাঁর। হামলার ফলে তাঁর ভাইয়ের নাক ভেঙে যায়, এবং একটি চোখ এমন মারাত্মক জখম হয় যে ডাক্তাররা তাঁর মুখে ধাতব পাত বসাতে বাধ্য হন। মুখের স্নায়ুও ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

বর্তমান ভিডিওটি ভাইরাল হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে অনেকে যেমন ওই অফিসারের প্রশংসা করেছেন, তেমনি অনেকে এই প্রশ্নও করেছেন যে এই ধরনের প্রতিবাদ মিছিলে শিশুদের নিয়ে যাওয়া উচিত কিনা, বিশেষত যেখানে হিংসার সম্ভাবনা রয়েছে।

এই প্রথম হৃদয় জয় করছে না হিউস্টন পুলিশ। সম্প্রতি সেখানকার পুলিশ কমিশনার মার্কিন রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্পকে “মুখ বন্ধ” রাখার উপদেশ দিয়ে ভূয়সী প্রশংসা কুড়িয়েছেন। দেশের পুলিশকে প্রতিবাদের বিরুদ্ধে আরও কঠোর হওয়ার উপদেশ দিয়েছিলেন ট্রাম্প। জবাবে কমিশনার আর্ট আসেভেদো বলেন, “আমি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টকে বলছি, দেশের সমস্ত পুলিশ প্রধানের তরফে: প্লিজ, গঠনমূলক কিছু যদি বলার না থাকে, মুখ বন্ধ রাখুন।” এখানে দেখে নিন সেই ভিডিও।

এই ছোট্ট মেয়েটি অবশ্য একমাত্র নজর কাড়ে নি। সম্প্রতি ভাইরাল হয়েছে একটি সাত বছরের মেয়ের ভিডিও, যার ‘নো জাস্টিস, নো পিস’ স্লোগানে নড়েচড়ে বসেছে নেট দুনিয়া।

অন্যদিকে জর্জ ফ্লয়েডের মৃত্যুতে শোকাহত প্রতিবাদীরা প্রতিজ্ঞা করেছেন যে এই আন্দোলন চলবে, যদিও তার ধরন পাল্টে যাচ্ছে। প্রাথমিক লুটতরাজ এবং হিংসা এখন পরিণত হচ্ছে শান্ত অথচ দৃঢ় প্রতিবাদে।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা এখন টেলিগ্রামে, পড়তে থাকুন

Stay updated with the latest news headlines and all the latest Viral news download Indian Express Bengali App.

Web Title: American cop comforts little girl anti racism protest