বড় খবর

“মাস্ক কই? চলুন তবে করোনার মুখোমুখি হবেন”, ভিডিও দেখে হেসে লুটোপুটি নেটপাড়া

‘ছেড়ে দে মা কেঁদে বাঁচি’র মতো অবস্থা হয় তাদের। করোনা আক্রান্ত রোগী আবার তাদের জড়িয়ে ধরতে চায়। হাত জোড় করে ক্ষমা ভিক্ষা চায়।

মাস্ক নেই, হেলমেটও নেই। ফাঁকা রাস্তায় স্কুটি নিয়ে খুশির মেজাজে লকডাউন ভঙ্গ করতে বেরিয়েছিলেন বেশ কিছু যুবক। কিন্তু, তাদের ফাঁকা রাস্তায় যত্রতত্র ঘুরে বেরানোয় বাধা হয়ে দাঁড়ালেন করোনা আক্রান্ত শহরবাসী। না, কোভিডে আক্রান্ত রোগী রাস্তায় ঘুরে বেড়াচ্ছে, এটি একেবারেই নয়। তিনি অ্যাম্বুলেন্সে শুয়ে ছিলেন। তাহলে কি করে, তারা করোনার মুখোমুখি হল?

পুলিশের কষা ছক। লকডাউন ভঙ্গ করা নিয়ে পুলিশ লাঠির ঘা থেকে শুরু করে কান ধরে ওঠবস করিয়েছে। কিন্তু তামিল নাড়ুর পুলিশ অন্য ফন্দি এঁটেছেন। তারা সটাং নিয়ে যাচ্ছে করোনা আক্রান্ত রোগীর সামনে। যাতে করোনার ভয়ে এরপর আর বাড়ি থেকে বের না হয় তারা।

করোনায় আক্রান্ত রোগী সাজানো হয়েছে এক পুলিশ কর্মীকে। যিনি অ্যাম্বুলেন্সে শুয়ে রয়েছেন। ওই যুবকদের আটকে প্রথমে জিজ্ঞাসা করা হয়, মাস্ক কই? তারা জানায়, মাস্ক লাগবে না, কিছু হবে না। এরপরই, তাদের অ্যাম্বুলেন্সে তুলে দরজা বন্ধ করে দেওয়া হয়।

তারপরই শুরু হয় আসল খেলা। পালানোর চেষ্টা করে, জানলা দিয়ে বেরিয়ে যায়। ‘ছেড়ে দে মা কেঁদে বাঁচি’র মতো অবস্থা হয় তাদের। করোনা আক্রান্ত রোগী আবার তাদের জড়িয়ে ধরতে চায়। হাত জোড় করে ক্ষমা ভিক্ষা চায়। শেষে নিজেদের জামা দিয়ে নাক মুখ ঢাকতে চায় তারা। এই ভিডিও দেখে হেসে খুন নেটপাড়া।

Web Title: Tamil nadu police put lockdown violators in an ambulance with a fake covid19 positive patient as punishment in tiruppur

Next Story
“এটা কি আরামদায়ক বিছানা এবং আট ঘন্টা ঘুমের মতো বিলাসিতা?”
The moderation of comments is automated and not cleared manually by bengali.indianexpress.com